ব্যবসা ও মার্কেটিং এ সৃজনশীলতা প্রসারে আশাবাদ কমিউনিকেশন সামিটে

বহুমাত্রিক সুসংবদ্ধ বিশ্বের মাধ্যমে সৃজনশীলতার ক্ষমতায়ন এই স্লোগান’কে প্রতিপাদ্য করে মেঘনা গ্রূপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ এর সৌজন্যে গত ১৯ আগস্ট অনুষ্ঠিত হলো কমিউনিকেশন সামিট এর সপ্তম আসর। রাজধানীর লা মেরিডিয়েন হোটেলে অনুষ্ঠিত দিনব্যাপী এ সম্মেলনে বিভিন্ন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান, বিপণন ও বিজ্ঞাপন সংস্থা থেকে আগত প্রায় ৩৫০ জন অতিথি অংশগ্রহন করেন। কানস লায়ন্স এর সাথে অংশিদারিত্বে বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের উদ্যোগ হচ্ছে কমিউনিকেশন সামিট। এ বছর কমিউনিকেশন সামিট আয়োজনে সহযোগিতায় ছিলো র‌্যাংস তোশিবা এবং পৃষ্ঠপোষকতায় ছিলো দ্য ডেইলি স্টার ।

বাংলাদেশে ব্যাবসা ও মার্কেটিং এ সৃজনশীলতা প্রসারে কমিউনিকেশন সামিট হচ্ছে সবচেয়ে বড় প্ল্যাটফর্ম যেখানে দেশি বিদেশি নামকরা সব বিজ্ঞাপন ও মার্কেটিং বিশেষজ্ঞগণ সম্মিলিত হন। ২০০৯ সালে প্রথমবার অনুষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে এদেশীয় সৃজনশীল যোগাযোগ শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে কমিউনিকেশন সামিট। এ বছর সামিটে বক্তব্য রেখেছেন বিশ্বখ্যাত তিন জন সৃজনশীল যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ। এছাড়াও ছিলো দুইটি প্যানেল আলোচনা, তিনটি ওয়ার্কশপ, এবং দুইটি এজেন্সির কেইস স্টাডি উপস্থাপন। এর পাশাপাশি শুধুমাত্র সামিটে উপস্থিত অতিথিদের জন্য ছিলো বিশেষ কানস লায়ন্স প্রদর্শনী।

এ বছরের সামিটের মূল বক্তা হিসেবে ছিলেন হাইপারকালেক্টিভ এর ফাউন্ডার ও চিফ ক্রিয়েটিভ অফিসার, সেপিয়েন্টনিত্রো ও লিও বার্নেট এর প্রাক্তন চিফ ক্রিয়েটিভ অফিসার কে ভি শ্রীধর; এবিসিডি অফ বিজনেস এন্ড কালচার, হালাল – মুসলিম ও এথনিক মার্কেটের বিশেষজ্ঞ এবং লন্ডনের জিএসএম এর কন্সাল্টেন্ট প্রফেসর ডঃ জোনাথান এ জে উইলসন; এবং লো, দুবাই এর প্রাক্তন সিইও বিকাশ মেহতা।

সামিটে দেশি ও বিদেশি বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে দুইটি আলাদা প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শরিফুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় প্রথম প্যানেল আলোচনা তে অংশগ্রহন করেন ইউনিলিভার বাংলাদেশ লিঃ এর হোম কেয়ার, ফুডস এন্ড রিফ্রেশমেন্ট এর প্রধান তানজিম ফেরদৌস আলম; মিডিয়াকম লিঃ এর কনসাল্টিং এক্সিকিউটিভ ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর তৌফিক মাহমুদ; বিটপি এডভার্টাইজিং লিঃ এর এক্সিকিউটিভ ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর সাকিব চৌধুরি; এবং গ্রে এডভার্টাইজিং বাংলাদেশ লিঃ এর সিনিয়র ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর মোহাম্মদ নুরুর রহমান।

দ্বিতীয় প্যানেল আলোচনাটি সঞ্চালনা করেন মার্কেটিং সোসাইটি অব বাংলাদেশ এর প্রেসিডেন্ট আশরাফ বিন তাজ এবং এতে অংশগ্রহন করেন গ্রামীণফোন লিঃ এর মার্কেটিং এর প্রধান সোলায়মান আলম; এশিয়াটিক থ্রিসিক্সটি লিঃ এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর নেভিল ফেরদৌস হাসান; গ্রে এডভার্টাইজিং বাংলাদেশ লিঃ এর সিইও এবং ম্যানেজিং পার্টনার গাউসুল আলম শাওন; এবং সামিটের কি-নোট স্পিকার বিকাশ মেহতা।
এছাড়া দুইটি দেশিয় বিজ্ঞাপন সংস্থা তাদের নিজস্ব বিভিন্ন বিজ্ঞাপন প্রকল্পের উপর কেইস স্টাডি উপস্থাপন করে। কেইস স্টাডি উপস্থাপনকারী বিজ্ঞাপন সংস্থা গুলো হলো – গ্রে এডভার্টাইজিং বাংলাদেশ লিঃ এবং বিটপি এডভার্টাইজিং লিঃ।

এছাড়াও সামিটে ছিলো দুইটি ভিন্ন ওয়ার্কশপের আয়োজন। একটি ওয়ার্কশপ ছিলো নতুন স্টার্ট-আপ এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সহ-প্রতিষ্ঠাতাদের জন্য, যার সঞ্চালক ছিলেন প্রফেসর জোনাথান এ জে উইলসন। অপর ওয়ার্কশপটির সঞ্চালনায় ছিলেন বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের ডিরেক্টর, স্বনামধন্য ভিজুয়াল আর্টিস্ট নাজিয়া আন্দালিব প্রিমা। ভিন্নমাত্রার এই ওয়ার্কশপে তিনি অতিথিদের বিভিন্ন অংশগ্রহনমূলক কাজে সম্পৃক্ত করেন এবং সৃজনশীলতার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনা করেন।

বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের উদ্যোগে, কানস লায়ন্স এর সাথে অংশিদারিত্বে এবছর কমিউনিকেশন সামিট আয়োজিত হয় মেঘনা গ্রূপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ এর সৌজন্যে। এ আয়োজনের সহযোগিতায় ছিলো র‌্যাংস তোশিবা এবং পৃষ্ঠপোষকতায় ছিলো দ্য ডেইলি স্টার। এ আয়োজনে আরো ছিলো – ইভেন্ট পার্টনার লা মেরিডিয়েন, স্ট্র্যাটেজিক এলায়েন্স রোয়ারিং লায়ন্স, নলেজ পার্টনার মার্কেটিং সোসাইটি অব বাংলাদেশ, এয়ারলাইন্স পার্টনার ইতিহাদ এয়ারওয়েজ, লাইফস্টাইল পার্টনার এডভান্স ডেভেলপমেন্ট টেকনোলজিস, আইটি পার্টনার আমরা, পি আর পার্টনার মাস্টহেড পি আর, টিভি পার্টনার একাত্তর টিভি, রেডিও পার্টনার রেডিও টুডে, সোশ্যাল মিডিয়া পার্টনার ওয়েবেবল, অডিও ভিজুয়াল পার্টনার আতশ, ডিজিটাল কন্টেন্ট পার্টনার ফায়ারফ্লেম মিডিয়া, এবং ভিজুয়াল কন্টেন্ট পার্টনার তরুণ।

-গোলাম দাস্তগীর তৌহিদ

Please Share This Post.