রবিবার জাতীয় হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব

বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে দ্বিতীয়বারের মত দেশব্যাপী ১৬টি অঞ্চলে অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০১৬-এর আঞ্চলিক পর্ব। এই ১৬টি আঞ্চলিক প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের নিয়ে আগামী ২৪ এপ্রিল রাজধানীর ফার্মগেটের খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০১৬-এর চূড়ান্ত পর্ব। এতে আঞ্চলিক পর্যায়ের কুইজ প্রতিযোগিতার বিজয়ী ৯৬৮ জন এবং প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার বিজয়ী ৩১৩ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে।

এই প্রতিযোগিতা সম্পর্কে বিস্তারিত জানানোর জন্য বৃহস্পতিবার  আইসিটি ডিভিশনের সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন  তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক এমপি। এ সময় তিনি বলেন, ‘বিশ্ব জয় করার তো প্রযুক্তি বাংলাদেশ থেকে তৈরি হবে। সেই স্বপ্ন নিয়ে আমরা হাই স্কুল পর্যায়ের প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা শুরু করেছি। ইতিমধ্যে আমরা বেশ কিছু মেধাবী শিক্ষার্থীর মাধ্যমে সাফল্য পাওয়া শুরু করছি। আশা করি আগামী দিনগুলোতে আন্তজার্তিক পর্যান্ত সেই সাফ্যলের ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘সারা দেশ তথ্য-প্রযুক্তি বিভাগ থেকে স্কুল পর্যায় আইসিটি ক্লাব তৈরি করা হবে। বাংলাদেশের নতুন প্রজম্মের হাত ধরে রচিত হচ্ছে ডিজিটাল বাংলাদেশের মহাকাব্য। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রেী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশের কাতারে নিজেদের নিয়ে যাওয়ার জন্য আমরা সবাই মিলে কাজ করছি। ২০২১ সাল নাগাদ তোমরা যখন এই দেশের যুব সমাজের নেতৃত্বে থাকবে তখন বিশ্বজুড়ে আরও বিকশিত হবে তথ্যপ্রযুক্তি। আর তাইতো আমরা চাই নতুন প্রজম্মের প্রত্যেকেই হয়ে উঠুক ডিজিটাল বাংলাদেশের এক একজন ডিজিটাল সৈনিক।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আইসিটি বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার । এ সময় তিনি বলেন, ‘আইসিটি বিভাগ থেকে সারা দেশে শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রযুক্তির আলো পৌছে দেওয়ার জন্য আমাদের এ আয়োজন। শিক্ষার্থীদের কাছে প্রযুক্তির আলো পৌছে দিতে পারলেই দেশ আলোতিক হবে।’
সংবাদ সম্মেললে উপস্থিত ছিলেন রবি আজিয়াটা লিমিটেডের কমিউনিকেশন্স অ্যান্ড কর্পোরেট রেসপনসিবিলিটি বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট ইকরাম কবির। তিনি বলেন, ‘রবির সব সময় ভালো কাজের সঙ্গে থাকার চেষ্টা করে। জাতীয় প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা সেই ধারাবাহিকতারেই অংশ। আমরা তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর মেধাবী প্রজম্মের সঙ্গে সবসময় ছিলাম এবং আগামীতেও বিভিন্ন ভাবে যুক্ত থাকতে চাই।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আন্তজার্তিক প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার বিচারক মোহাম্মদ মাহমুদুর রহমানসহ অনেকে। সংবাদ সম্মেলন পরিচালনা করেন বাংলাদেশ ওপেন র্সোস নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান।  এ সময় তিনি আয়োজন সম্পর্কে বিস্তাারিত তুলে ধরেন। তিনি জানান, আগামী ২৪ এপ্রিল রাজধানীর ফার্মগেটের খামারবাড়ির কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ২০১৬-এর চূড়ান্ত পর্ব। সকাল ৮টায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি উদ্বোধন করবেন। এছাড়া আরও উপস্থিত থাকবেন শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মুহম্মাদ জাফর ইকবাল, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট)  অধ্যাপক ড. মোহম্মদ কায়কোবাদ। জাতীয় পর্যায়ের এই প্রতিযোগিতায় আঞ্চলিক পর্যায়ের কুইজ পর্বে বিজয়ী ৯৬৮ জন এবং প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় বিজয়ী ৩১৩ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। একই দিন দুপুর ২টায় সমাপণী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শেষ হবে এবারের আয়োজন।

উল্লেখ্য, এই আয়োজনের আওতায় ৬৪টি জেলায় ৭০০ হাই স্কুলের ২ লাখের বেশী শিক্ষাথীদের মাঝে প্রচারণামূলক অ্যাক্টিভেশন কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। অন্যদিকে ১৬টি আঞ্চলিক প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় প্রায় ১৮ হাজারের বেশী শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। এছাড়া মেন্টরস ট্রেনিং, অনলাইন মেন্টরশীপ ও ফোরাম পরিচালনা করা হয়।

আঞ্চলিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে- রংপুর, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, চট্টগ্রাম, বরিশাল, ঢাকা, গোপালগঞ্জ, দিনাজপুর, পাবনা, পটুয়াখালী, টাঙ্গাইল, নোয়াখালী, কুমিল্লা, যশোর ও ময়মনসিং এই ১৬টি অঞ্চলে।

জাতীয় হাই স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতার আয়োজনে রয়েছে আইসিটি ডিভিশন, প্রধান পৃষ্ঠপোষক হিসেবে রয়েছে রবি আজিয়াটা লিমিটেড, বাস্তবায়ন সহযোগিতায় বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক , একাডেমিক সহযোগিতায় কোডমার্শাল,  পার্টনার হিসেবে আছে-কিশোর আলো, এটিএন নিউজ, বাংলাদেশ আইসিটি জার্নালিস্ট ফোরাম (বিআইজেএফ)।

সিনিউজভয়েস/ডেক্স

Please Share This Post.