ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম নিয়ে মজিলার তথ্য ভুল?

মাসখানেক আগে ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম নামে ফায়ারফক্স-এর নতুন আপগ্রেড ঘোষণা করেছে নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মজিলা। এটিকে এ পর্যন্ত ফায়ারফক্স-এর সবচেয়ে বড় আপগ্রেড হিসেবে ঘোষণা করে তারা এও জানিয়েছিল যে, ব্যবহারকারীরা যেভাবে এটিকে গ্রহণ করছেন সেটি খুবই উৎসাহব্যঞ্জক। এ প্রসঙ্গে ‘সুপার এনকারেজিং’ কথাটি ব্যবহার করেছিল তারা। কিন্তু মার্কিন সরকারের ব্রাউজার মেজারম্যান্ট সম্পর্কিত তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দেখা যাচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রে ফায়ারফক্সের ব্যবহার সামান্য একটু বেড়েছে, মজিলা যেভাবে প্রচার করেছে সেভাবে নয়। মাত্র এক মাসে কম সময়ে ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম বিশ্বজুড়ে প্রায় ১৭ কোটি মানুষ ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম ইনস্টল করেছে বলে জানিয়েছিলেন ফায়ারফক্সের প্রধান নির্বাহী নিক নগুয়েন।তিনি আরো বলেন, ‘আমরা কেবল যাত্রা শুরু করেছি এবং এখনই যেসব তথ্য পরিসংখ্যান পাচ্ছি  তাকে খুবই উৎসাহব্যঞ্জক বলতে হবে।

নগুয়েনের এই ১৭ কোটি কোয়ান্টাম ইনস্টলেশনের পরিসংখ্যানে সন্দেহ পোষণের কারণ না থাকলেও এত দ্রুত কীভাবে এতগুলো ব্যবহারকারী কব্জা করল মজিলা সেটি জানাতে পারেননি তিনি। নতুন সফটওয়্যারে কিন্তু শূন্য ইনস্টলেশন থেকেই শুরু করতে হয়, কিন্তু কোয়ান্টাম তো নতুন সফটওয়্যার নয়। এটি হচ্ছে ফায়ারফক্সেরই উন্নততর রূপ। এটিকে কোয়ান্টাম বলেই ডাকছে মজিলা, কিš‘ এটি তো আসলে ফায়ারফক্স ৫৭-ও। কাজেই এই ১৭ কোটি ব্যবহারকারী ব্র্যান্ড নিউ বা একেবারে নতুন নন – ফায়ারফক্সের সাবেক ব্যবহারকারীদের নিয়েই এ সংখ্যা।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক
Please Share This Post.