‘রবি-এয়ারটেল’ একীভূতের লাইসেন্স পেলো রবি

মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেডের হাতে গত শনিবার, জুলাই ২৯, ২০১৭ আনুষ্ঠানিকভাবে রবি-এয়ারটেল একীভূত কোম্পানির লাইসেন্স তুলে দেন বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ। এসময় ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, এমপি উপস্থিত ছিলেন। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে লাইসেন্স প্রদানের এ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের সবচেয়ে বড় একীভূতকণের ঘটনাটি টেলিযোগাযোগ খাতে হয়েছে বলে আমরা আনন্দিত। একীভূতকরণ প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সুশাসনেরই প্রতিচ্ছবি। আমাদের বিশ্বাস, একীভূত কোম্পানি রবি আরো বিনিয়োগের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশের রূপকল্প বাস্তায়নে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। একীভূতকরণের ক্ষেত্রে গ্রাহক ও অপারেটর উভয়ের স্বার্থ রক্ষা করতে পেরেছি বলে আমরা আনন্দিত এবং এর ফলে বাজারে একটি সুষ্ঠু প্রতিযোগিতার পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে আমরা বর্তমান ও সম্ভাব্য বিনিয়োগকারীদের কাছে এ বার্তা পৌঁছে দিতে পেরেছি যে, বাংলাদেশ তাদের বিনিয়োগের সঠিক ঠিকানা।

বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, দেশের সবচেয়ে বড় একীভূতকরণ সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য রবি পরিবারকে আমি ধন্যবাদ জানাই। একীভূতকরণের পুরো প্রক্রিয়াজুড়ে আন্তরিক সহযোগিতা করার জন্য আমাদের পক্ষ থেকে রবি ম্যানেজমেন্টকে ধন্যবাদ। আমি বিশ্বাস করি, একীভূতকরণের ফলে সুষ্ঠু প্রতিযোগিতার সৃষ্টি হয়েছে যা মানসম্মত টেলিযোগাযোগ সেবা নিশ্চিত করবে।

একীভূত কোম্পানির লাইসেন্স হাতে পাওয়ার পর রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, রবি’র লক্ষ্য পরবর্তী প্রজন্মের ডিজিটাল কোম্পানিতে রূপান্তরিত হওয়া। এয়ারটেলের সাথে সফলভাবে একীভূত হওয়ার পর আমাদের সে প্রত্যয় আরো দৃঢ় হয়েছে। গ্রাহককেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমাদের নেটওয়ার্কের আওতায় একই সাথে রবি ও এয়ারটেল উভয় গ্রাহকদের সেবা দেয়ার সুযোগ পেয়ে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। রবি-এয়ারটেল নেটওয়ার্ক সমন্বয়ের ফলে অন-নেট কল সুবিধা এবং এয়ারটেল গ্রাহকদের বিস্তৃত নেটওয়াকর্কের আওতায় আনতে পারায় আমরা ইতোমধ্যে গ্রাহকদের মন জয় করেছি। টেলিযোগাযোগ খাতের প্রথম এবং দেশের ইতিহাসে বৃহত্তম একীভূতকরণের সুযোগ দেয়ার জন্য আমরা সরকারকে ধন্যবাদ জানাই।

অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সেক্রেটারি-ইন-চার্জ, এডিশনাল সেক্রেটারি সাইফুল ইসলাম এবং বিটিআরসি’র ভাইস চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আহসান হাবিব খান, অবঃসহ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের পদস্থ’ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উচ্ছ আদালতের অনুমোদনের ভিত্তিতে ২০১৬ সালের ১৬ নভেম্বর থেকে রবি আজিয়াটা লিমিটেড (রবি) ও এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড (এয়ারটেল) একীভূত কোম্পানি রবি হিসেবে এর বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে। রবি’র একটি স্বাধীন ব্র্যান্ড হিসাবে কার্যক্রম পরিচালনা করছে এয়ারটেল।

রবি’র ব্র্যান্ড এয়ারটেল সম্পর্কে:
ভারতী এন্টারপ্রাইজের একটি আর্ন্তজাতিক ব্র্যান্ড ‘এয়ারটেল’ গ্রাহক সংখ্যার দিক থেকে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মোবাইল ফোন অপারেটর। ২০১৬ সালের ২৮ জানুয়ারি মালয়শিয়ার আজিয়াটা গ্রুপ ও ভারতের ভারতী এন্টারপ্রাইজ বাংলাদেশে পরিচালিত তাদের কার্যক্রম একীভূতকরণের বিষয়ে একমত হয়। এরপর মাননীয় উচ্ছ আদালতের সম্মতিক্রমে একীভূত কোম্পানি হিসাবে ১৬ নভেম্বর, ২০১৬ হতে বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু করে রবি। রবি-এয়ারটেল একীভূতকরণের অংশ হিসেবে এয়ারটেল’কে তার একটি ব্যান্ড হিসেবে পরিচালিত করার অনুমোদন পেয়েছে রবি, ০১৬ নম্বর সিরিজ ব্যবহারকারী গ্রাহকরা এয়ারটেল ব্র্যান্ডের অন্তর্ভূক্ত।

-সিনিউজভয়েস

Please Share This Post.