বাংলাদেশে যাত্রা শুরু ওয়ালটন ল্যাপটপের

বাজারে এসেছে বাংলাদেশের প্রযুক্তিপণ্যের শীর্ষ প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের ল্যাপটপ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর অভিজাত হোটেল ঢাকা ওয়েস্টিনে এক বর্ণিল অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে বাজারজাত শুরু হয় বিশ্বমানের ওয়ালটন ল্যাপটপ।

‘ওয়ালটন ল্যাপটপ লঞ্চিং প্রোগ্রাম’ শিরোনামের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। বিশেষ অতিথি ছিলেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, বেসিস সভাপতি মোস্তফা জব্বার, ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক এসএম রেজাউল আলম, ইনটেল কর্পোরেশন-এর কান্ট্রি বিজনেস ম্যানেজার জিয়া মঞ্জুর ও মাইক্রোসফট প্রতিনিধি পুবুদো বাসনায়েকে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ওয়ালটন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম শামসুল আলম।

অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশী ব্র্যান্ড ওয়ালটন ল্যাপটপ কম্পিউটারের মতো উচ্চপ্রযুক্তির একটি পণ্য বাজারজাত করছে। পর্যায়ক্রমে প্রায় সব ধরণের প্রযুক্তিপণ্য তারা দেশে তৈরি এবং বাজারজাত করার পরিকল্পনা নিয়েছে। ওয়ালটনের এ উদ্যোগ দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নতুন যুগের সূচনা করলো। বাংলাদেশ ডিজিটাল বিপ্লবের পথে আরো একধাপ এগিয়ে গেলো।

walton

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, ইনটেল, মাইক্রোসফট এবং ওয়ালটনের যৌথ উদ্যোগে বাজারজাতকৃত ল্যাপটপ প্রযুক্তিপ্রেমীদের প্রত্যাশা পূরণ করবে। এর ফলে সাশ্রয়ী মূল্যে উচ্চমানের ল্যাপটপ পাবেন গ্রাহকরা।
তিনি আশা করেন, ওয়ালটন পর্যায়ক্রমে সব ধরনের আইসিটি পণ্য তৈরির মাধ্যমে প্রযুক্তিগত উৎকর্ষতার মানদণ্ডে শীর্ষ দেশের কাতারে নিয়ে যাবে বাংলাদেশকে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বেসিস সভাপতি মোস্তফা জব্বার অর্থমন্ত্রী ও আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর কাছে দেশীয় শিল্পকে উৎসাহ দিতে কর অবকাশ এবং ক্ষুদ্র যন্ত্রাংশ আমদানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধার দাবি জানান।

ওয়ালটন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম শামসুল আলম বলেন, স্বল্পমূল্যে মানসম্পন্ন প্রযুক্তি আগামী প্রজন্মের হাতে তুলে দেওয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশকে প্রযুক্তি খাতে শীর্ষস্থানে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় নিয়েই ওয়ালটন ল্যাপটপের যাত্রা শুরু হলো। বিশেষ করে স্বল্প আয়ের যেসব মানুষদের সন্তানেরা অর্থের অভাবে প্রযুক্তির ছোঁয়া থেকে বঞ্চিত, তাদের কথা মাথায় নিয়েই দেশে ল্যাপটপ উৎপাদনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এজন্য বর্তমান সরকার বিশেষ করে মাননীয় অর্থমন্ত্রী এবং আইসিটি প্রতিমন্ত্রীর অবদান ওয়ালটন গ্রুপ গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে।

এসব ল্যাপটপ স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদের কিস্তিতে শিক্ষার্থীদের হাতে পৌঁছে দেওয়াই তাদের মূল লক্ষ্য বলে ওয়ালটন গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম শামসুল আলম তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইন্টেল কর্পোরেশনের কান্ট্রি বিজনেস ম্যানেজার জিয়া মঞ্জুর ও মাইক্রোসফট প্রতিনিধি পুবুদো বাসনায়েকে। অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ওয়ালটন গ্রুপের পরিচালক এসএম রেজাউল আলম। ওয়ালটন ল্যাপটপের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন ওয়ালটনের ফার্স্ট অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর লিয়াকত হোসেন।

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বিশ্বের শীর্ষ আইসিটি ব্র্যান্ড ইনটেল, মাইক্রোসফট এবং বাংলাদেশের বিজয় বাংলার সহযোগিতায় ওয়ালটন ল্যাপটপ বাজারজাত করছে। সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশা, উচ্চমান এবং সাশ্রয়ী মূল্যের কারণে ফ্রিজ, টিভি, মোবাইল ফোন, এয়ারকন্ডিশনারসহ অন্যান্য পণ্যের মতো ল্যাপটপের ক্ষেত্রেও ওয়ালটন বাংলাদেশের শীর্ষ ব্র্যান্ডে পরিণত হবে।

ওয়ালটনের পরিকল্পনা রয়েছে পর্যায়ক্রমে প্রায় সব ধরনের আইটি পণ্য তারা দেশেই তৈরি করবে। যার প্রথম পণ্য হিসেবে বাজারে আসলো ল্যাপটপ। এখন থেকে ক্রেতারা বাজারে পাবেন ৬ষ্ঠ প্রজন্মের উচ্চগতির মাল্টিটাস্কিং বৈশিষ্ট্য সম্বলিত ল্যাপটপ। এছাড়া সুলভ মূল্যে মাইক্রোসফটের জেনুইন অপারেটিং সিস্টেম ও সফটওয়ার বাজারজাত করবে ওয়ালটন। ওয়ালটন ল্যাপটপের দামও হবে অন্যান্য আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের তুলনায় মডেলভেদে ১০ থেকে ৩০ শতাংশ সাশ্রয়ী।

প্রাথমিকভাবে বাজারে এসেছে চারটি সিরিজের মোট ২০ টি মডেলের ল্যাপটপ। মূল্য থাকছে ২৯,৫০০ থেকে ৯৫,৫০০ টাকা।  ওয়ালটন ল্যাপটপ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে ভিজিট: www.waltonbd.com

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.