মাইক্রোসফট এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ইন লার্নিং কর্মসূচি

পার্টনারস ইন লার্নিং কর্মসূচির মাধ্যমে সবার প্রাপ্য শিক্ষা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে সম্প্রতি মাইক্রোসফট বাংলাদেশ এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। শিক্ষক ও শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহারের মাধ্যমে শিক্ষাদান পদ্ধতির উন্নয়নে ‘এডুকেশন ট্রান্সফর্ম অ্যাগ্রিমেন্ট’ শীর্ষক’ এ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

পার্টনারস ইন লার্নিং কর্মসূচি একটি বৈশ্বিক উদ্যোগ যা প্রতিটি শিক্ষার্থীর জন্য প্রশিক্ষিত শিক্ষকদের বৈশ্বিক নেটওয়ার্কের সুবিধা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয়, অপরিহার্য ও কার্যকরী সব উপাদান নিয়ে কাজ করে। এর মধ্যে রয়েছে শিক্ষক ও শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণ, নানা উদ্যোগ নিয়ে গবেষণা ও সংশ্লিষ্ট খাতে পেশাদার জনবল তৈরি করা।

শিক্ষার উৎকর্ষে সরকারি-বেসরকারি যৌথ উদ্যোগে একটি সার্বিক কর্মসূচি সম্পাদনে স্বাক্ষরিত চুক্তির মূল লক্ষ্য হচ্ছে, দেশজুড়ে শিক্ষাদান ও শিক্ষা গ্রহণ ব্যবস্থার রূপান্তর এবং একবিংশ শতাব্দীর দক্ষতা ও কর্মসংস্থানের উন্নয়ন ঘটানো।

মাইক্রোসফট এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তর মাইক্রোসফটের শেপ দ্য ফিউচার, আইসিটি ওয়ার্কশপ ফর স্টুডেন্ট, মাইক্রোসফট ইনোভেটিভ এডুকেটরস, মাইক্রোসফট আইটি একাডেমি ও মাইক্রোসফট সার্টিফিকেশনসহ এ ধরনের নানা উদ্যোগের ওপর জোর দিয়ে পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করবে। যা একবিংশ শতাব্দীর দক্ষতা ও কর্মসংস্থান উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে।

এ নিয়ে মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ উদ্যোগের সাথে থাকতে, মাইক্রোসফট বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে বেশ ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে। দেশের সার্বিক উন্নতিতে শিক্ষা খাত খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং বাংলাদেশের শিশুদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গঠনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সাথে কাজ করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত।’

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব হুমায়ুন খালিদ বলেন, ‘মাইক্রোসফটের সাথে এ সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষর নিয়ে আমি খুবই আনন্দিত। এর মাধ্যমে প্রাথমিক স্তর থেকেই তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষা নিয়ে কাজ করা যাবে। আমাদের মাননীয় মন্ত্রী মুস্তাফিজুর রহমান, এমপি এ উদ্যোগে সক্রিয়ভাবে অংশ নেয়ার ক্ষেত্রে আমাদের উৎসাহিত করেছেন। আশা করি, এ উদ্যোগ আমাদের মানব সম্পদ উন্নয়নে ইতিবাচক অবদান রাখবে যা দেশের সামষ্টিক অর্থনৈতিক উন্নয়নে প্রভাব ফেলবে। এ উদ্যোগের সাথে জড়িত সবাইকে আমি আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আলমগীর, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. হুমায়ুন খালিদ, যুগ্ম-সচিব মো. ফয়জুল কবির, উপ-প্রধান ড. ইমতিয়াজ মাহমুদ, মাইক্রোসফট বাংলাদেশের বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ম্যানেজার তাবাসসুম চৌধুরীসহ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ও মাইক্রোসফট বাংলাদেশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

 

 

সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.