ভোলায় রোয়ানু দুর্গতদের পাশে ইডটকো

বাংলাদেশের উপকূলীয় জেলাগুলোতে সম্প্রতি বয়ে যাওয়া ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় রোয়ানু’র আঘাতে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে দেশের প্রথম টাওয়ার কোম্পানি ইডটকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেড (ইডটকো)। কর্পোরেট সামাজিক দ্বায়বদ্ধতা কর্মসূচরি আওতায় ভোলা জেলার দুর্গত ৫০০ পরিবারকে ত্রাণসামগ্রী প্রদান করেছে কোম্পানিটি।

সম্প্রতি ভোলা জেলার তজুমুদ্দিন উপজেলা কমপ্লেক্সে দুর্গত পরিবারগুলোর মাঝে ৫০০ প্যাকেট ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করে ইডটকোর কর্মকর্তারা। প্রতিটি প্যাকেটে ছিল চাল, মসুর ডাল, সয়াবিন তেল, চিনি, লবণ ও আলু।

সংবাদপ্রত্রে প্রকাশিত খবরের ভিত্তিতে, ঘূর্ণিঝড়ে বাড়ি-ঘর ও জমি-জমা ভেসে যাওয়ায় দুর্গতরা সবচেয়ে দুর্ভোগে পড়েছেন প্রতিদিনের খাবার নিয়ে। দুর্গত পরিবারগুলো সরকারি আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে আশ্রয় নিতে পারলেও তাদের গৃহস্থালি সামগ্রী ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ দিকটি বিবেচনায় নিয়ে তজুমুদ্দিন ইউনিয়নের দুর্গত পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইডটকো।

ইডটকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড্যারেল সিনাপ্পা বলেন, ‘সমাজের প্রতি দায়বোধসম্পন্ন কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান হিসাবে ইডটকো প্রাকৃতিক দুর্যোগকালে মানবিক সহায়তা কার্যক্রমে অংশ নিতে আগ্রহী। এমন পরিস্থিতিতে মানুষের পাশে দাঁড়াতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ ইডটকো।’

ইডটকো
আজিয়াটা বারহাদ গ্রুপের একক মালিকানাধীন টেলিযোগাযোগ অবকাঠামো সেবা প্রদানকারী সাবসিডিয়ারি কোম্পানি ইডটকো। ২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত ইডটকোর ব্যবস্থাপনা এবং পরিচালন কার্যক্রম সম্পূর্ণ স্বাধীন। এটি দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় টাওয়ার, জ্বালার্নি, ট্রান্সমিশন এবং পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণসহ সব ধরনের অবকাঠামো সেবা প্রদান করে থাকে।

এশিয়ার প্রথম অবকাঠামো সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ইডটকো মালয়েশিয়া, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, কম্বোডিয়া ও বাংলাদেশে মোট ১৪ হাজার টাওয়ারের টেলিযোগাযোগ অবকাঠামো সেবা এবং সমাধান দিয়ে থাকে। আর ইডটকোর এ ধরনের সেবা দিতে সহায়তা করে থাকে ইকো সেন্টার।

ইডকটো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেড ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে ঢাকাকে উদ্ভাবন এবং নতুন প্রযুক্তির কেন্দ্রবিন্দুতে রূপান্তরিত করতে নতুন পথ নির্মাণে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.