মুক্তপাঠে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা’ বিষয়ক অনলাইন কোর্সের উদ্বোধন

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সি (ডিএসএ) এবং এটুআই-এর যৌথ উদ্যোগে ০৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাজধানীর আইসিটি টাওয়ারের বিসিসি সম্মেলন কক্ষে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা’ বিষয়ক অনলাইন কোর্সের উদ্বোধন করা হয়েছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উক্ত অনলাইন কোর্সের উদ্বোধন করেন এবং এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মূখ্য সমন্বয়ক মো: আবুল কালাম আজাদ।

অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব এন এম জিয়াউল আলম। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্যানেল আলোচনা সঞ্চালনা করেন এটুআই-এর পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরী।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, সাইবার হামলা থেকে রক্ষা পেতে সচেতনতা ও সক্ষমতা তৈরির কোন বিকল্প নেই। তিনি বলেন, এ ধরনের সক্ষমতা অর্জনে সরকারি-বেসরকারি খাত, ইন্ডাস্ট্রি এবং একাডেমিয়া এক সাথে কাজ করতে হবে। পাশাপাশি ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ করতে হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন। সাইবার হামলার মাধ্যমে একটি রাষ্ট্রের বড় ধরনের ক্ষতি করা সম্ভব উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, পুরো দেশ যেখানে ডিজিটাল হচ্ছে সেখানে ঝুঁকিও থাকবে। তবে সেই ঝুঁকি মোকাবেলায় রাষ্ট্র, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি পর্যায়ে কার্যকর ভূমিকা পালন করা আবশ্যক।

সরকারি কর্মকর্তারা এখনো দাপ্তরিক কাজে শতভাগ অফিসিয়াল ই-মেইল ঠিকানা ব্যবহার করছেন না উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) থেকে সকল কর্মকর্তাকে একটি সরকারি ই-মেইল এড্রেস দেওয়া হয়, যার শেষে ডট গভ ডট বিডি রয়েছে। তিনি বলেন, সরকারি কর্মকর্তাদের সরকারি ই-মেইল ব্যবহার উচিত। কারণ একজন ব্যক্তির কারণে পুরো দেশ সাইবার ঝুঁকিতে পড়তে পারে না। সরকারি কর্মকর্তাদের সরকার প্রদত্ত ইমেইল ব্যবহার বিষয়ে আইন তৈরি করা হচ্ছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সরকার ইতোমধ্যে একটি সরকারি ইমেইল নীতিমালা ২০১৮ প্রণয়ন করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ বলেন, সরকারি প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে অন্তত একটি অনলাইন কোর্স দেওয়ার কথা। এ লক্ষ্যে সরকার সকল ধরনের সহযোগিতা প্রদানে প্রস্তুত। পর্যায়ক্রমে কোর্সগুলোকে অনলাইনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এছাড়া মুক্তপাঠের মাধ্যমে বিভিন্ন কনটেন্ট অনলাইনে প্রদান করা যেতে পারে, এতে অল্প সময়ে অনেককে প্রশিক্ষণ দেওয়া সম্ভব।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের নির্দেশক্রমে আইসিটি’র নিরাপদ ব্যবহার নিশ্চিত করতে এবং সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের মধ্যে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা’ বিষয়ক সচেতনতা তৈরি করতে একটি অনলাইন কোর্স তৈরি করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট ১৭টি সরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের মতামত ও পরামর্শের ভিত্তিতে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা’ বিষয়ক কোর্সটিতে ৮টি মডিউল, ২৩টি ভিডিও লেসন, ১৬ টি হ্যান্ড-আউট এবং চূড়ান্ত পরীক্ষা রয়েছে। যা সম্পন্ন করতে একজন অংশগ্রহণকারীর প্রায় ৪ ঘন্টা (সর্বোচ্চ ১ সপ্তাহ পর্যন্ত) সময় লাগতে পারে। সফলভাবে কোর্স সম্পন্ন করলে পাওয়া যাবে সার্টিফিকেট। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, ইউএসএইড এবং ইউএনডিপি সহায়তায় পরিচালিত এটুআই-এর ই-লার্নিং প্লাটফর্ম- ‘মুক্তপাঠ’ (www.muktopaath.gov.bd) এর মাধ্যমে কোর্সটি অনলাইন এবং মোবাইল অ্যাপ (গুগল প্লে স্টোর) ব্যবহার করে অংশগ্রহণ করা যাবে। এর মাধ্যমে স্বল্পতম সময়ে অল্প খরচে অধিক সংখ্যক কর্মকর্তাকে এই বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান সম্ভব হবে।

কোর্সটির মাধ্যমে নিরাপদে কম্পিউটার ও ইন্টারনেট ব্যবহার ও ইলেক্ট্রনিক যোগাযোগের গোপনীয়তা, জবাবদিহিতা ও কার্যকারিতা সম্পর্কে সরকারি কর্মকর্তাদের ডিজিটাল নিরাপত্তার সম্পর্কে সুস্পষ্ট সচেতন করা সম্ভব। ডিজিটাল নিরাপত্তা বিষয়ক সচেতনতা না থাকলে খুব সহজেই ইন্টারনেটে ছড়িয়ে থাকা বিভিন্ন ধরনের ভাইরাস, ম্যালওয়্যার বা অন্যান্য ক্ষতিকর প্রোগ্রাম ব্যবহারকারীর অগোচরে তার কম্পিউটার এ অনুপ্রবেশ করে কম্পিউটার এর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিতে পারে আবার অগোচরে অন্যের কাছে চলে যেতে পারে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য।

-সিনিউজভয়েস/ডেক্স/০৯সেপ্টেম্বর/১৯

Please Share This Post.