হ্যাকিংয়ের ঝুঁকির মুখে একশো কোটি অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস 

বিশ্বের একশো কোটিরও বেশি অ্যান্ড্রয়েড চালিত ডিভাইস এখন হ্যাকিংয়ের হুমকির মুখে রয়েছে যেহেতু এগুলো এখন আর কোনো সিকিউরিটি আপডেট দ্বারা সুরক্ষিত নয়। ‘হুইচ?’ নামে একটি ওয়াচডগ সংস্থা এই খবর জানিয়েছে।

এই হুমকির কারণে বিশ্বের কোটি কোটি মোবাইল ব্যবহারকারী ডাটা চুরি, হুমকি দিয়ে টাকা আদায় এবং অন্যান্য ম্যালওয়্যারজনিত ঝুঁকির মুখে আছেন। হুইচ?-এর রিপোর্টে ২০১২ বা তার আগে তৈরি অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ব্যবহারকারীদের বিশেষভাবে ঝুঁকি-আক্রান্ত বলে মন্তব্য করা হয়েছে। এ ব্যাপারে অ্যান্ড্রয়েড-এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান গুগল এখনও কোনো সন্তোষজনক জবাব দিতে পারেনি। গুগুল-এর নিজেদের উপাত্ত থেকে দেখা যাচ্ছে, অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীদের ৪২.১ শতাংশ ভার্সন ৬.০ বা তার আগের কোনো ভার্সন ব্যবহার করছেন। অ্যান্ড্রয়েড সিকিউরিটি বুলেটিনের তথ্যমতে, ২০১৯ সালে ভার্সন ৭.০ বা তার আগের ভার্সনের জন্য কোনো সিকিউরিটি প্যাচ এখনও রিলিজ করা হয়নি। হুইচ?-এর তথ্য থেকে জানা যাচ্ছে, বিশ্বের সমস্ত অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারীদের প্রতি পাঁচজনে তিনজন বর্তমানে কোনো সিকিউরিটি আপডেট পাচ্ছে  না। পরীক্ষামূলকভাবে একটি এন্টি ভাইরাস কোম্পানিকে দিয়ে এসব ফোনে ম্যালওয়্যার ঢোকানোর চেষ্টা করে প্রতিটি ক্ষেত্রেই সফল হয়েছিল হুইচ? তারা তাদের গবেষণার তথ্য গুগলের সাথে শেয়ার করেছে, কিন্তু গুগল এ ব্যাপারে তাদের আশ্বস্ত করতে সক্ষম হয়নি।

হুইচ?-এর কম্পিউটিং এডিটর কেইট বেভিন এটিকে অত্যন্ত আশঙ্কাজনক বলে মন্তব্য করে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসগুলোর সিকিউরিটি সাপোর্ট পাবার হতাশাজনক অবস্থায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। হ্যাকিংয়ের শিকার হলে লক্ষ লক্ষ অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী ভীষণ বিপদে পড়বেন বলেও মতপ্রকাশ করেছেন তিনি। এজন্য সরকারকে আইন প্রয়োগ ও বাস্তবায়নের ব্যাপারে কঠোর হবার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এক্ষেত্রে নিজের ফোনের নিরাপত্তা পরীক্ষা করার জন্য নিচের কাজগুলো করা যেতে পারে :

  •  আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন যদি দুই বছর বা তার বেশি পুরনো হয় তাহলে দেখুন এটি অপারেটিংসিস্টেমের নতুন ভার্সনে আপডেট করা যায় কিনা। আপনার ফোন যদি অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ নট বা বা তার আগর ভার্সনের হয় তাহলে Settings> System>Advanced System update-এর মাধ্যমে আপডেট করার চেষ্টা করুন।
  • যদি আপডেট করতে ব্যর্থ হন তাহলে আপনি হ্যাকিংয়ের ঝুঁকির মুখে আছেন। বিশেষ করে যদি আপনি অ্যান্ড্রয়েড ৪.০ বার তার চেয়েও পুরনো ভার্সনে থাকেন। এক্ষেত্রে গুগল প্লে স্টোর ছাড়া অন্য কোনো জায়গা থেকে অ্যাপ ডাউনলোড করার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকুন।
  • সন্দেহজনক SMS বা MMS-এর ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।
  •  অন্তত দুই জায়গায় ডাটার ব্যাক আপ রাখুন (একটি হার্ড ড্রাইভ, একটি ক্লাউড সার্ভিস)।
  •  ভালো কোনো মোবাইল এন্টি ভাইরাস ইনস্টল করুন।

 

বিবিসি অবলম্বনে সিনিউজভয়েস/জিডিটি/০৮মা./২০

Please Share This Post.