উইন্ডোজ ৮ সিস্টেম টুলস – যা নতুন করে ইনস্টলের প্রয়োজন নেই


টেক জায়ান্ট মাইক্রোসফট উইন্ডোজের নতুন ভারসনে প্রতিবার নতুন নতুন সিস্টেম টুলস্ যুক্ত করে আসছে, যা আমরা ইতিপূর্বে উইন্ডোজ ৭ -এ দেখেছি। উইন্ডোজ ৮-এর বেলায়ও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। বিভিন্ন ধরনের নতুন নতুন ইউলিটি প্রোগ্রাম উইন্ডোজ ৮-এ যুক্ত করা হয়েছে। তবে এর মধ্যে অনেক টুলসই উইন্ডোজ ৭ এ আগে থেকেই ছিল। একটা কথা স্বীকার করতেই হবে, উইন্ডোজের নতুন সংস্করণ উইন্ডোজ ৮ বেশকিছু চমৎকার এবং কাজের টুলস্ নিয়ে এসেছে যেগুলো ব্যবহার করলে আর ঐ কাজের জন্য থার্ড পার্টি অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারের প্রয়োজন পড়বে না। আমার তো তাই মনে হয়। আপনি কি এখনও স্থির করতে পারছেন না থার্ড পার্টি অ্যাপলিকেশনগুলো লাগবে কি না? সিদ্ধান্ত নিতে একটু সময় দেওয়া হল। চলুন ততক্ষণে জেনে নিই কী কী বিল্ট ইন টুলস নিয়ে এসেছে উইন্ডোজ ৮।
অ্যান্টিভাইরাস (অহঃরারৎঁং)
উইন্ডোজ ইউজারদের অন্যতম তালিকাভুক্ত শত্রু হল ভাইরাস। কি, শুনে হাসি পাচ্ছে? ভাইরাস কিন্তু একবার যাকে ধরে তার খবর করেই ছাড়ে। যা হোক সে গল্প অন্য একদিন বলা যাবে। যা বলছিলাম, উইন্ডোজ ৮-এ একটি অ্যান্টিভাইরাস প্রোগ্রাম যুক্ত করা হয়েছে। অ্যান্টিভাইরাসটির নাম হল উইন্ডোজ ডিফেন্ডার (ডরহফড়ংি উবভবহফবৎ)। অবশেষে উইন্ডোজ ইউজারদের কপালে একটি বিল্টইন অ্যান্টিভাইরাস জুটল। এই অ্যান্টিভাইরাস থাকার কারণে উইন্ডোজ ৮ ইনস্টল করার পরপরই ইউজারকে অ্যান্টিভাইরাস ইনস্টল করার জন্য তাগাদা দেয় না। যা আগের ভারসনগুলোতে করত। গরপৎড়ংড়ভঃ ঝবপঁৎরঃু ঊংংবহঃরধষং-এর নাম পরিবর্তন করে উইন্ডোজ ৮-এ ডরহফড়ংি উবভবহফবৎ রাখা হয়েছে। আপনি যদি উইন্ডোজ ৭ ব্যবহারকারীদের একজন হন তাহলে মাইক্রোসফট এর ওয়েবসাইট থেকে এটি সংগ্রহ করতে পারেন। উইন্ডোজ ৮ ব্যবহার করলে আর কোন থার্ড পার্টি অ্যান্টিভাইরাসের প্রয়োজন নেই।

ফায়ারওয়াল (ঋরৎবধিষষ)
আপনি কি এখনও থার্ড পার্টি ফায়ালওয়াল ব্যবহার করছেন? তাহলে জেনে নিন উইন্ডোজ ৮ আর থার্ড পার্টি ফায়ারওয়াল ব্যবহারের প্রয়োজন নেই। কারণ উইন্ডোজ ৮-এর বিল্টইন ফায়ারওয়ালটি আপনার আগের থার্ড পার্টি টুলস্-এর মতই কাজ করবে। বিল্টইন ফায়ালওয়াল আপনার নেটওয়ার্কে আগত বিভিন্ন ধরনের ট্রাফিককে ব্লক করতে পারে । এছাড়া পাবলিক ওয়াইফাই-এ নেটওয়ার্ক ফাইল শেয়ারিংয়ের সময় বিভিন্ন সেনসিটিভ নেটওয়ার্ক অ্যাকসেস ব্লক করতে পারে। যারা তাদের অ্যাপ্লিকেশনগুলো টুইক এবং ম্যানেজ করতে পছন্দ করেন তাদের থার্ড পার্টি ফায়ারওয়াল ব্যবহার করে অ্যাপ্লিকেশনগুলোকে ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত করতে হবে। তবে উইন্ডোজ এক্সপি সার্ভিসপ্যাক ২ এবং পরবর্তী ভারসনগুলোতে একটি সলিড ফায়ারওয়াল আছে।

