রায়ের পর ফেসবুকে প্রতিক্রিয়া

দুর্নীতির মামলায় বিচারিক আদালতে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছো বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে। রায়ের পর ফেসবুকে আলোচনা সমালোচনা ঝড় বয়ে চলছে।

সাধারন ফেসবুক ব্যবহারকারী, লেখক, কলামিস্ট, সাংবাদিকসহ সকল স্তরের মানুষ বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া জানান। রায়ের পর বিশ্ব গণমাধ্যমেও এই খবর প্রচারিত হয়ে যায়।

এই রায়ের পক্ষে অনেকে অবস্থান নেয় আবার অনেকে বিপক্ষে অবস্থান নিচ্ছে।

প্রোকৌশলী লেখক কল্লোল মোস্তফা লেখেছেন, ঐকিক নিয়মের অংক: ২ কোটি টাকার দুর্নীতির অপরাধে ৫ বছরের কারাদন্ড হলে, সোনালি-বেসিক-ফার্মাস-জনতা ব্যাংকের হাজার হাজার কোটি টাকার দুর্নীতির অপরাধীদের কত বছর কারাদন্ড হতে পারে?

লেখক কলামিস্ট আলতাফ পারভেজ তার স্ট্যাটাসে লিখেছেন, ইতিহাসে রাজনীতিবিদদের ভাগ্য শেষতক জনতার আদালতেই নিষ্পত্তি হয়েছে।

সাব্বির রহমান তানিম লিখেছেন, যাক বিএনপি তাহলে পুরাপুরি মরে নাই! তবে এটাই ওদের সবচাইতে বড় ব্যার্থতা। দেশের স্বার্থের চাইতে ম্যাডাম ইস্যুতেই ওরা বেশী সোচ্চার…. আজকের আগে এই সরকারের আমলে একবারই বিএনপি ইস্স্যু ভিত্তিক মাঠ গরম করেছিলো যখন খালেদাকে ক্যান্টনমেন্টের বাড়ী ছাড়তে বলা হয়।

সাংবাদিক খালেদ সাইফুল্যাহ লিখেছেন, ২ কোটি টাকার সাজা যদি হয় ৫/১০ বছর হাজার হাজার কোটি টাকার সাজা কত বছর হবে?

ফেসবুকে বাবা মনি লিখেছেন, যারা বলছেন রাজনীতিতে শেষ কথা বলে কিছু নাই, তাদের জ্ঞাতার্থে বলি, নষ্ট খেলাই সুস্থ রাজনীতির শেষ অধ্যায়, যার পরিণতি বরাবরই ভয়ঙ্কর।

মোহাম্মদ ইমরান উদ্দিন লেখেছেন, ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা ক্ষমতার অপব্যহার করে দুর্নীতির মাধ্যমে আত্মসাৎ করায় বেগম খালেদা জিয়ার বিচার হয়েছে খুব ভাল। এখন হলমার্ক কেলেঙ্কারিতে ৪০০০ হাজার কোটি টাকা, বাংলাদেশ ব্যাংক রিজার্ভ থেকে ৮০৮ কোটি টাকা চুরি, বেসিক ব্যাংক এর ২ হাজার ৩৬ কোটি ৬৫ লাখ টাকার আত্মসাৎ এর বিচার কখন হবে জাতি জানতে চাই।

সাংবাদিক বাণী ইয়াসমিন হাসি ফেসবুকে লিখেছেন, অভিযোগ এবং প্রমাণিত সত্য- দুইটা কিন্তু আলাদা ব্যাপার। এখানে টাকার পরিমাণটা ইস্যু না, ইস্যু হলো একজন সিটিং প্রধানমন্ত্রীর নৈতিক স্খলন। হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যাংক লোপাটের যে অভিযোগ, এবার তাদেরকেও বিচারের আওতায় আনা হোক।

সিনিউজভয়েস//তুষার/

Please Share This Post.