ভবিষ্যত কর্ম-পরিকল্পনা বিষয়ক আলোচনায় ৫ বিষয়ের গুরুত্বারোপ

এটুআই এর আয়োজনে ০৩ মার্চ ২০২০ জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের আইল্যাব অডিটরিয়ামে ভবিষ্যত কর্মের জন্য সমন্বিত জাতীয় কাঠামো তৈরির পরিকল্পনা প্রণয়ন কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠান এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (এনএসডিএ)-এর নির্বাহী চেয়ারম্যান (সচিব) গোলাম মোঃ হাসিবুল আলম; ইউএনডিপি-বাংলাদেশ এর আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মূখার্জি; ইউএনডিপি-এশিয়া প্যাসিফিক এর রিজিওনাল ইনোভেশন সেন্টার প্রধান জুলিও কোয়াগিওটো; ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডন এর অধ্যাপক ও নেসটা ইউকে এর সাবেক নির্বাহি প্রধান ড. জেফ মালগান; ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ড্রাস্ট্রি (এফবিসিসিআই) এর পরিচালক সালাউদ্দিন আলমগীর এবং ইউসেফ এর নির্বাহি পরিচালক তাহসিনা আহমেদ। সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এটুআই-এর প্রকল্প পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) ড. মোঃ আব্দুল মান্নান, পিএএ এবং প্যানেল আলোচনা সঞ্চালনা করেন এটুআই-এর পলিসি অ্যাডভাইজর আনীর চৌধুরী।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী জনাব মহিবুল হাসান চৌধুরী, এমপি বলেন, আমাদের অনেক প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্ত্বেও আমরা বেসরকারি খাতকে সাথে নিয়ে তরুণদের জন্য টেকসই উন্নয়নে কাজ করছি এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠির চাহিদা অনুযায়ী আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থাকে অগ্রসর করার চেষ্টা করছি। আগামী প্রজন্মের জন্য দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে শিক্ষার্থীদের এখনি প্রস্তুত করা প্রয়োজন। যদিও আমাদের আগামী প্রজন্ম যথেষ্ট অগ্রসরমান, সে অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানগুলোকে অগ্রসর করতে শিক্ষা প্রদানে সমন্বিত কার্যকম গ্রহণ করা হচ্ছে। তবে ২০২০ সালে মুজিববর্ষকে সামনে রেখে আমরা সকল প্রতিষ্ঠানে একটা আমূল পরিবর্তন নিয়ে আসার কার্যক্রম হাতে নিয়েছি।

এনএসডিএ-এর নির্বাহী চেয়ারম্যান (সচিব) গোলাম মোঃ হাসিবুল আলম বলেন, আমরা এটুআইকে সাথে নিয়ে ন্যাশনাল স্কিলস পোর্টাল তৈরি করেছি, এর থেকে স্কিলস নিয়ে বিভিন্ন ডাটা সংগ্রহ করা হচ্ছে। আমরা এসব ডাটার উপর ভিত্তি করে প্রশিক্ষিত মানবসম্পদকে চাকুরি কিংবা উদ্যোক্তা তৈরি পর্যন্ত সহযোগিতা করে যাচ্ছি। আগামী দিনে এসবের সমন্বয়ে আরো অগ্রসরমান পলিসি তৈরিতে আমরা কার্যকর ভূমিকা রাখব।

আলোচকগণ ভবিষ্যত কর্মদক্ষতা প্রস্তুতকরণে ৫টি বিষয়ের উপর গুরুত্বারোপ করেন। ১. শিক্ষা কার্যক্রম, জব ও স্কিলসের রিয়েল টাইম ডাটা; ২. জব ও স্কিলসের ভবিষ্যত সম্ভাবনা; ৩. নানা সুযোগ-সুবিধা; ৪. শিক্ষা কার্যক্রম ও জব মার্কেটের সমন্বয় এবং ৫. সমসাময়িক পলিসি তৈরির মাধ্যমে একটি সমন্বিত উদ্যোগের পরামর্শ প্রদান করেন আলোচকবৃন্দ। 

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ-এর আওতাধীন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ ও ইউএনডিপি বাংলাদেশ এর সহায়তায় পরিচালিত এটুআই এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, বিভিন্ন শিল্পখাতের প্রতিনিধি এবং গণমাধ্যম কর্মীগণ উপস্থিত ছিলেন।

 

-সিনিউজভয়েস/ডেক্স/৪মা./২০

Please Share This Post.