সিকিউরিটি স্যুইট (ঝবপঁৎরঃু ঝঁরঃব)
অ্যান্টিভাইরাস এবং ফায়ারওয়ালের সাথে উইন্ডোজ ৮-এ ইন্টারনেট সিকিউরিটি স্যুইটও যুক্ত হয়েছে। ইন্টারনেট সিকিউরিটি স্যুইটের ফিচারগুলো হল – অ্যান্টি-ফিশিং, কুকি মুছে ফেলার ক্ষমতাসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় সিকিউরিটি ফিচার। তবে এই ফিচারগুলোর খুব বেশি প্রয়োজন পড়ে না। কারণ আপনার ব্রাউজারে বিল্টইন ফিশিং প্রোটেকশন রয়েছে। আর আপনি কুকি মুছে ফেলতে চাইলে ব্রাউজার বন্ধ করার সময়ই তা করতে পারবেন, যদি চান। তাই সিস্টেমকে রক্ষা করতে আর কোনো থার্ড পার্টি ইন্টারনেট সিকিউরিটি স্যুইট অ্যাপ্লিকেশনের প্রয়োজন নেই। কারণ এতে একটি ঝসধৎঃঝপৎববহ ফিচার রয়েছে যা অ্যাপ্লিকেশন চালু হবার আগেই প্রোগ্রামের বিশ্বস্ততা যাচাই করে থাকে।

পার্টিশন ম্যানেজার (চধৎঃরঃরড়হ গধহধমবৎ)
উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে পার্টিশন ম্যানেজমেন্টের জন্য কোনো থার্ড পার্টি টুল-এর প্রয়োজন নেই। এর পরিবর্তে ব্যবহার করতে পারেন উইন্ডোজের বিল্টইন উরংশ গধহধমবসবহঃ টুলটি। এর দ্বারা আপনি বড় পার্টিশনকে ছোট করে নতুন একটি পার্টিশন তৈরি করতে এবং ফরম্যাট করতে পারবেন। বেশির ভাগ সময়ে বেসিক পার্টিশন অপারেশনের ক্ষেত্রে এই টুলটিই যথেষ্ট। তবে যদি আরও অ্যাডভান্সড অপারেশন করতে চান তাহলে তখন একটি থার্ডপার্টি টুল-এর প্রয়োজন হবে।

ওঝঙ এবং ওগএ ফাইল মাউন্টিং
ভার্চুয়াল ডিস্ক হিসেবে ব্যবহারের জন্য যদি কখনও ওঝঙ বা ওগএ ফাইল ফাইল মাউন্ট করা প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয় তবে এজন্য আলাদা কোন থার্ডপার্টি টুলসের প্রয়োজন নেই। উইন্ডোজ ৮-এর ফাইল এক্সপ্লোরারের ফরংপ রসধমব সড়ঁহঃরহম টুলটি ব্যবহার করা যেতে পারে। যারা অন্যান্য টাইপের ইমেজ মাউন্ট করতে চান বা আর যারা উইন্ডোজ ৭ ব্যবহার করছেন তাদেরকে এ কাজটি করার জন্য একটি থার্ড পার্টি টুল ইনস্টল করতে হবে।

ডিস্ক বার্র্নিং (উরংপ ইঁৎহরহম)
ডাটা ডিস্কে বার্ন করা, রি-রাইটেবল ডিস্ক ইরেজ করা এবং এমনকি ওঝঙ ফাইল সরাসরি ডিস্কে বার্ন করার জন্য উইন্ডোজ ৭ এর মত উইন্ডোজ ৮-এও বিল্টইন সাপোর্ট রয়েছে। তাই টাকা খরচ করে থার্ড পার্টি বার্নিং টুল কেনার আর প্রয়োজন নেই। আপনার যদি কখনও অডিও সিডি বার্ন করার প্রয়োজন হয়ে তবে এটি উইন্ডোজ মিডিয়া প্লেয়ার ব্যবহার করেই তা করতে পারবেন।

পিসি ক্লিনিং অ্যাপস্ (চঈ ঈষবধহরহম অঢ়ঢ়)
পিসি ক্লিনিং অ্যাপস্গুলোর বেশির ভাগই খুব একটা কাজের নয়, বিশেষ করে যেগুলো টাকা দিয়ে কিনতে হয়। টেম্পোরারি ফাইল মুছে ফেলা এবং স্টোরেজ স্পেস ফাঁকা করতে উইন্ডোজের ডিফল্ট টুল উরংশ ঈষবধহঁঢ় টুলই যথেষ্ট। এর পরও যদি থার্ড পার্টি অ্যাপস্ ব্যবহার করতে চান তাহলে সিক্লিনার ব্যবহার করুন। এটি বিনামূল্যেই পাবেন। তাই পেইড পিসি ক্লিনিং অ্যাপস্-এর চিন্তা মুছে ফেলুন।

এখানে মোট সাতটি বিল্টইন অ্যাপ্লিকেশন নিয়ে আলোচনা করা হল। আগামী সংখ্যায় উইন্ডোজ ৮-এর সাথে আসা ডিফল্ট কিছু ইউটিলিটি নিয়ে আলোচনা করা হবে। সবাই ভাল থাকবেন। ধন্যবাদ।
নাফিউর রহমান সজীব