বৃহস্পতিবার জাতীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন পুরস্কার


আগামীকাল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টায় জাতীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন পুরস্কার ২০১৬ প্রদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। এতে আটটি ক্যাটাগরিতে মোট ১৬টি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ও সেবাকে পুরস্কার প্রদান করা হবে।

রাজধানীর ফার্মগেটের কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন আইসিটি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন এশিয়া প্যাসিফিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক জামিলুর রেজা চৌধুরী, বেসিসের সভাপতি মোস্তাফা জব্বার ও সাহিত্যিক আনিসুল হক৷ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন আইসিটি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. হারুনুর রশিদ।

বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মকে মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে সারা বিশ্বের বিলিয়ন ডলারের মোবাইল অ্যাপ এর বাজারে প্রবেশের জন্য মোবাইলভিত্তিক বিভিন্ন উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে উৎসাহ ও সহায়তা দিতে দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ‘জাতীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন পুরস্কার ২০১৬’।

আইসিটি বিভাগ ও ওয়ার্ল্ড সামিট অ্যাওয়ার্ড এর যৌথ উদ্যোগে জাতীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন পুরস্কার ২০১৬ আয়োজিত হচ্ছে। এতে জাতীয় পুরস্কার বিজয়ীরা ওয়ার্ল্ড সামিট মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন পুরস্কারের গ্লোবাল প্রতিযোগিতার জন্য সরাসরি মনোনীত হবেন।

সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ আয়োজিত এই প্রতিযোগিতার সহযোগী গুগল ডেভেলপার গ্রুপ সোনারগাঁও এবং গুগল ডেভেলপার গ্রুপ বাংলা। দেশীয় প্রতিষ্ঠান কর্তৃক নির্মিত সেরা মোবাইল কনটেন্ট ও উদ্ভাবনী মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের প্রাপ্য স্বীকৃতি প্রদানই এই আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য।

সেরা অ্যাপকে স্বীকৃতি জানানোর পাশাপাশি অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন সেমিনার। এতে আলাদা আলাদা ৭টি সেশনের আয়োজন থাকছে। মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন নিয়ে টেকনিক্যাল সেশনের পাশাপাশি সফলদের গল্প শোনা, অ্যাপ তৈরিতে বাংলাদেশের অবস্থান ও সম্ভাবনার জায়গাগুলোও তুলে ধরা হবে।

সেমিনারে বিষয়ভিত্তিক বক্তব্য রাখবেন ক্রিটিক্যাল লিংকের প্রধান নির্বাহী জেনিফার ফ্যারেল (ওয়ার্ল্ড সামিট অভিজ্ঞতা), গুগলের কান্ট্রি মার্কেটিং কনসালটেন্ট হাশমি রাফসানজামি (ইনোভেশন অ্যাট গুগল), এসএসএল ওয়্যারলেসের হেড অব ইঞ্জিনিয়ারিং মো. ইফতেখার আলম ইসহাক (ইন–অ্যাপ পেমেন্ট অ্যান্ড ই–কমার্স থ্রো মোবাইল অ্যাপ ইন বাংলাদেশ), ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের সহকারি অধ্যাপক কাজী হাসান রবিন (ইউএক্স অ্যান্ড ইউআই ডিজাইন ইন মোবাইল ডেভেলপমেন্ট), ক্লাউডির অপারেশনস্ ডিরেক্টর রাজিব হাসান (ইন্ট্রোডাকশন টু গুগুল ক্লাউড প্ল্যাটফরম), এমসিসি লিমিটেডের সিনিয়র অ্যান্ড্রয়েড ডেভেলপার আশিকুজ্জামান আশিক (সফল অ্যাপ ডেভেলপার হতে হলে), ল্যান্ডনকের প্রধান নির্বাহী ইরাম এমএ রহমান (ম্যাপিং অ্যান্ড নেভিগেশন), টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আয়মান সাদিক ও ইউটিউবার সালমান মুক্তাদির।

সেমিনারে অংশ নিতে হলে কেআইবি প্রাঙ্গণে আসতে হবে সকাল সোয়া নয়টার মধ্যে।

গত ৩ মার্চ ২০১৭ তারিখ হতে এই পুরস্কারে অংশগ্রহণের জন্য আহবান জানানো হয়। মূলত নতুন অ্যাপ বিশেষ করে তরুণদের করা ইনোভেটিভ প্রকল্প এতে আশা করা হয়। ৮টি ক্যাটাগরিতে সর্বমোট ২৯৭টি অ্যাপ জমা পড়েছিল। তিন ধাপের বিচারকাজ শেষে ১৬টি সেরা অ্যাপ নির্বাচন করা হয়েছে৷ ক্যাটাগরিগুলো হচ্ছে- এন্টারটেইনমেন্ট অ্যান্ড লাইফস্টাইল, বিজনেস অ্যান্ড কমার্স, মিডিয়া অ্যান্ড নিউজ, টুরিজ্যম অ্যান্ড কালচার, এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড হেলথ, ইনক্লুশন অ্যান্ড এমপাওয়ারমেন্ট, লার্নিং অ্যান্ড এডুকেশন, গর্ভমেন্ট অ্যান্ড পারটিসিপেশন।

২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত ১ম জাতীয় মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন পুরস্কার বিজয়ী ৮টি দল বিশ্বের ডিজিটাল কনন্টেটের সব থেকে সন্মানজনক স্বীকৃতি ওয়ার্ল্ড সামিট অ্যাওয়ার্ড মোবাইল পুরস্কারের গ্লোবাল প্রতিযোগিতার জন্য সরাসরি মনোনীত হয়। আন্তর্জাতিক ওই প্রতিযোগিতায় জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত ক্রিটিকালিংক মোবাইল অ্যাপ স্বাস্থ্য বিভাগে বিজয়ী হয়।

ওয়ার্ল্ড সামিট অ্যাওয়ার্ড মোবাইল পুরস্কার
তথ্যপ্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে সমাজের উন্নয়নে অবদানের জন্য ২০০৩ সাল থেকে অস্ট্রিয়াভিত্তিক এই সংস্থা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে সন্মানসূচক এই অ্যাওয়ার্ড দিয়ে আসছে। সন্মানজনক এই অ্যাওয়ার্ডের জুরিবোর্ডে ইতালি, ব্রাজিল, তুরস্ক, ভারত, অস্ট্রিয়া, বাহারাইন, বুলগেরিয়া, ডেনমার্ক, ইজিপ্ট, জার্মানি, বাংলাদেশ, গুয়েতেমালা, কেনিয়া, ইরান, থাইল্যান্ড, কুয়েতসহ বিশ্বের ৫০ দেশের শীর্ষ তথ্যপ্রযুক্তি ব্যক্তিত্ব রয়েছেন।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক