স্যামসাং গিয়ার: ভার্চুয়াল রিয়েলিটির অনন্য মাধ্যম

স্যামসাং-এর দুনিয়া কাঁপানো ভার্চুয়াল রিয়েলিটি হেডসেট গিয়ার ভার্চুয়াল রিয়েলিটির অভিযাত্রায় নতুন এক মাত্রা যুক্ত করেছে। অকুলাস-এর সাথে যৌথভাবে নির্মিত এই হেডসেটটি রিলিজ করা হয় ২০১৫ সালের নভেম্বরে। এটির সাথে কমপ্যাটিবল স্যামসাং গ্যালাক্সি ডিভাইস (গ্যালাক্সি নোট ৫, গ্যালাক্সি এস৬/এস৭ এজ/এস৬ এজ+ অথবা গ্যালাক্সি এস৭/এস৮ এজ) এই হেডেসেটের ডিসপ্লে ও প্রসেসর হিসেবে কাজ করে, আর গিয়ার ভিআর ইউনিটটি কাজ করে কন্ট্রোলার হিসেবে, যাতে আছে উচ্চমানের ফিল্ড অব ভিউ, রোটেশনাল ট্র্যাকিংয়ের জন্য আছে কাস্টম ইনার্শিয়াল মেজারম্যান্ট ইউনিট বা আইএমইউ, যা মাইক্রো ইউএসবির মাধ্যমে স্মার্টফোনের সাথে সংযোগ সৃষ্টি করে। গিয়ার ভিআর হেডসেটটিতে আরো আছে টাচপ্যাড ও ব্যাক বাটন, যাতে করে ব্যবহারকারী ভার্চুয়াল পরিবেশের সাথে যোগাযোগ করতে সক্ষম হন। এটির ডান দিকে অবস্থানকারী ভলিউম রকার হেডসেটটির ভলিউমকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য ব্যবহৃত হয়।

২০১৪-র সেপ্টেম্বরে গিয়ার ভার্চুয়ার রিয়েলিটি হেডসেটের কথা প্রথম ঘোষণা করে স্যামসাং, ডেভেরপাররা যাতে গিয়ার ভিআর-এর জন্য কনটেন্ট তৈরি করতে পারেন সেজন্য চূড়ান্ত কনজিউমার ভার্সনের আগে দুটো ইনোভেটর এডিশনও বাজারে ছাড়া হয়। স্যামসাং বুঝতে পেরেছিল, আগামীতে ভার্চুয়াল রিয়েলিটিই শাসন করবে প্রযুক্তির ভুবন, এজন্য প্রস্তুতিতে কোনো কমতি রাখতে চায়নি প্রতিষ্ঠানটি। অসাধারণ এই গ্যাজেটটি বর্তমানে স্যামসাংয়ের Galaxy S6, Galaxy S6 Edge, Galaxy S6 Edge+, Samsung Galaxy Note 5, Galaxy S7, Galaxy S7 Edge সাপোর্ট করে। গিয়ার ভিআর ব্যবহার করার জন্য আসলে বিশেষ কোনো দক্ষতার দরকার হয় না। আপনার গ্যালাক্সি স্মার্টফোনটি নিন, একে গিয়ার ভিআর-এ স্লাইড করে যুক্ত করুন, ব্যস। গিয়ার ভিআরটি ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত হয়ে গেল। এটি আপনার প্রযুক্তি-অভিজ্ঞতাকে নতুন এক উচ্চতায় নিয়ে যাবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই। গেম খেলতে চান? নাকি চান ভার্চুয়াল ভ্যাকেশন উপভোগ করতে, নাকি দেখতে চান জমজমাট একটি মুভি। যতক্ষণ গিয়ার ভিআর আপনার সাথে আছে ততক্ষণ আর চিন্তা নেই কোনো। আপনার হাতেই পৃথিবী! গিয়ার ভিআর থাকলে আপনার আর মাল্টিপ্লেক্সে সিনেমা দেখতে যাওয়ার দরকার নেই, এটিই হয়ে যাবে আপনার নিজস্ব মুভিপ্লেক্স।

বাইরের দুনিয়ার যাবতীয় ঝুটঝামেলা থেকে মুক্ত থেকে আপনি মনের আনন্দে নিজেকে ডুবিয়ে দিতে পারবেন বিনোদন আর উপভোগ্যতার এক আনন্দভুবনে, যেখানে আপনাকে বাধা দেয়ার জন্য কিছু থাকবে না। গেমিংয়ের ক্ষেত্রে আপনাকে ভিন্ন এক অভিজ্ঞতার সন্ধান এনে দেবে এটি। গিয়ার ভিআর ব্যবহারের মাধ্যমে এমন গেমিং অভিজ্ঞতা লাভ করতে পারবেন, মনে হবে আপনি গেম খেলছেন না, আসলে গেমের ভুবনেই বাস করছেন! আপনার হাতের নাড়াচাড়া দিয়ে নানারকম কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন, বলতে পারবেন গেম খেলার সম্পূর্ণ নতুন ভুবনে আপনাকে নিয়ে যাবে এই হেডসেটটি। গিয়ার ভিআর-এর অন্যান্য ব্যবহারের মধ্যে আছে গেটি ইমেজ অ্যাপ-এর মাধ্যমে ৩৬০ ডিগ্রি ইমেজ দেখা। গেটি-র নিজচস্ব আর্কাইভ থেকে গোলাকৃতির কনটেন্টগুলো গিয়ার ভিআর-এর মাধ্যমে দেখতে পারবেন ইউজার, যার মধ্যে আছে বিশ্বকাপ ফুটবল এবং কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের মত ইভেন্ট। ভবিষ্যতে অনেকগুলো ট্রেনিং ও সিমুলেশন অ্যাপ্লিকেশনও গিয়ার ভিআর-এর মাধ্যমে উপভোগ করা যাবে। এই হেডসেটটিকে কীভাবে যাবতীয় ঝুটঝামেলামুক্ত করে ব্যবহারকারীদের উপভোগ্যতাকে নতুন এক উচ্চতায় পৌঁছে দেয়া যায় আপাতত তা নিয়েই ব্যস্ত আছেন গিয়ার টিম।

-গোলাম দাস্তগীর তৌহিদ

Please Share This Post.