হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার জাতীয় পর্ব ৭ এপ্রিল

স্কুল পর্যায় থেকে শিক্ষার্থীদের প্রোগ্রামিংয়ে উৎসাহিত করতে গত ৯ মার্চ থেকে সারা দেশে শুরু হয়েছিল জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা। ১৬টি আঞ্চলিক ও ৩টি উপজেলা পর্যায়ের সফল আয়োজনের মধ্য দিয়ে সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ আয়োজিত জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং ও আইসিটি কুইজ প্রতিযোগিতার আঞ্চলিক পর্ব ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে ।

যশোর, খুলনা, ঢাকা, কুমিল্লা, নোয়াখালী, চট্টগ্রাম, সিলেট, গোপালগঞ্জ, পটুয়াখালী, পাবনা, রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ ও বরিশালসহ ১৬টি জেলা ও ৩টি উপজেলায় (সৈয়দপুর, সিংড়া ও আনোয়ারা) আঞ্চলিক পর্যায়ে অংশগ্রহণ করে প্রায় ২০ হাজার শিক্ষার্থী।

এদের মধ্যে বিজয়ী ১ হাজার ২০০ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে আগামী ৭ এপ্রিল ঢাকার খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার সমাপনী পর্ব।

৭ এপ্রিল ঢাকার কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে জাতীয় পর্যায়ের কুইজ প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্যপ্রযুক্তি ইনস্টিটিউট ও ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার এই জাতীয় পর্বে উপস্থিত থাকবেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. হারুনুর রশিদ, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এর অধ্যাপাক মো. কায়কোবাদ ও বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান ও আরো অনেকে।

এই আয়োজন সম্পর্কে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘বিশ্বজুড়ে প্রোগ্রামারদের এখন ব্যাপক চাহিদা। সারাবিশ্বে তথ্যপ্রযুক্তির উন্নয়ন যেভাবে হচ্ছে বাংলাদেশেও উন্নয়নের সেই ধারা অব্যাহত রাখতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ। এরই একটি জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা। টানা তৃতীয়বারের মতো সারাদেশে এই উৎসব অনুষ্ঠান শেষে ৭ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে জাতীয় পর্ব। জাতীয় পর্যায়ের পর ধারাবাহিক নির্বাচনের মাধ্যমে ইরানের তেহরানে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক ইনফরমেটিক্স অলিম্পিয়াডের জন্য বাংলাদেশের সদস্যদের নির্বাচন করা হবে।’

উৎসবের আয়োজন সহযোগী বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান বলেন, ‘আগামীর দিনগুলোতে আমাদের অনেক প্রোগ্রামার দরকার। প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে মেধাবী শিক্ষার্থীদের এই আয়োজনের অংশগ্রহণের মাধ্যমে ভবিষ্যতের প্রোগ্রামার হওয়ার স্বপ্ন দেখছে এবং আমরা তাদের স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার চেষ্টা করছি।’

প্রতিযোগিতার বিচার কাজের জন্য দেশে তৈরি আন্তর্জাতিক জাজ ইঞ্জিন কোডমার্শাল ব্যবহার করা হচ্ছে। www.nhspc.org নামে একটি ওয়েবসাইট চালু করা হয়েছে। সক্রিয় আছে প্রতিযোগিতার ফেসবুক পেজ এবং ফেসবুক গ্রুপ।

উল্লেখ্য, দেশে দক্ষ কম্পিউটার প্রোগ্রামার তৈরিতে ছোটবেলা থেকেই শিক্ষার্থীদের প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি আগ্রহী করে তুলতে গত ২০১৫ সাল থেকে সারা দেশে এই আয়োজন করে আসছে সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ। বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) এই প্রতিযোগিতার বাস্তবায়ন সহযোগী। এছাড়া বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগ স্থানীয় আয়োজক হিসেবে কাজ করেছে।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.