স্পেকট্রাম গ্রহণে ৩ হাজার কোটি টাকার বেশি বিনিয়োগ বাংলালিংকের


বাংলাদেশের অন্যতম ডিজিটাল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক ২১০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডের ৫ মেগাহার্জ এবং ১৮০০ মেগাহার্জ ব্যান্ডের ৫.৬ মেগাহার্জ স্পেকট্রাম গ্রহণের জন্য তিন হাজার কোটি টাকার অধিক অর্থ বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে। এই বিনিয়োগ দেশের মোবাইল অপারেটরদের সর্বোচ্চ বিনিয়োগের মধ্যে একটি।

১৩ ফেব্রুয়ারি, ঢাকা ক্লাবে অনুষ্ঠিত স্পেকট্রাম নিলামে অংশগ্রহণ করে, বাংলালিংক বিটিআরসি কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে এবারের নিলামের প্রদত্ত সর্বোচ্চ পরিমাণ স্পেকট্রাম গ্রহণ করে। সংযোজিত এই স্পেকট্রাম বাংলালিংকের ডিজিটাল সেবার মান বৃদ্ধিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালনের পাশাপাশি শিগগির চালু হতে যাওয়া ফোরজি সেবার জন্য প্রয়োজনীয় স্পেকট্রাম সরবরাহে সাহায্য করবে।

বিটিআরসি কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি লাইসেন্স গ্রহণের পর ফোরজি চালু করবে বাংলালিংক। নতুন স্পেকট্রাম গ্রহণের পাশাপাশি বাংলালিংক প্রযুক্তি নিরপেক্ষতার (টেক নিউট্রালিটি) জন্যও কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছে , যার মাধ্যমে যে কোনো ব্যান্ডের স্পেকট্রামের মাধ্যমে টুজি, থ্রিজি এবং ফোরজি সেবা দেওয়া সম্ভব হবে।

এক প্রেস বিবৃতিতে বাংলালিংকের সিইও এরিক অস বলেন, ‘নতুন স্পেকট্রাম গ্রহণ করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত।’ তিনি আরো বলেন, ‘গ্রাহকদের উন্নত মানের ডিজিটাল সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে স্পেকট্রামের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। নতুনভাবে সংযোজিত স্পেকট্রামের ফলে আমরা গ্রাহকদের নিরবিচ্ছিন্ন ডিজিটাল সংযোগ ও আরো উন্নত কাভারেজ দিতে সক্ষম হবো, যা গ্রাহকদের আরো ভালো সেবা দিতে সাহায্য করবে।’

বর্তমানে তিনটি ব্যান্ডে মোট ২০ মেগাহার্জ স্পেকট্রাম রয়েছে বাংলালিংকের। নতুন স্পেকট্রাম সংযোজনের পর বাংলালিংকের মোট স্পেকট্রামের পরিমাণ হবে ৩০.৬ মেগাহার্জ।

বাংলাদেশে যাত্রা শুরুর পর থেকে বাংলালিংক সর্বাধুনিক প্রযুক্তির সহায়তায় জীবনযাত্রার পরিবর্তনের ক্ষেত্রে অগ্রগামী ভূমিকা পালন করে আসছে । নতুন স্পেকট্রাম গ্রহণ/ক্রয়ের মাধ্যমে দেশের ডিজিটাল রূপান্তর বাস্তবায়নে আরো একবার অবদান রাখলো বাংলালিংক।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক