বিডিওএসএনের উদ্যোগে মালয়েশিয়ায় গার্লস ইন আইসিটি ডে


বিশ্বের অর্ধেক জনসংখ্যা নারী। আগামীদিনের সুন্দর পৃথিবী গড়ে তুলতে তাই মেয়েদেরও সমানভাবে গড়ে ওঠা প্রয়োজন। ইন্টারন্যাশনাল গার্লস ইন আইসিটি ডে উপলক্ষে আয়োজিত এক ক্যারিয়ার আলোচনায় এই অভিমত ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশ, মালয়েশিয়া, ফিলিপিন ও ইন্দোনেশিয়ার শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও আলোচকবৃন্দ।

বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন)-এর ওভারসিজ চ্যাপ্টারের উদ্যোগে ১৩ এপ্রিল, কুয়ালালামপুরের মালয়েশিয়ার ইস্ট ওয়েস্ট ইন্টারন্যাশনাল কলেজে এই আয়োজন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর দাতুক ড. আবদুল মুরাদ আহমেদ, ফাউন্ডার ও সিইও, ইস্ট ওয়েস্ট ইন্টারন্যাশনাল কলেজ। প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি বিশ্বের মেয়েদের তথ্যপ্রযু্ক্তি দক্ষ ও কুশলী হওয়ার আহবান জানান।

মূল আলোচনায় অংশ নেন গুগল মালয়েশিয়ার অনলাইন স্পেশালিস্ট মাহফুজা কানন মারিয়াম, বাংলাদেশের গ্রামীণফোনের রাজশাহী সার্কেলের হেড অব ডেটা এবং বিডিওএসএনের গার্লস ইন আইসিটির সমন্বয়কারী কানিজ ফাতেমা ও বিডিওএসএনের ওভারসিজ কো-অর্ডিনেটর পাভেল সারওয়ার।

প্যানেলিস্টগণ নিজ নিজ দেশের অভিজ্ঞতা বর্ণণা করে জানান, ইন্টারনেট এখন এক নতুন দুনিয়ার উন্মোচন করেছে যেখানে ছেলে-মেয়ে উভয়েই সমানভাবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারে। তাছাড়া তথ্যপ্রযুক্তিতে মেয়েদের শিক্ষা ও কাজের অনেক সুযোগ রয়েছে বলে জানান।

ইস্ট ওয়েস্ট ইন্টারন্যাশনাল কলেজের ইন্দোনেশিয়ার শিক্ষার্থী সারজা তার দেশেও এমন আয়োজন করার জন্য আয়োজকদের অনুরোধ করেন। মালয়েশিয়ার হামিমি মনে করেন, মালয়েশিয়ার পিছিয়ে পড়া মেয়েদের জন্য এমন আয়োজন নিয়মিত হওয়া দরকার। কারণ উন্নত দেশ হলেও এখনও মালয়েশিয়ার অনেক অঞ্চলে মেয়েরা বেশ পিছিয়ে রয়েছে।

পাভেল সারওয়ার জানান, আগামীতে এই আয়োজন অব্যাহত রাখার ইচ্ছে তাদের রয়েছে।


– সিনিউজভয়েস ডেস্ক