ভিরো নিয়ে শোরগোল

এতদিনে বুঝি ইনস্টাগ্রামের সত্যিকারের প্রতিদ্বন্দ্বীর দেখা পাওয়া গেল। অ্যাপটির নাম ভিরো (Vero)। অ্যাপল-এর অ্যাপ স্টোর থেকে বর্তমানে ভিরো ডাউনলোডিংয়ের তালিকায় উপরের দিকে আছে। বিজ্ঞাপনমুক্ত এই অ্যাপটির সাহায্যে ব্যবহারকারী ছবি শেয়ার, লিংক অ্যাড করা ইত্যাদি ছাড়াও বই, মুভি ও টিভি শো বন্ধুদের কাছে সুপারিশ করতে পারেন।

সম্প্রতি এটি অ্যাপলের ইউকে স্টোরের ডাউনলোড তালিকায় ৯৯ নম্বর থেকে এক লাফে এক নম্বরে উঠে এসে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। এ থেকে বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন যে, ব্যবহারকারীরা প্রতিষ্ঠিত সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মগুলোর বিকল্প খুঁজতে শুরু করেছেন।

অবশ্য তার মানে এই নয় যে, ব্যবহারকারীরা কেবল ভিরোকে নিখাদ প্রশংসাতেই ভাসাচ্ছেন। এরই মধ্যে কেউ কেউ এর কিছু কিছু সীমাবদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। মজার ব্যাপার হচ্ছে, কেউ কেউ আবার অ্যাপটিকে একেবারে নিখুঁত আখ্যা দিয়ে বলেছেন, বেশি ভালো ভালো নয়!

ভিরো নিজেদেরকে এমন একটি সোশ্যাল নেটওয়ার্ক হিসেবে দাবি করছে যেটি ব্যবহারকারীদের নিজেই নিজের পরিচয় অনুসন্ধানের সুযোগ দেয় (that lets you be yourself) । এটি লঞ্চ করা হয় ২০১৫ সালে, আর এর পেছনে আছেন প্রাক্তন লেবানিজ প্রধানমন্ত্রী রাফিক হারিরির ছেলে কোটিপতি ব্যবসায়ী আইমান হারিরি।

সম্প্রতি সিএনবিসি-র সাথে এক সাক্ষাৎকারে আইমান হারিরি বলেছেন, তিনি অ্যাপটি চালু করেছিলেন টুইটার ও ফেসবুকের বিজ্ঞাপনে অতিষ্ঠ মানুষদের কথা মাথায় রেখে।

সিনিউজভয়েস//তুষার
Please Share This Post.