মাস্ক পরিহিত ব্যক্তির ফেস শনাক্তে জেডকেটেকোর ফেসিয়াল রিকগনিশন টার্মিনাল বাজারে

কোভিড-১৯ সঙ্কট সময়ে বিশেষভাবে তৈরি জেডকেটেকোর দুটি ফেসিয়াল রিকগনিশন টার্মিনাল, প্রোফেস এক্স (টিডি) এবং স্পিডফেস-ভি৫এল (টিডি) জেডকেটেকো লাইনের যুগান্তকারী ডিভাইস। এসব ডিভাইস এখন পাওয়া যাচ্ছে বাংলাদেশের বাজারে।

বর্তমানে করোনাভাইরাস সঙ্কটের কারণে কর্মক্ষেত্রে কর্মী ও ভিজিটরদের নতুন ধরনের নজরদারীর সঙ্গে খাপ খেয়ে চলতে হচ্ছে। এই জন্য যেসব পণ্য প্রয়োজন তেমন সব ডিভাইস দেশের বাজারে এনেছে জেডকেটেকো। শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপ ও মাস্ক পরা অবস্থায় শনাক্ত ও নজরদারী করতে সক্ষম এমন ফেসিয়াস রিকগনিশন প্রোফেস এক্স (টিডি) এবং স্পিডফেস-ভি৫এল (টিডি) এনেছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রোফেস এক্স (টিডি) : 

প্রোফেস প্রোডাক্ট লাইনে সবচেয়ে আপগ্রেডেড সংস্করণ প্রোফেস এক্স (টিডি) যা সব ধরনের পরিস্থিতির জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। জেডকেটেকোর কাস্টমাইজ সিপিইউ দিয়ে চালিত বুদ্ধিবৃত্তিক ইঞ্জিনিয়ারিং ফেসিয়াল রিকগনিশন অ্যালগরিদম এবং সর্বাধুনিক কম্পিউটার প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে ডিভাইসটিতে। প্রোফেস এক্স (টিডি) সিরিজটি ফেসিয়াল ও ফিঙ্গার উভয় ভেরিফিকেশন করতে পারে। একই সঙ্গে এটি বড় আকারের কাজ খুব দ্রুত ও সবদিক থেকেই নির্ভুলভাবে করতে পারে।

এই ফেসিয়াল রিকগনিশনের সক্ষমতা সিরিজটিকে বায়োমেট্রিক প্রযুক্তি শিল্পে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে। দিনে ৫০ হাজার পর্যন্ত ফেসিয়াল টেমপ্লেট শনাক্ত করতে পারবে ডিভাইসটি। যার প্রতিটি ফেস রিড করতে মাত্র ০.৩ সেকেন্ড সময় প্রয়োজন হয়। একই সঙ্গে এটি সব ধরনের নকল ছবি, ভিডিও শনাক্ত করতে পারে। এছাড়াও এটি একের ভিতর তিন হিসেবে প্রতিটি ফিঙ্গার মাত্র ০.৩ সেকেন্ড সময়ে রিড ও সংরক্ষণ করতে পারে।

স্পিডফেস-ভি৫এল (টিডি) : 

স্পিডফেস-ভি৫এল সিরিজটি পুরোপুরি আপগ্রেডেড দৃশ্যমান ফেসিয়াল রিকগনিশেন টার্মিনাল। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ইন্টেলিজেন্স ইঞ্জিনিয়ারিং, সঙ্গে স্টেট-টু-স্টেট আর্ট ফেসিয়াল রিকগনিশন অ্যালগরিদম এবং কম্পিউটার ভিশন প্রযুক্তি। এটি একই সঙ্গে খুব দ্রুত এবং অনেক পরিমাণে ফেস এবং হাতের তালু যাচাই করতে পারে। সেটা যেকোনো ধরনের প্রতিষ্ঠানেরই হতে পারে।

স্পর্শহীন প্রযুক্তির এই সিরিজটিতে নতুন অনেক ফাংশন যুক্ত করা হয়েছে। যেমন-তাপমাত্রা পরিমাপ করা এবং মাস্ক পরে থাকলেও চিনতে পারার প্রযুক্তি। একই সঙ্গে ডিভাইসটি কার্যকরভাবে স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কিত যে কোনো উদ্বেগ দূর করতে সহায়তা করবে। অ্যান্টি স্পুফিং অ্যালগরিদম থাকায় কেউ সহজেই ভুয়া ছবি, ভিডিও কিংবা মাস্ক ব্যবহার করে পেরোতে পারবে না। এতে রয়েছে একের ভিতর তিন পাম রিকগনিশন (পাম শেপ, পাম প্রিন্ট এবং পাম বেইন)। আর প্রতিটি ফিঙ্গার চিহ্নিত করতে মাত্র ০.৩৫ সেকেন্ড সময় নেয়। ডিভাইসটি এই সিস্টেমে প্রতিদিন তিন হাজার মানুষের তথ্য সংরক্ষণ করতে পারে।

ডিভাইসগুলো সম্পর্কে আরো জানতে ভিজিট করুন : www.zkteco.com.bd সাইটে।

 

-সিনিউজভয়েস/ডেক্স/২৫জুন/২০

Please Share This Post.