স্বাধীনতার ৫০ বছর পদার্পণকে সামনে রেখে মিনিস্টার গ্রুপের টিভিসি উন্মোচন

মিনিস্টার গ্রুপের প্রধান কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু’র জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পদার্পণকে সামনে রেখে টিভিসি সম্প্রচার উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

এই টিভিসি সম্প্রচার উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠানটিতে ভার্চুয়ালি উপস্থিত ছিলেন- মিনিস্টার গ্রুপের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর ও বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার, জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। অনুষ্ঠানটিতে আরও উপস্থিত ছিলেন মিনিস্টার গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং এফবিসিসিআই এর পরিচালক এম এ রাজ্জাক খান রাজ, টিভিসি এর নির্মাতা হাসান মোর্শেদ, মিনিস্টার গ্রুপের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর গোলাম শাহরিয়ার কবীর, সিএফও ফখরুল ইসলাম এফসিএ, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর মোহাম্মাদ শাহ আলম, এজিএম এবং সকল ডিপার্টমেন্টের প্রধানগণ।

মিনিস্টার গ্রুপের নতুন টিভিসিতে আমরা সাকিবকে নতুন রূপে দেখতে পাবো এবং এর পাশাপাশি মিনিস্টার গ্রুপের আগামী দিনের লক্ষ্যকেও তুলে ধরা হয়েছে টিভিসিটিতে। সাকিব আল হাসান বিগত এক বছর ধরে মিনিস্টারের সাথে আছেন এবং সামনের দিনগুলিতেও তিনি মিনিস্টারের সাথে থাকবেন। উল্লেখ্য, টিভিসি’টি মিনিস্টারের অন্যতম পণ্য এসি’র উপর নির্মিত।

এ প্রসঙ্গে মিনিস্টার গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং এফবিসিসিআই এর পরিচালক এম এ রাজ্জাক খান রাজ বলেন, “বঙ্গবন্ধু’র জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পদার্পণকে সামনে রেখে মিনিস্টার গ্রুপ তাদের নতুন লক্ষ্য ঠিক করেছে এবং তা হল, “লক্ষ্য এবার বিশ্বজয়”। আমরা ইতোমধ্যে বাংলাদেশের মানুষের কাছে আস্থার এক নাম হয়ে উঠেছি এবং সবার সামর্থ্যের মধ্যে ভালমানের ইলেক্ট্রনিক্স পণ্য পৌঁছে দেবার জন্য অবিরাম কাজ করে চলেছি। এই সাফল্যকে পাথেয় করে আমরা বিশ্বদরবারে নিজেদেরকে নিয়ে যেতে চাই এবং আমাদের সাথে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ কেও তুলে ধরতে চাই। এই টিভিসির মাধ্যমে মিনিস্টারকে আমরা দেশবাসির কাছে নতুন রূপে তুলে উন্মোচিত করতে চাই। সাকিব যেমন পরিশ্রম, দৃঢ়তা ও একাগ্রতার মাধ্যমে আজকের এই অবস্থানে এসেছে, তেমনি মিনিস্টার’ও সেই দৃঢ় মনোবল ও পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে সফলভাবে এগিয়ে যাচ্ছে”।

নতুন এ টিভিসি প্রসঙ্গে সাকিব আল হাসান বলেন, “মিনিস্টার গ্রুপের মত একটি দেশীয় ব্র্যান্ডের সাথে কাজ করতে পারাটা আমার জন্য খুবই আনন্দের বিষয়। নতুন এই বিজ্ঞাপনটি আসলে দেখিয়েছে সফল হবার প্রধান শর্ত হচ্ছে পরিশ্রম। বিজ্ঞাপনটির জন্য নির্মাতা হাসান মোর্শেদ অনেক কষ্ট করেছেন। তার সাথে কাজ করা আমার জন্য ছিল সুন্দর এক অভিজ্ঞতা। মিনিস্টারের পৃষ্ঠপোষকতা সবসময়ই ছিল অসাধারণ।

Please Share This Post.