ব্র্যাক ও এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটিতে বিপিও সামিট অ্যাক্টিভেশন কার্যক্রম

ব্র্যাক বিশ^বিদ্যালয় ও ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকে বিপিও সামিট ২০১৫ উপলক্ষে অ্যাক্টিভেশন কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২২ নভেম্বর রোববার ব্র্যাক বিশ^বিদ্যালয় ও ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের ক্যাম্পাসে এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়। সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ কলসেন্টার এন্ড আউটসোর্সিং (বাক্য) এর যৌথ উদ্যোগে আগামী ৯-১০ ডিসেম্বর ঢাকায় প্রথমবারের বিপিও সামিট ২০১৫ অনুষ্ঠিত হবে। সামিট উপলক্ষে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে একাধিক অ্যাক্টিভেশন কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে প্রথম আলোর যুব কর্মসূচি সমন্বয়কারী মুনির হাসানর সঞ্চালনায় আলোচনায় অংশগ্রহন করেন বিশ^বিদ্যালয়ের ক্যারিয়ার সার্ভিস অফিসার তাজ উদ্দিন, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ কলসেন্টার এন্ড আউটসোর্সিং (বাক্য) এর যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ আমিনুল হক, আমরা কোম্পানীজের জেষ্ঠ্য নির্বাহী এ জে এম রাফকাত, বিক্রয় ডট কমের সহকারী ব্যবস্থাপক ইয়াসিন আরাফাতসহ অনেকে। আয়োজনের শুরুতেই মুনির হাসান বলেন, তরুণরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। তরুণদের যত বেশী প্রযুক্তির কাছাকাছি রাখা যাবে, ততই দেশ এগিয়ে যাবে। বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় সম্পদ তরুণ প্রজম্ম।

আলোচনায় অংশগ্রহনকারীরা বলেন, বিপিও সামিটের মাধ্যমে দেশের অনেক তরুণের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। তাই দুই দিনের এ আয়োজনের তরুণদের অংশগ্রহন করা উচিত।

ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের অ্যাক্টিভেশন কার্যক্রমে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. এম আর কবির, কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আলেক কুমার শাহ, বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অফ কলসেন্টার এন্ড আউটসোর্সিং (বাক্য) এর সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ হোসেন, মিডিয়া সফট ডাটা সিস্টেমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোপাল দেবনাথ, বিক্রয় ডট কমের সহকারী ব্যবস্থাপক (মার্কেটিং) মো. মাহবুব হাসান,  আমরা টেকনোলজিসের সহাযোগী ব্যবস্থাপক (মার্কেটিং) নাহিদ আহমেদসহ অনেকে।

বক্তব্যে উপ-উপাচার্য বলেন, বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। নতুন নতুন প্রযুক্তিকে আমাদের গ্রহণ করতে হবে। তরুনদের মধ্যে প্রযুক্তির ভালো দিকগুলো তুলে ধরতে হবে।

আয়োজকরা তাদের বক্তব্যে বলেন, আমাদের দেশে যোগ্যতা সম্পন্ন লোকের অভাব রয়েছে। যোগ্যতা থাকলে চাকরির অভাব হয় না। আমাদের দেশের চাকরি প্রত্যাশি তরুণদের যোগ্যতা সম্পন্ন মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

বাক্য সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ হোসেন শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এই সামিটের মাধ্যমে আমরা তরুণদের আউটসোসিং ও কলসেন্টার সম্পর্কে একটি ভালো ধারনা দিতে পারবো। এছাড়া তিনি উপস্থিত সবার কাছে বিপিও সামিট ২০১৫ এর বিস্তারিত তুলে ধরেন।

বিক্রয় ডট কমের পক্ষ থেকে দুটো বিশ্ববিদ্যালয়ের  অংশগ্রহণকারী  শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৫০টি উপহার দেওয়া হয়। ব্র্যাক ও এশিয়া প্যাসিফিকে আমরা টেকনোলজিস আয়োজন করে কুইজ প্রতিযোগীতা। প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহনকারী ৪ জন শিক্ষার্থীকে ৪টি স্মার্ট ফোন ও অন্য শিক্ষার্থীদের ২০টি সেলফি স্টিক উপহার দেওয়া হয়।

সিনিউজভয়েস/ডেক্স

Please Share This Post.