শুরু হয়েছে “জাতীয় ডেমো ডে” শেষ হবে ২৫ মে

সরকারি, আঞ্চলিক ও আন্তজাতিক সংস্থার যৌথ আয়োজনে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাক্সেস টু ইনফরমেশন প্রকল্প, থাইল্যান্ড ভিত্তিক প্রযুক্তি সম্মেলন টেকসাউস গ্লোবাল সামিট এবং সিলিকন ভিত্তিক পরিবহন সমাধান উবার এবার যুক্ত হয়েছে তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ ও বেটার স্টোরিজের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ স্টার্টআপ সম্মাননা ও উদ্যোক্তাদের জন্য জাতীয় পর্যায়ের ‘ডেমো ডে’।

ইতোপুর্বে, মুঠোফোন সেবা প্রতিষ্ঠান গ্রামীনফোনের উদ্যোক্তা শিখন সমাধান জিপি অ্যাকসেলেরেটর ও বাংলাদেশের যৌথ বিনিয়োগ প্রতিষ্ঠানদের সংগঠন ভেঞ্চার ক্যাপিটাল অ্যান্ড প্রাইভেট ইক্যুইটি অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ভিসিপিইএবি)এই আয়োজনের সাথে সংযুক্ত হয়েছে।

এই উদ্যোগের সাথে দেশী বিদেশী প্রতিষ্ঠানের সম্পৃক্ততা উল্লেখ করে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক জানান, প্রযুক্তির আসন্ন গন্তব্যস্থল হিসেবে বাংলাদেশ ইতোমধ্যে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে পরিচিতি লাভ করেছে। এটুআই, উবার, টেকসাউসের মত আন্তর্জাতিক সম্মেলনের সংযোগ আমাদের জাতীয় ডেমো ডেকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নিত করবে।
এটুআই প্রকল্প পরিচালক ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক কবির বিন আনোয়ার বলেন, বাংলাদেশে ক্রমবর্ধমান প্রযুক্তি উদ্ভাবনের এই সময়ে প্রথমবারের মত অনুষ্ঠিত জাতীয় ডেমো ডে আয়োজনের সাথে থাকতে পেরে আমরা এটুআই পরিবার আনন্দিত। আশা করবো দেশী বিদেশী নবীন উদ্যোগের এই সম্মিলনে দেশীয় উদ্যোক্তারা দেশী বিদেশী বিনিয়োগকারিদের সাথে পরিচয়ের সুযোগ পাবেন যা দেশের মধ্যে উদ্যোক্তাদের জন্য একটি ‘সহায়ক ব্যবস্থা’ উন্নয়নে অবদান রাখবে।

প্রযুক্তিভিত্তিক পরিবহন সমাধান উবারের দক্ষিন এশিয়া অঞ্চলের গণ-নীতি বিভাগের প্রধান শ্বেতা রাজপাল কোলি বলেন,বাংলাদেশের আইসিটি বিভাগ,বেটার স্টোরিজ ও এটুআইয়ের সাথে স্টার্টআপ ইকো সিস্টেমের অংশ হয়ে আমরা আনন্দিত। বাংলাদেশ স্টার্ট আপ সম্মাননা ও ১৮০ দিনের উদ্যোক্তা খোজার আয়োজন সত্যিই প্রশংসনীয়। আশাকরি এই নবীন উদ্যোক্তারাই আগামীর প্রযুক্তিভিত্তিক বাংলাদেশ বিনির্মানে মুখ্য ভুমিকা রাখবে।

টেকসাউস গ্লোবাল কনফারেন্সের সহ-প্রতিষ্ঠাতা অমারিত চারোইফান বলেন বাংলাদেশ স্টার্ট আপ কাপের বিজয়ীকে আমাদের আগামী সম্মেলনের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে পরিচয় করাতে আমাদের বিশেষভাবে প্রচেষ্টা থাকবে।
বেটার স্টোরিজের পরিচালক সেলিমা এলেন হোসেন বলেন,দেশের নবীন উদ্যোগকে এগিয়ে নেয়ার এই প্রচেষ্টায় যুক্ত সকল অংশী প্রতিষ্ঠান ও সংশ্লিষ্ট সকলের যৌথ প্রয়াসে দেশে একটি ‘উদ্যোগ-বান্ধব’ পরিবেশ তৈরী হবে যা আগামীর বাংলাদেশকে আলোকিত করবে।

নির্বাচিত উদ্যোক্তাগণ আগামী ২২-২৪ মে গ্রামীনফোনের প্রধান কার্যালয়ে প্রশিক্ষনের সুযোগ পাবেন এবং দ্বিতীয় দিন ২৩ মে দেশী বিদেশী বিনিয়োগকারিদের সামনে প্রকল্প উপস্থাপনের সুযোগ পাবেন। এবছর ভারত, চীন, সিঙ্গাপুর, জাপান, দক্ষিন কোরিয়া,নেদারল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে বিনিয়োগকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের উপস্থিতির ব্যপারে আশাবাদী আয়োজকরা। ২৪ মে বিনিয়োগকারীরা নির্বাচিত উদ্যোক্তাদের সাথে পারস্পরিক বৈঠকে বসবেন। চূড়ান্ত আয়োজন হিসেবে ২৫ মে জাতীয় ডেমো ডেতে বিজয়ী উদ্যোক্তারা উপস্থাপনের মাধ্যমে জাতীয় পুরস্কারের লড়াই করবেন। পাশাপাশি দেশব্যাপী উদ্যোক্তা খোজার আয়োজনের অংশ হিসেবে ১০ নবীন উদ্যোগকে সম্মাননা জানানো হবে সমাপনী আয়োজনে।

-সিনিউজভয়েস ডেক্স

Please Share This Post.