বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা ওএলইডি ল্যাপটপ আনলো আসুস

আসুসের জেনবুক এস ফ্লিপ ইউএক্স৩৭১ প্রিমিয়াম টুইনওয়ান কনভার্টিবল ইন্টেলের ইভো প্লাটফর্মের সার্টিফাইড আল্ট্রাবুক। আসুস জেনবুক ফ্লিপ এস সব মিলিয়ে একটি টুইনওয়ান ল্যাপটপ। চলুন দেখে নিই ল্যাপটপটিতে আরও কি আছে।

ডিজাইন  : রেড কপার ও ডায়মন্ড কাট হাইলাইটসহ ল্যাপটপটির চেসিস ও লেইড প্রেস্টিজিয়াস জেড ব্ল্যাক ফিনিসকে পুরোপুরি পরিপূরক করে তুলেছে। ল্যাপটপটির ওজন মাত্র ১.২ কেজি এবং এটি ১৪ মিলিমিটারের চেয়েও পাতলা। ফলে এটি বহন করা খুবই সহজ। এতে আরও রয়েছে ৩৬০ ডিগ্রি ইরগোলিফট হিঞ্জ ডিজাইন, এ কারণে এর ডিসপ্লে যেকোনো পজিশনে নিয়ে ব্যবহার করা যায়। ল্যাপটপটিতে সাথে থাকছে আসুস পেন২.০ অ্যাক্টিভ স্টাইলাস, যা ১২ মাস পর্যন্ত ব্যাটারি লাইফের নিশ্চয়তা দেয়।

এজটুএজ ডিজাইনের জেনবুক ফ্লিপ এস এর সম্পূর্ণ স্পেস ব্যবহার করেছে। কিবোর্ডে ব্যাকলিট থাকায় অন্ধকারে, এমনকি ফ্লাইটেও খুব স্বাচ্ছন্দ্যে ব্যবহার করা যায়। জেনবুক ফ্লিপ এসে দেয়া হয়েছে নম্বরপ্যাড ২.০ প্রযুক্তি, এর এলইডি ইলুমিনেটেড নিউমেরিক কিবোর্ড ল্যাপটপটি থেকে কি সরিয়ে দিলেও টাচস্ক্রিনে আপনি সহজেই নম্বরগুলো ব্যবহার করতে পারবেন, তাই ল্যাপটপের কিবোর্ডে তা না রাখলেও কোনো অসুবিধা থাকছে না।

ডিসপ্লে : আসুসের জেনবুক এস ফ্লিপ ল্যাপটপটির সবথেকে আকর্ষনীয় ফিচার বলতে গেলে এর ডিসপ্লে।  এতে রয়েছে ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চির ফোরকে ওএলইডি টাচস্ক্রিন ডিসপ্লে। রয়েছে ৩৮৪০*২১৬০ পিক্সেল রেজ্যুলেশন এবং মাত্র ০.২ এমএস রেসপন্স টাইম। ডিসপ্লেটি শতভাগ আল্ট্রাওয়াইড কালার গামুট ডিসিআইপি৩ সাপোর্ট করে, যা মোশন পিকচারস ইন্ডাস্ট্রিতে কালার সেটিংসে ব্যবহার করা হয়। ট্রুএইচডিআর কনটেন্টের জন্য এই ফিচারটি বিশেষভাবে রাখা হয়েছে ডিভাইসটিতে।  এছাড়াও থাকছে বিশেষ ব্লু লাইট রিডাকশন টেকনোলজি, যা ৭০ শতাংশ পর্যন্ত ক্ষতিকর ব্লু লাইট কমিয়ে আনতে পারে। ফ্লিপ সিরিজ এর ল্যাপটপ গুলোর মত যথারিতি ৩৬০ ডিগ্রিতে ঘুরানো যাবে ল্যাপটপটি, ফলে ট্যাবলেটের মতো করে ব্যবহার করা যাবে নোটবুকটি। ডিসপ্লে স্টাইলাস পেন সাপোর্টেড, স্টাইলাস পেনটি ল্যাপটপটির সাথেই পেয়ে যাবেন। ডিভাইসটিতে সাপোর্ট করে ৪০৯৬ প্রেশার লেবেল, ব্যবহার করা যাবে স্টাইলাস পেন ও উইন্ডো ইঙ্ক।

