সফলতার ২০ বছরে এক্সেল টেকনোলজিস

দুই দশক পূর্তী উদযাপন করল দেশের দেশের প্রযুক্তিপণ্য পরিবেশক প্রতিষ্ঠান এক্সেল টেকনোলজিস লিমিটেড। গত শনিবার রাজধানীর ধানমন্ডি ক্লাবে  এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই বছর রয়েল গ্রুপের পারিবারিক ব্যবসায়ের ৫৫তম বছর এবং ০৬ জানুয়ারী ২০১৯ তারিখটি এক্সেল টেকনোলজিস লিমিটেডের ২০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর দিন।

অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক গৌতম সাহা সাংবাদিকদের সামনে এক্সেল টেকনোলজিসের বিভিন্ন কর্মকৌশল এবং আগামীর পরিকল্পনা তুলে ধরেন।এ সময় তিনি বলেন, ‘গত ২০ বছর ধরে দেশের তথ্যপ্রযুক্তিতে অবদান রাখছে এক্সেল টেকনোলজিস।’ ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনিমার্ণে প্রতিষ্ঠানটি আগামীতে আগ্রণী ভূমিকা রাখবে বলেও তিনি আশাবাদী।

এক্সেল টেকনোলজিসের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা জানাতে গিয়ে  গৌতম সাহা বলেন, আমরা প্রযুক্তি সেবায় আরও একধাপ এগিয়ে যেতে চাই। কারণ এই সময় প্রযুক্তির ছোঁয়ায় আমুল বদলে গেছে। ভবিষ্যতে আসছে রোবটিকস এবং সফটওয়্যারের যুগ। তাই এখাতে এক্সেল টেকনোলজিস বিনিয়োগে আগ্রহী।

তিনি জানান, এক্সেল টেকনোলজিস লিমিটেড মূলত রয়েল গ্রুপের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। এই গ্রুপ দেশে কৃষির আধুনিকায়নে কাজ করছে।  রুয়েল গ্রুপ গত ৫৫ বছর ধরে এদেশে ব্যবসার মাধ্যমে মানুষকে সেবা করে আসছে।

“গ্রাহকই প্রথম” কৌশল হচ্ছে এক্সেল টেকনোলজিস লি.-এর মৌলিক মূল্যবোধ।দেশের সেবায় নিয়োজিত থাকতে প্রতিশ্রুত এবং এ জন্য উচ্চস্তরের দর্শন, নৈতিকমূল্যবোধ, সততাও ন্যায়পরায়ণতা বজায় রেখে এই কোম্পানী ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করছে।কোম্পানিটি গ্রাহকদের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে তাদেরকে সমন্বিতভাবে গুণগত মানসম্প পণ্য ও পরিষেবাদি পরিবেশন করায় সর্বদা সচেষ্ট রয়েছে। প্রযুক্তির দ্রুত বিকাশমানতার এই যুগে সময়ের আগে পদক্ষেপ গ্রহণ করা এবং যেকোনও ধরণের বিক্রয়োত্তর সহায়তাজনিত প্রযুক্তি খাত থেকে সর্বশেষ পণ্যসমূহ ও পরিষেবাদি গ্রাহকদের সন্তুষ্টি সাপেক্ষে পরিবেশন করার জন্য এক্সেল টেকনোলজিস লি.প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

অনুষ্ঠানে  এক্সেল টেকনোলজিসের  সহকারী পরিচালক বিরেন্দ্রনাথ অধিকারিসহ রয়েল গ্রুপ ও এক্সেল টেকনোলজিসের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

Excel-Technology-ltd-bd

ছবিতে: এক্সেল টেকনোলজিস লিমিটেড’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক গৌতম সাহা, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর বিরেন্দ্রনাথ অধিকারী ও চীফ অপারেটিং অফিসার মাসুদ হোসেন সহ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাগণ সহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন। 

 

সিনিউজভয়েস/জিডিটি৬ডি/১৯