শিক্ষায় ডিজিটাল ব্যবস্থার চর্চা এনেছে রবি-টেন মিনিট স্কুল

অবকাঠামো ও দক্ষ মানবসম্পদের অভাবে দেশের প্রতিটি প্রান্তে মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করার চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় রবি’র টেন মিনিট স্কুল তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

তীব্র প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে কাজ করছে শীর্ষস্থানীয় মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেড। এতে তাদের সহযোগী অনলাইন শিক্ষা প্লাটফর্ম টেন মিনিট স্কুল।

টেন মিনিট স্কুল মূলত জেএসসি, এসএসসি, এইচএসসি, বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তিচ্ছু এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের একটি সামগ্রিক অনলাইন শিক্ষা সেবা প্রদান করে।

এই প্লাটফরমের সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিক হচ্ছে এটি বিনা মূল্যে ব্যবহার করা যায়। রবি’র কর্পোরেট দায়বদ্ধতা (সিআর) কার্যক্রমের আওতায় ‘টেন মিনিট স্কুল’ অপারেটরটিকে সমাজে একটি ডিজিটাল প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

দেশজুড়ে ছড়িয়ে দেয়া রবি’র ইন্টারনেট সংযোগের কল্যাণে শিক্ষার্থীরা সহজেই টেন মিনিট স্কুলের সেবা গ্রহণ করতে পারছেন। ফলে প্রত্যন্ত এলাকায় অভিজ্ঞ শিক্ষকের অভাব পূরণ করছে এই প্লাটফরমটি। শিক্ষার্থীদের দোরগোড়ায় নিজেদের প্রয়োজন অনুযায়ী মানস্পন্ন শিক্ষা পৌঁছে দিচ্ছে টেন মিনিট স্কুল।

বর্তমানে শিক্ষার্থীরা শহর কিংবা গ্রামে যেখানেই থাকুক প্রত্যেকেই মানসম্পন্ন শিক্ষা গ্রহণ করতে পারবেন, যা দেশে শিক্ষার মানোন্নয়নে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে প্রত্যাশা রবির। রবি বিশ্বাস করে, এই প্লাটফরমটি শিক্ষার্থীদের পাঠ্যপুস্তকের বাইরের পাঠ্যাভ্যাসকে আরো সুসংহত করবে।

রবি ইতোমধ্যে গত কয়েক মাসে ঢাকার কয়েকটি কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে এই প্লাটফরম পৌঁছে দিয়েছে। টেন মিনিট স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে যৌথ উদ্যোগে রাজউক উত্তরা মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, আর্মি আইবিএ, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, ইস্ট-ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি ও ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীদের প্লাটফরমটি সম্পর্কে ধারণা দিয়েছে রবি। সেশনগুলোতে শিক্ষার্থীরা কুইজ, বিভিন্ন পরীক্ষা ও পেশা পরিকল্পনার ওপর প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নিয়েছেন। বছরজুড়ে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ ধরনের সেশন পরিচালনার পরিকল্পনা রয়েছে রবির।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.