মেলায় তিন শতাধিক শিশুর অংশগ্রহণে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

দেশের অন্যতম বৃহত্তম কম্পিউটার মার্কেট রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের কম্পিউটার সিটি সেন্টার (মাল্টিপ্ল্যান)। সব শ্রেণির মানুষের মাঝে কম্পিউটার ও তথ্যপ্রযুক্তির ব্যাপক ব্যবহার এবং এর সুফল ছড়িয়ে দিয়ে, বহুল প্রত্যাশিত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে রাজধানীতে চলছে ‘ডিজিটাল আইসিটি ফেয়ার-২০১৮’ এই আয়োজন ।

মেলা উপলক্ষে চতুর্থ দিনে আজ তিনটি বিভাগে তিন শতাধিক শিশুর অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হলো চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা।

এই প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে কম্পিউটার সিটি সেন্টার দোকান মালিক সমিতির সভাপতি ও মেলার আহ্বায়ক তৌফিক এহ্সোন এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ও বিচারক হিসেবে ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউট এর অধ্যাপক শিশির ভট্টাচার্য এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চারুকলা ইনস্টিটিউট এর সাবেক ডীন অধ্যাপক ড. আবুল বার্ক অালভী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন নিউ মার্কেট থানা আওয়ামী লীগ এর সাধারন সম্পাদক মো. হানিফ মিয়া।

 

‘ক’ বিভাগে চিত্রাঙ্কনের বিষয় ছিলো ‘বাংলাদেশ’। এই বিভাগে প্রথম হয়েছে সুয়াইদ তাজওয়ার, দ্বিতীয় হয়েছে ইরফান আহমেদ, তৃতীয় হয়েছে আরাশ রহমান।

‘খ’ বিভাগে চিত্রাঙ্কনের বিষয় ছিলো ‘অমর একুশ’। এই বিভাগে প্রথম হয়েছে তানিসা অাফরিন, দ্বিতীয় হয়েছে ফাতিমা পারিযদা এবং তৃতীয় হয়েছে ইসমাম আহামেদ।

‘গ’ বিভাগে চিত্রাঙ্কনের বিষয় ছিলো ‘জিডিটাল শিক্ষা’ । এই বিভাগে প্রথম হয়েছে আফরিদা ফারহানা খান, দ্বিতীয় হয়েছে নবীনতা হালদার, তৃতীয় হয়েছেন নুসরাত জাহান নুহা, চতুর্থ হয়েছেন জয়া সরকার এবং পঞ্চম আরমান ভূইয়া অর্ক।

মেলার আহ্বায়ক তৌফিক এহ্সোন বলেন, ‘আমরা প্রতিবছরের মত মেলার অংশ হিসেবে এইবারও শিশুদের জন্য চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছি। এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের ফলে শিশুদের মেধা বিকাশে বিশেষ ভূমিকা রাখবে। আগামী আইসিটি মেলাতেও এই প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা রাখা হবে। অন্যদিকে মেলাতেও ব্যাপক বেচাকেনা হচ্ছে এবং ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি।’

মেলায় নামি-দামি ব্র্যান্ডের অংশগ্রহণ, সিকিউরিটি সিস্টেম ও আধুনিক প্রযুক্তি পণ্যের প্রদর্শনীসহ রয়েছে নানা আয়োজন।

মেলার প্ল্যাটিনাম স্পন্সর হল এসার, ডেল, এইচপি, লজিটেক, এক্সট্রিম। গোল্ড স্পন্সর হল আসুস, এফোরটেক, লেনেভো। সিলভার স্পন্সর হল টিপি-লিংক, ডি-লিংক, ইউসিসি। স্পন্সর টেন্ডা এবং গেমিং পাটনার গিগাবাইট। মেলায় বিশ্বের অত্যাধুনিক প্রযুক্তি পণ্যসমূহ সুলভ মূল্যে পাওয়া যাবে।

ডিজিটাল আইসিটি মেলায় বিশেষ আয়োজন হিসেবে থাকছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, গেমিং জোন এবং আকর্ষণীয় নানা আয়োজন। এছাড়াও মেলা চলাকালীন প্রবেশ টিকেটের উপর র‌্যাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

মেলার প্রবেশ টিকেটের মূল্য রাখা হয়েছে দশ টাকা মাত্র। ছাত্র-ছাত্রী ও সাংবাদিকদের জন্য মেলায় প্রবেশ উন্মুক্ত রাখা হয়েছে।

সিনিউজভয়েস//ডেস্ক

Please Share This Post.