শ্রীমঙ্গলে চতুর্থ বিডিনগ সম্মেলন শুরু

ঢাকাঃ শ্রীমঙ্গলের গ্রান্ড সুলতান রিসোর্টে গতকাল মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে চতুর্থ বিডিনগ সম্মেলন ও কর্মশালা।

প্রধান অতিথি হিসাবে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের এমিরেটাস প্রফেসর ড. মোঃ লুৎফর রহমান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) এর সভাপতি মোঃ আমিনুল হাকিম। বিডিনগ বোর্ড অফ ট্রাস্ট্রির চেয়ারম্যান সুমন আহমেদ সাবির এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োক্যামিকেল ফিজিক্স ও প্রযুক্তি বিভাগের প্রফেসর ড. খন্দকার সিদ্দীক-ই রব্বানী। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিডিনগের সভাপতি নুরুল ইসলাম রোমান এবং সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম।

বিডিনগের এ সম্মেলনে মোট ১৫ জন বক্তা তাদের গবেষনা ও প্রযুক্তি বিষয়ক ধারনা উপস্থাপন করেন।

তৃতীয় পর্বে ছিল অ্যাকাডেমিক অ্যান্ড অপারেশনাল রিসার্চ নেটওয়ার্ক বিষয় নিয়ে ধারণাপত্র উপস্থাপন। টিসফটআইটির তিতাস সরকার উপস্থাপন করেন বাংলায় নেটওয়ার্কিং স্বাদ, গ্রামীণফোনের ফয়সাল মোবারক ভোলটি: নিউ হরাইজন ফর ভয়েস রেভিনিউ, আইআইজির ইয়াশিবু মাটসুজাকি আরটিটি ম্যাটারস, বিডিকমের জিজেড কবির মাই এক্সপেরিয়েন্স ইন আইসিএএনএন৫৪ বিষয়ে গবেষণাপত্র উপস্থাপন করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন বিডিনগ বোর্ড অফ ট্রাস্ট্রির চেয়ারম্যান সুমন আহমেদ সাবির। তিনি জানান, এবারের আয়োজনে ১০০ জনেরও বেশি প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি অংশ নিচ্ছেন। বাংলাদেশের ইন্টারনেট পরিচালনা প্রযুক্তি বিষয়ক এই সম্মেলনে প্রকৌশলীদের মধ্যে জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা বিনিময়, বিভিন্ন অপারেশনাল রিসার্চ সম্পাদন, স্থানীয় আইসিটি ট্যালেন্টদের আন্তর্জাতিক পর্যায়ে প্রমোট করা এবং বাংলাদেশের জন্য বেটার ইন্টারনেটের ব্যবস্থা করতে সহায়তা করাই এই সম্মেলনের উদ্দেশ্য। আগামী চারদিনের প্রশিক্ষণে নিজেদের মধ্যে নলেজ শেয়ারিং করা হবে যাতে আরও সবাইকে উদ্বুদ্ধ করা যায়।

প্রফেসর ড. মোঃ লুৎফর রহমান বলেন, ১৯৯৫ সালের দিকে আমরা একটি কম্পিউটার নেটওয়ার্ক তৈরির কাজ শুরু করি। এর নাম ছিল বারনেট। ইউজিসির নেতৃত্বে আবার এটি ভিন্ন নামে যাত্রা শুরু করেছে। আমরা এখন টুজি থেকে ফোরজি, ফাইভ জির দিকে যাচ্ছি। আমরা কোনদিকে যাব তা জানিনা। সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ তৈরিতে কাজ করছে। কিন্তু আমরা ই-গর্ভন্যান্সসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে নিচের দিকে আছি। আশা করি আপনাদের সহযোগিতায় আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে পারব। এজন্য আমাদের ডিজিটাল ভিলেজের দিকে চোখ দিতে হবে।

তিনি বলেন, আমি এই সম্মেলনের ঘোষণা করার আগে সবাইকে বলতে চায়, এটি চমৎকার উদ্যোগ। দারুণ সব বিষয় নিয়ে কথা হচ্ছে।

বিডিনগ সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম বলেন, এ ধরনের সম্মেলনের মাধ্যমে দেশী-বিদেশী প্রকৌশলীদের এক সাথে কাজ করার সুযোগ তৈরি হয়, এতে আমাদের স্থানীয় প্রকৌশলীরা উচ্চতর জ্ঞান অর্জনের সুযোগ পান। তিনি জানান, দেশে এ ধরনের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে আমাদের দক্ষ জনশক্তি তৈরী হবে। এতে করে দেশের প্রযুক্তি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো উপকৃত হবে।

সম্মেলন ও চার দিন টেকনিক্যাল কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। কর্মশালায় টেলিকম ও আইএসপি প্রকৌশলীদের জন্য মাল্টি প্রটোকল লেভেল সুইচিং (এমপিএলএস) টেকনোলজি এবং ক্লাউড কম্পিউটিং ও লিনাক্স শেল প্রোগ্রামিং বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। সম্মেলন চলবে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত।

সিনিউজভয়েস/ডেক্স

Please Share This Post.