বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তিতেও অগ্রসর শক্তি হবে: পলক

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও দক্ষ তথ্যপ্রযুক্তিবিদের চাহিদা বেড়ে যাচ্ছে। আর সে জন্য কম্পিউটার বিজ্ঞান শিক্ষার প্রতি শিক্ষার্থীদের আগ্রহ বাড়ানোর প্রয়োজন এবং দরকার নানামুখী আয়োজনের।

বিশ্বের ১৮০টি দেশের মতো বাংলাদেশে আয়োজিত ‘কম্পিউটার বিজ্ঞান শিক্ষাসপ্তাহ ২০১৫’ -এর সমাপনী অনুষ্ঠানে এই অভিমত ব্যক্ত করেন আয়োজক ও অতিথিরা।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি তার বক্তব্যে বাংলাদেশের সফটওয়্যার কোম্পানি টাইগার আইটির উদাহরণ তুলে ধরে বলেন- চেষ্টা করলেই বাঙালি বিশ্বকে জয় করতে পারে। সম্মিলিত প্রচেষ্ঠায় আগামী দিনে বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তিতেও অগ্রসর শক্তি হিসেবে চিহ্নিত হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত মাসিক কিশোর আলোর সম্পাদক বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক আনিসুল হক শিশু কিশোরদের ছোটবেলা থেকে কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ে আগ্রহী হতে আহবান জানান। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক এস এম আশরাফুল ইসলাম, ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সৈয়দ আখতার হোসেন, বিডিওএসএনের সহ সভাপতি লাফিফা জামাল, সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান প্রমুখ।

উল্লেখ্য যে, বিশ্বের ১৮০টি দেশের সঙ্গে বাংলাদেশেও কম্পিউটার বিজ্ঞান শিক্ষা সপ্তাহ উদযাপন করে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি)। এরই মধ্যে দেশের বিভিন্ন জেলায় আওয়ার অব কোড, বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মশালা ও আড্ডা, ১১ ডিসেম্বর অনলাইন প্রোগ্রামিং কনটেস্ট এবং ১২ ডিসেম্বর দেশে কেবল মেয়েদের জন্য ন্যাশনাল গার্লস প্রোগ্রামিং কনটেস্ট (এনজিপিসি) অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ডিজিটাল সলিউশন ইনোভেটর, একাডেমিক কেয়ার বর্ণ, রকমারি ডটকম, শিওর ক্যাশ, লুমেক্স আইটি, দোহাটেক, ইজি পে ওয়ে-এর পৃষ্ঠপোষকতায় এই আয়োজনে সহযোগিতা করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, কোডমার্শাল, ইন্টারনেট সোসাইটি বাংলাদেশ, গুগুল ডেভেলপার গ্রুপ বাংলা, গুগলওম্যান টেকমেকার্স ও দ্বিমিককম্পিউটিং স্কুল এবং ম্যাগাজিন পার্টনার হিসেবে ছিল কিশোর আলো। অনুষ্ঠানে পার্টনার ও পৃষ্ঠপোষকদের হাতে ক্রেস্ট তুলেদেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি।

 

 

সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.