স্পেসিফিকেশন : আসুস জেনবুক ফ্লিপ এস ইউএক্স৩৭১ ডিভাইসে দেয়া হয়েছে ১১ প্রজন্মের ইন্টেল কোর প্রসেসর। ল্যাপটপটিতে থাকছে ইন্টেলের নতুন আইরিশ এক্স গ্রাফিক্স কার্ড, যা আল্ট্রাথিন নোটবুকের ডেডিকেটেড গ্রাফিক্স এ সব থেকে শক্তিশালী গ্রাফিক্স গুলোর একটি। ল্যাপটপটি ইন্টেল ইভো প্ল্যাটফর্ম সমর্থিত। এতে থাকছে ১৬ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম ও এক টেরাবাইট পর্যন্ত পিসিআইই ৩.০ এনভিমি এসএসডি। রয়েছে থান্ডারবোল্ট ৪, এইচডিএমআই ১.৪ এবং ইউএসবি ৩.২ জেন ১ টাইপ এ পোর্ট। সবধরনে কানেক্টিভিটির নিশ্চয়তা দেয়।

ব্যাটারি লাইফ : ডিভাইসটি এসেছে ৬৭ ওয়াটের ব্যাটারিতে যা ১৫ ঘণ্টা পর্যন্ত পাওয়ার ব্যাকআপ দিতে পারে। ফলে নিশ্চিন্তে এটি দিয়ে পুরোদিন কাজ করতে পারবেন। ল্যাপটপটি ইউএসবি সি পোর্ট দিয়ে চার্জ করা হয়। চার্জ মজার ব্যাপার হল ল্যাপটপটি পাওয়ার ব্যাঙ্ক দিয়েও চার্জ দেয়া যায়! পাশাপাশি রয়েছে ফাস্ট চার্জিং সুবিধা, ল্যাপটপটিকে ৪৯ মিনিটে ৬০ শতাংশ চার্জ করা যায়।

ওয়েবক্যাম ও অডিও : আসুস নতুন জেনবুক ফ্লিপ এস ইউএক্স৩৭১ এ একটি নতুন আইআর ক্যামেরা অ্যালগরিদম যুক্ত করেছে, যা কেবল ছবির মান ভালো করে না, পাশাপাশি এর হোয়াইট কালার ব্যালান্সড ও কালার স্যাচুরেশন আরও উজ্জল করে। আই আর কেমেরা থাকায় ফেসআনলক সুবিধা থাকছেই।

ডিভাইসটির অডিও সিস্টেমটি অডিও স্পেশালিস্ট হারম্যান কার্ডন সার্টিফাইড। সব ধরনের কনটেন্টে জন্য এর সাউন্ড এক অথায় দারুন ।

অন্য একই মাপের ল্যাপটপগুলোর সঙ্গে তুলনা করলে এই ল্যাপটপটি আর্ লাউড সাউন্ড দেয়, ডিচ ডেফথ ও সারাউন্ড ইফেক্ট দেয়। ফিচার হিসেবে রয়েছে, অডিওতে নয়েজ ক্যান্সেলিং, এতে শোনার জন্য অভিজ্ঞতাকে আরও স্পষ্ট করে। রয়েছে ক্লিয়ার ভয়েস মাইক ফাংশন। যা ব্যভহারকারীকে নরমাল, ব্যালান্সড, সিঙ্গেল প্রেজেন্টার ও মাল্টিপ্রেজেন্টার হিসেবে কাজ করার সুযোগ দেয়।

এই ল্যাপটপটির দাম ১ লক্ষ ৫৮ হাজার টাকা। সারা দেশে আসুস জেনবুক ফ্লিপ এস (ইউএক্স৩৭১) পাওয়া যাচ্ছে।

Please Share This Post.