যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে মাইক্রোসফট ইমাজিন কাপে বাংলাদেশ দল

মর্যাদাপূর্ণ মাইক্রোসফট ইমাজিন কাপের দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক ফাইনালে বিজয়ী হয়ে বৈশ্বিক চূড়ান্ত আসরে মনোনীত হওয়ার পাশাপাশি সবচেয়ে জনপ্রিয় দলের পুরস্কার জিতেছে বাংলাদেশের টিম প্যারাসিটিকা। দলটি এখন আসন্ন জুলাইয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলে অনুষ্ঠিতব্য ইমাজিন কাপের বৈশ্বিক চূড়ান্ত আসরে প্রতিযোগিতা করবে।

আঞ্চলিক পর্বের অনলাইন ভোটিং পর্যায়ে ‘প্রযুক্তির মাধ্যমে বৈশ্বিক সমস্যার সমাধান’ ইমাজিন কাপের এ প্রতিপাদ্য নিয়ে টিম প্যারাসিটিকার মেডিকেল ডায়াগনোস্টিক অ্যাপ ফাস্টনোসিস সবার পছন্দের অ্যাপ হিসেবে নির্বাচিত হয়। ফাস্টনোসিস কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) ব্যবহার করে রোগ নির্ণয়ে উন্নতি ঘটাবে। এ অ্যাপের মাধ্যমে যক্ষ্মা, ম্যালেরিয়া ও অন্ত্রের রোগ সংক্রমণ শনাক্ত করতে পারবে। টিম প্যারাসিটিকার তরুণ প্রযুক্তিবিদদের দলে রয়েছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী তৌহিদুল ইসলাম, সৈয়দ নাকিব হোসেন ও ফজলে রাব্বি রাহাত।

মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির বলেন, ‘বাংলাদেশের টিম প্যারাসিটিকা আবারও প্রমাণ করেছে আমাদের তরুণরা সুযোগ পেলে তাদের সম্ভাবনা রয়েছে যেকোনো বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্মে সফলতা অর্জনের। মাইক্রোসফট সে সম্ভাবনা অনুধাবন করতে পেরে বাংলাদেশের এসব লুকানো মেধাবীদের খুঁজে পেতে ও তাদের পরিচর্যা করতে দেশকে সহায়তা করতে কাজ করে যাচ্ছে।’

ম্যানিলাতে দলের সাথে যাওয়া যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আসাদুল ইসলাম বলেন, ‘ইমাজিন কাপের অভিজ্ঞতা শুধুমাত্র টিম প্যারাসিটিকার জন্যই নয়, অংশগ্রহণকারী দলগুলোর জন্য একটি অসাধারণ পথচলা হিসেবে থাকবে। বাংলাদেশের তরুণদের সফলতাকে ভবিষ্যতের জন্য গড়ে তুলতে হবে। আমি মাইক্রোসফটকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি অভিনব এ সুযোগ দেবার জন্য এবং এ ধরনের প্রচেষ্টার সার্বিক সাফল্য কামনা করছি।’
বৈশ্বিক চূড়ান্ত আসরে সারাবিশ্বের শিক্ষার্থীদের ৫০টি দলের বিপক্ষে নিজেদের সেরা প্রমাণে লড়াই করবে টিম প্যারাসিটিকা। অংশগ্রহণকারী দলগুলো নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতা করবে প্রতিযোগিতার সেরা পুরস্কার এক লাখ মার্কিন ডলার, মাইক্রোসফটের প্রধান নির্বাহী সত্য নাদেলার সরাসরি প্রশিক্ষণের সুযোগ এবং এর পাশাপাশি, বিজয়ী সেবার বাজার সম্প্রসারণে আজুরের আর্থিক সহায়তা জিতে নিতে।

২০০৩ সাল থেকে অনুষ্ঠিত হওয়া মাইক্রোসফট ইমাজিন কাপকে বলা হয় ‘অলিম্পিক অব টেকনোলজি’। তরুণদের জন্য এটি বিশ্বের শীর্স্থানীয় প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিযোগিতা। ইমাজিন কাপের সকল অংশগ্রহণকারী ইমাজিন কাপের প্রতিপাদ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে বিশ্বের সবচেয়ে কঠিন সমস্যার সমাধান নিয়ে প্রতিযোগিতার প্রকল্প তৈরি করে।

ইমাজিন কাপ নিয়ে বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন: https://www.imaginecup.com/

-সিনিউজভয়েসডেক্স