প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল বন্ধ থাকবে তিনদিন

মেরামত কাজের জন্য ২২ অক্টোবর থেকে তিনদিনের জন্য বন্ধ থাকছে দেশের প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল। যার ল্যান্ডিং স্টেশন কক্সবাজারে। ফলে দেশে ইন্টারনেটে গতি ধীর হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এখন বলা হচ্ছে ২২ অক্টোবর থেকে পরের তিনদিন এ ক্যাবল বন্ধ রাখা হবে। এ নিয়ে তৃতীয়বার মেরামতের সূচী পরিবর্তন করেছে বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি (বিএসসিসিএল)। এর আগে প্রথম ২২ সেপ্টেম্বর থেকে মেরামত শুরু করার কথা থাকলেও পরে দু’দফা সময় বদল করা হয়।

জানা গেছে, প্রথমবারের সাউথ ইস্ট এশিয়া-মিডল ইস্ট-ওয়েস্টার্ন ইউরোপ-৪ (এসইএ-এমই-ডব্লিউই-৪) নামের এ সাবমেরিন ক্যাবল সম্পূর্ণ বন্ধ করে দিয়ে এর মেরামত করা হবে।

তিনদিনের জন্য দেশের প্রথম এই সাবমেরিন ক্যাবল বন্ধ থাকার সময় ইন্টারনেটের গতি ধীর হবে বলে জানিয়েছেন, বিএসসিএলের নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক মসিউর রহমান। তিনি জানান, স্থাপনের ১২ বছর পর ক্রটিকে বন্ধ করে মেরামত করা হচ্ছে। এতে করে দেশের ইন্টারনেটের গতির উপর প্রভাব পড়বে। যা সাময়িক।

তবে আশার কথা হচ্ছে প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল বন্ধ থাকলেও চালু থাকছে দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল।

দেশে বর্তমানে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে ২৫০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ আসছে। দ্বিতীয় ক্যাবলের ক্ষমতা ১৫০০ জিবিপিএস হলেও মাত্র ২০০ জিবিপিএসই ব্যবহার করা যাচ্ছে। ফলে মেরামতের সময় ৫০ জিবিপিএসের ঘাটতি থেকেই যাবে।

বাংলাদেশ প্রথম সাবমেরিন কেবল সিমিউইফোর-এর সঙ্গে সংযুক্ত হয় ২০০৫ সালে। ৩৫.২ মিলিয়ন ইউএস ডলার ব্যয়ে এই কনসোর্টিয়ামে যোগ দেয় বাংলাদেশ।

এরপর ১০ সেপ্টেম্বর দেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল ল্যান্ডিং স্টেশনের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পটুয়াখালীর কুয়াকাটা সংলগ্ন লতাচাপলী ইউনিয়নের মাইটভাঙ্গা এলাকায় এই সাবমেরিন ক্যাবল ল্যান্ডিং স্টেশন।

সিনিউজভয়েস//ডেস্ক/

Please Share This Post.