মাইক্রোসফটের আয়োজনে ঢাকায় ব্যাংকিং সল্যুশন ডে অনুষ্ঠিত

দেশে প্রথমবারের মতো রাজধানী ঢাকার ওয়েস্টিন হোটেলে সম্প্রতি ব্যাংকিং সল্যুশন ডে আয়োজন করেছে মাইক্রোসফট। বাংলাদেশে সাইবার নিরাপত্তার বিষয়টিকে গুরুত্ব দেয়ার পাশাপাশি অনলাইনে ব্যাংকিং লেনদেন নিরাপত্তার সঙ্গে সম্পাদনের লক্ষ্যে মাইক্রোসফট, বাংলাদেশ সরকার এবং দেশের সবকটি ব্যাংকের উচ্চপদস্থ’ কর্মকর্তাগণ এ আয়োজনে অংশ নেন।

বাংলাদেশে সাইবার নিরাপত্তা ও ট্রাস্টেড ক্লাউড সম্পর্কে শুরুতেই কথা বলেন মাইক্রোসফটের এশিয়া প্যাসিফিক (অ্যাপাক) অঞ্চলের ডিজিটাল ক্রাইম ইউনিটের অ্যাসিটেন্ট জেনারেল কাউন্সিল কেসাভ এস ঢাকার (সিইএলএ)। এ সময়ে তিনি বলেন, “বাংলাদেশে ব্যাংকিং খাত অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি খাত। এ খাতের নিরাপত্তা নিশ্চিৎ করা অপরিহার্য। অনলাইনে নিরাপত্তা নিশ্চিৎ করার আগে অনলাইন সম্পর্কে আমাদের স্বচ্ছ ধারণা থাকতে হবে। উন্নত সফটওয়্যাল ও হার্ডওয়্যারের সঙ্গে উপযুক্ত সল্যুশনস ব্যবহারের মাধ্যমে অনলাইন ক্রাইম নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব।”
তিনি আরো বলেন, “বাংলাদেশে অনেক অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান এমনকি ব্যাংক এখনও সাইবার নিরাপত্তা দেয়ার মতো স্বক্ষমতা অর্জন করতে পারেনি। ফলে এসব ব্যাংক ও প্রতিষ্ঠানের গ্রাহকরা অর্থের নিরাপত্তা নিয়ে চরম আশঙ্কায় থাকেন। গ্লোবাল ডিজিটালাইজেশনের সঙ্গে অভিন্ন প্রযুক্তিগত পরিবর্তন ব্যবসায়িক মডেলের ক্ষেত্রে একটি অপরিহার্য পদক্ষেপ। অনলাইনে হামলা রোধ করতে এবং গ্রাহকদের তথ্য ও অর্থের নিরাপত্তা প্রদানসহ সবরকম সেবার ক্ষেত্রে ব্যাংক ও অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে উন্নত প্রযুক্তির সরণাপন্ন হতে হবে।

ব্যাংকিং সল্যুশনস ডে-তে অ্যাপাকের এ্যাজুর এ্যানালিটিক্স এ্যান্ড ডাটা প্ল্যাটফর্মের সেলস ডিরেক্টর অরিজিত রয় কথা বলেন অ্যানালিটিক্স সলুশনস নিয়ে। তিনি বাংলাদেশের ব্যাংকিং খাতের তথ্যের উপর নির্ভর করে মাইক্রোসফটের সলুশনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। মাইক্রোসফট বাংলাদেশ দেশের সরকারসহ সমস্ত ব্যাংক ও ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে মিলে কাজ করার মাধ্যমে এ সমস্যা দূরীকরণে কাজ করছে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নতি অবশ্যম্ভাবী আর এ জন্যে দরকার উপযুক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা, উন্নত সেবা এবং সল্যুশনের ব্যবহার। সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিৎ করতে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে স্বতঃফূর্তভাবে কাজ করতে হবে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন তিনি। এছাড়া সাইবার ক্রাইম বা অপরাধ রোধে মাইক্রোসফটের উন্নত নিরাপত্তা ব্যবস্থা ব্যবহার করছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় অসংখ্য প্রতিষ্ঠান এবং এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে একীভূত হয়ে শক্তিশালী সাইবার নিরাপত্তা বলয় তৈরির মাধ্যমে দেশের অনলাইনে নিরাপদ পরিবেশ বজায় রাখার ব্যাপারে মাইক্রোসফট দৃঢ়-প্রতিজ্ঞ।

ব্যাংকিং সল্যুশনস ডে- ২০১৬ সাজানো হয়েছে দুটি অংশে। প্রথম অংশ ‘পাবলিক পলিসি ফর ফিন্যান্সিয়াল সেক্টর’ শীর্ষক সেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হয়েছে, যেখানে প্যানেল সদস্যদের মধ্যে ছিলেন মেট্রোনেট বাংলাদেশ লিমিটেডের সিইও সৈয়দ আলমাস কবির, বাংলাদেশ ব্যাংকের সিস্টেমস ম্যানেজার (জিএম) মোহাম্মদ ইশতিয়াক মিয়া এবং বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী।
অন্যদিকে দ্বিতীয় অংশে ‘ফিউচার অব ব্যাংকিং সেক্টর ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেশনের প্যানেল সদস্য ছিলেন পূবালী ব্যাংক লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর মোহাম্মদ আলী, টেক ওয়ান গ্লোবাল (প্রাইভেট) লিঃ ম্যানেজিং ডিরেক্টর লাহিরু মুনিনদ্রদাসা, ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের প্রেসিডেন্ট ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর মোঃ আরফান আলী এবং এবি ব্যাংক লিমিটেডের হেড অব আইটি এ্যান্ড ইবিজ ডিভিশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ রেজাউল ইসলাম।

অনুষ্ঠানের শেষাংশে বক্তব্য দিতে গিয়ে মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির বলেন, “বর্তমান প্রেক্ষাপটে, তথ্যের নিরাপত্তা নিশ্চিৎ করতে দেশীয় প্রতিষ্ঠানগুলোর অ্যাডভান্সড বা উচ্চমানের প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে হবে। এতে করে অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে প্রচলিত পদ্ধতি থেকে বদলিয়ে ডিজিটালে রুপান্তর করা সম্ভব হবে এবং একই সাথে এক্ষেত্রে নতুন সুযোগ তৈরি, নির্ভুল ও সুক্ষ্ম তথ্যের নিশ্চয়তা দেয়া যাবে। ট্রাস্টেড টেকনোলজি বা নির্ভরযোগ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে দেশের ব্যবসায়িক এবং সরকারি সংস্থাগুলোর সঙ্গে মিলে কাজ করার ব্যাপারে মাইক্রোসফট দৃঢ়-প্রতিজ্ঞ।”

-সিনিউজভয়েস ডেক্স