মহাবিশ্বের সৃষ্টিরহস্য বুঝতে আলোর ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ : জাফর ইকবাল 

আন্তর্জাতিক আলোক দিবস ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষ্যে গতকাল ১৭ মে ২০১৯ শুক্রবার বিকেল তিনটায় ঢাকায় আয়োজিত হয়েছে অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল “দেখা আলো না দেখা রূপ” শীর্ষক একটি বিজ্ঞান বক্তৃতা প্রদান অনুষ্ঠান। এই বক্তৃতায় তিনি আলোর উৎস, আলোর ধর্মাবলী, মানবজীবনে দেখার বাইরেও আলোর যে ভূমিকা, আধুনিক বিজ্ঞানে আলোর অবস্থান ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করেছেন।

গতকাল ১৬ মে ২০১৯ তারিখ ইউনেস্কো বিশ্বজুড়ে পালন করে আন্তর্জাতিক আলোক দিবস ২০১৯। বাংলাদেশে এই দিবসটি নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়েছে। দিবসটি উদযাপনের অংশ হিসেবে এই বক্তৃতাটি যৌথভাবে আয়োজন করে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি ও বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি। বাংলদেশ কম্পিউটার সমিতির বিসিএস ইনোভেশন সেন্টারে এই বক্তৃতায় পূর্বেই অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনকৃতরা অংশ নেয়। প্রায় ৬০০ আবেদনকারীর মধ্য হতে ২৫০ জনকে এই অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার জন্য সুযোগ দেওয়া হয়। আয়োজনটির পার্টনার হিসেবে ছিল বিজ্ঞান ম্যাগাজিন বিজ্ঞানচিন্তা, কিশোর ম্যাগাজিন কিশোর আলো ও নাগরিক টিভি।

অনুষ্ঠানে শুরুতে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি মুনির হাসান। তিনি বলেন, আলো আছে আমাদের জীবন জুড়ে। মানব জীবনে আলোর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে। বিজ্ঞান, শিল্প, সংস্কৃতি, শিক্ষা এবং টেকসই উন্নয়ন থেকে শুরু করে চিকিৎসাশাস্ত্র, যোগাযোগ এমনকি শক্তির উৎস হিসাবে আলোর ভূমিকা ও বহুমুখী প্রয়োগ অনুধাবন ও মূল্যায়নের লক্ষ্যে ইউনেস্কোর উদ্যোগে বিশ্বজুড়ে দিবসটি পালিত হচ্ছে। দিবসটি পালনের অংশ হিসেবে আরও নানা আয়োজনের সঙ্গে আমরা এই বক্তৃতাটি আয়োজন করছি।

এরপর সবাইকে স্বাগত জানান বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি মো. শাহিদ-উল-মুনীর। তিনি বলেন, বিজ্ঞান সম্পর্কিত যেকোন কাজকে স্বাগত জানাই। বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতির সঙ্গে যৌথভাবে শিক্ষার্থীদের জন্য এমন একটি আয়োজন করতে পেরে আমরা গর্বিত। এমন আয়োজন শিক্ষার্থীদের বিজ্ঞানের প্রতি অনুপ্রাণিত করবে। যা একটি বিজ্ঞানমনস্ক আধুনিক জাতি হিসেবে আমাদের গড়ে উঠতে সহায়তা করবে। এমন যে কোন ভালো উদ্যোগের সঙ্গে বিসিএস সবসময় সহযোগিতা করতে প্রস্তুত।

পরে অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল তাঁর বক্তব্য উপস্থাপন করেন। পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে পুরো বক্তৃতাটি তিনি উপস্থাপন করেন। শুরুতে তিনি আলো কী তা নিয়ে আলোচনা করেন। এই আলোচনায় আলোর তরঙ্গধর্ম, তরঙ্গ হিসেবে আলোর ভূমিকা বিস্তারিত উঠে আসে। মানুষ কেন শুধু দৃশ্যমান আলোতেই দেখতে পায় এমন প্রশ্নের উত্তর প্রদানের চেষ্টা করেন।

এরপর তিনি আলোর সঙ্গে সম্পর্কিত আধুনিক বিজ্ঞানের বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করেন। আলোর ধর্ম বুঝতে গিয়ে কিভাবে কোয়ান্টাম মেকানিকসের উৎপত্তি, ব্ল্যাকহোলের ছবি তোলার মত বিজ্ঞানের বিশাল অর্জন, মহাবিশ্বের সৃষ্টিরহস্য বুঝতে আলোর ভূমিকা ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করেন।

মুহম্মদ জাফর ইকবাল বক্তৃতা শেষে প্রশ্নোত্তর পর্বে উপস্থিত শ্রোতাদের মধ্য হতে আলো ও পদার্থবিজ্ঞান সম্পর্কিত নানা প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন।
সবশেষে ছিল পুরস্কার বিতরণী। আলোক দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলো ও আলোক প্রযুক্তি বিষয়ক কুইজের বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরন করা হয়।

এছাড়াও দিবসটি উদযাপনের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি আয়োজন করে “আলোর দ্যুতি”, আলো ও আলোক প্রযুক্তি কুইজ, শিশু কিশোরদের আলোক ভাবনা ইত্যাদি।

উল্লেখ্য, বিশ্বজুড়ে ৬০টির বেশি দেশে উদযাপিত হয়েছে এবারের আলোক দিবস। বিজ্ঞান, শিল্প, সংস্কৃতি, শিক্ষা এবং টেকসই উন্নয়ন থেকে শুরু করে চিকিৎসাশাস্ত্র, যোগাযোগ এমনকি শক্তির উৎস হিসাবে আলোর ভূমিকা ও বহুমুখী প্রয়োগ অনুধাবন ও মূল্যায়নের লক্ষ্যে দিবসটি পালিত হচ্ছে। বাংলাদেশে এই দিবসের উদযাপন সমন্বয় করছে বাংলাদেশ বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ সমিতি।

-সিনিউজভয়েস/জিডিটি/১৮মে/১৯