ফেসবুক শিক্ষার্থীদের সময় নষ্ট করছে: ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল

ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কারণে শিক্ষার্থীরা সময়ের ফাঁদে পড়ছে জানিয়ে লেখক, পদার্থবিদ, ও শিক্ষাবিদ ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম শিক্ষার্থীদের সময় নষ্ট করছে। আজ শুক্রবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড-২০১৭ এর তৃতীয় দিনে অনুষ্ঠিত চিলড্রেন’স ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড শীর্ষক সেমিনারে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম সময় নষ্ট করছে। এসব শিক্ষার্থীদের সময় আটকে রাখছে। এসময় শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, টেকনোলজি ব্যবহার করতে হবে কিন্তু টেকনোলজিকে আমাদের ব্যবহার করতে দেয়া যাবে না।
প্রোগ্রামিংয়ের বিষয়ে তিনি বলেন, প্রোগ্রামিং করতে দুই থেকে তিনটি স্টেটমেন্ট জানলেই হয়। প্রোগ্রামিং মজার একটি বিষয়।
জাফর ইকবাল বলেন, বাবা-মাকে খুশি রেখে বই পড়তে হবে।  লুকিয়ে হলেও বই পড়তে হবে। মা-বাবা যদি বই পড়তে না দেন তাহলে রাতে টর্চ লাইট জ্বালিয়ে বা বাথরুমে গিয়েও বই পড়তে হবে। পাশাপাশি কোডিংয়ের কাজ করা যেতে পারে। বাবা-মা চান ভালো রেজাল্ট এর। এইটা কোনো ব্যাপার না। একটু ভালো করে পড়লেই ভালো রেজাল্ট করা সম্ভব। বড় সকলকে বই পড়ার প্রতি গুরত্বআরোপ করে তিনি বলেন লুকিয়ে হলেও সকলকে বই পড়তে হবে আমাদেরকে।
সেমিনারের শুরুতে দুই খুদে বক্তা কোডিংয়ের বিষয়ে তাদের অভিজ্ঞতার জানান সবাইকে। ৫ম শ্রেণীর এক খুদে শিক্ষার্থী নাশিতা জাইনা রহমান বলেন, আম্মুকে কম্পিউটারে কাজ করতে দেখতাম। আমি মনে করতাম এসব কাজ বোরিং। আমি গেম খেলতাম। একদিন আমি আম্মুকে বললাম আমার একটি শুটিং গেম চাই যেখানে সিন্ড্রেরেলা থাকবে। আমি ভেবেছিলাম মা আমার কথা ভুলে গেছে বা মা পারে না। এর কিছুদিন পর আমি যে গেমটি চেয়েছিমা মা তা বানিয়ে আমাকে দিল। আমি তো অবাক হলাম। মা বললো কোডিং করে মা গেমটি বানিয়েছে। আমি তখন কোডিং শিখতে চাইলাম। এ থেকেই আমার কোডিংয়ের শুরু।
৬ষ্ঠ শ্রেণীর খুদে বক্তা আনুভা চৌধুরী বলে, আমার প্রোগ্রাম করতে অনেক ভালো লাগে। আমি একটি স্কুলে গিয়েছিলাম সেখানে গিয়ে অনেক শিশুকে প্রোগ্রামিং করতে দেখেছি। তার এর জন্য স্ক্রাচ নামে একটি সফটওয়্যার ব্যবহার করছে। আমি প্রোগ্রামিং আরো ভালো করে শিখবো।
আলোচনার এক ফাকে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক মঞ্চে এসে ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের সঙ্গে আলাপচাড়িতায় অংশ নেন। এসময় দুই ক্ষুদে শিক্ষার্থীসহ আরো কিছু শিশু-কিশোরদের নিয়ে দ্রোন দিয়ে ছবি তোলেন।
সিনিউজভয়েস//ডেস্ক/
Please Share This Post.