প্রত্যাশিত মুনাফা অর্জন হয়নি রবির

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা লিমিটেডের গত বছরের চতুর্থ প্রান্তিকে (অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর) ইন্টারনেট থেকে প্রাপ্ত রাজস্ব বেড়েছে। ২০১৫ সালের তুলনায় ২০১৬ সালে গ্রাহক ১৯ দশমিক ৫ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৩ কোটি ৩৮ লাখ।

২০১৬ সালের চতুর্থ প্রান্তিকের ফলাফলের এসব তথ্য তুলে ধরে রবি আজ বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ জানিয়েছে, ২০১৬ অর্থবছরে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে রবি ২১ দশমিক ১ বিলিয়ন টাকা জমা দিয়েছে। এটি রবি’র মোট রাজস্বের ৪০ দশমিক ১ শতাংশ।

আর্থিক প্রতিবেদনে ২০১৬ সালের চতুর্থ প্রান্তিক এবং পুরো অর্থবছরের অর্থনৈতিক ফলাফল তুলে ধরা হল।

পূর্ববর্তী বছরের সাথে ২০১৬ সালের তুলনামূলক আলোচনা

নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম পুনঃনিবন্ধনের কারণে চ্যালেঞ্জ নিয়েই ২০১৬ সালের শুরু। এর ফলে নতুন সংযোগ গ্রহণের হার কমে যাওয়ায় গ্রাহক বৃদ্ধির হারও কমে আসে। নিয়ন্ত্রক সংস্থার নির্দেশে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধিত হয়নি এমন সংযোগ নিষ্ক্রিয় করার পর আরো নেতিবাচক প্রভাব পড়ে গ্রাহক বৃদ্ধির প্রবণতায়।

একীভূতকরণের পর রবি’র গ্রাহক সংখ্যা ৩ কোটি ৩৮ লাখে দাঁড়িয়েছে যা দেশের মোট মোবাইল ফোন গ্রাহকের ২৬ দশমিক ৯ শতাংশ (প্রাক্কলিত) এবং রবি আবির্ভূত হয়েছে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল ফোন অপারেটর হিসেবে।

২০১৫ সালের তুলনায় ২০১৬ সালে মোট রাজস্ব ০ দশমিক ৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, ইন্টারনেট সেবা থেকে রাজস্ব বৃদ্ধির পরিমাণ আশাব্যঞ্জক- ৩৮ দশমিক ৯ শতাংশ। ৩.৫জি ও ২.৫জি ইন্টারনেট ব্যবহার বৃদ্ধির জন্য নেটওয়ার্ক খাতে উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ এবং সাশ্রয়ী মূল্যে উদ্ভাবনী ডাটা অফারের ফলে ইন্টারনেট থেকে রাজস্ব বৃদ্ধি পেয়েছে।

২০১৬ সালে রবি’র পরিচালন মুনাফার (ইবিআইটিডিএ) পরিমাণ ২৭ দশমিক ২ শতাংশ। রাজস্বের পরিমাণ তেমন বৃদ্ধি না পাওয়া, নেটওয়ার্ক খাতে ক্রমাগত বিনিয়োগের ফলে নেটওয়ার্ক পরিচালনায় ব্যয় বৃদ্ধি এবং এককালীন একীভূতকরণ ফি ও চার্জ’র কারণে এই মুনাফা ২০১৫ সালের তুলনায় ৯ দশমিক ২ পার্সেন্টেজ পয়েন্ট কম। দেশজুড়ে নেটওয়ার্কের আধুনিকায়নে বিনিয়োগের ফলে প্রত্যাশিত মুনাফা অর্জন করতে পারেনি রবি।

২০১৬ সালের তৃতীয় ও চতুর্থ প্রান্তিকের তুলনামূলক বিশ্লেষণ

একীভূত হওয়ার কারণে ২০১৬ সালের তৃতীয় প্রান্তিক থেকে রবি বেশ কয়েকটি উল্লেখযোগ্য পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। গ্রাহককেন্দ্রিক সেবাকে প্রাধান্য দেয়ায় মূল্য নিয়ে বাজারে তুমুল প্রতিযোগিতার মধ্যেও পূর্ববর্তী প্রান্তিক থেকে এ প্রান্তিকের রাজস্ব ৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে যা টাকার অঙ্কে ১৪ দশমিক ৬ বিলিয়ন। অন্যদিকে মূলত একীভূতকরণ-সংক্রান্ত এককালীন ফি ও চার্জের কারণে পূর্ববর্তী প্রান্তিক থেকে এ প্রান্তিকে পরিচালন মুনাফা (ইবিআইটিডিএ) ১৯ দশমিক ৫ পার্সেন্টেজ পয়েন্ট কম হয়েছে। দেশজুড়ে বিশেষত চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা অঞ্চলে নেটওয়ার্ক আধুনিকায়নের কারণে অবচয় বৃদ্ধির ফলে মুনাফায় নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

মোবাইল নেটওয়ার্ক অবকাঠামোয় বিনিয়োগ

গ্রাহকদের আরো মানসম্মত ভয়েস ও ডাটা সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ৩.৫জি নেটওয়ার্কের বিস্তার এবং ২.৫জি নেটওয়ার্কের মান আরো বৃদ্ধির জন্য ক্রমাগত বিনিয়োগ করে চলেছে রবি। ২০১৬ সালের চতুর্থ প্রান্তিকের ৭ দশমিক ৪ বিলিয়ন টাকাসহ কোম্পানির কার্যক্রম শুরুর পর থেকে রবি’র মোট মূলধনী ব্যয়ের পরিমাণ ১৮২ দশমিক ৬ বিলিয়ন টাকা। ১২ হাজার ৮৫০’টির বেশি সাইট নিয়ে দেশের ৬৪টি জেলাতেই রয়েছে রবি’র নেটওয়ার্ক যার মধ্যে ৭ হাজার ৭ শ’টির বেশি ৩.৫জি সাইট।

সিইও’র বক্তব্য

রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘২০১৬ সালের চতুর্থ প্রান্তিকে এয়ারটেল’র সাথে একীভূতকরণ প্রক্রিয়ার সর্বশেষ ধাপ শেষ করেছি আমরা। একীভূতকরণের ফলে গ্রাহকরা লাভবান হওয়ার পাশাপাশি পুরো টেলিযোগাযোগ শিল্পই উপকৃত হবে। এখন আমরা গ্রাহকদের সর্বোচ্চ মানসম্পন্ন সেবা প্রদানের জন্য দেশের ১ নম্বর নেটওয়ার্ক তৈরির লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি।

২০১৬ সালের চতুর্থ প্রান্তিকে আমরা বরাবরের মতো নানা উদ্ভাবনী ও সাশ্রয়ী পণ্য বাজারে এনেছি। একীভূতকরণের পর ‘মার্জার বোনানজা অফার’ চালু করেছে রবি; যার আওতায় ১জিবি ইন্টারনেট, দিন-রাত ২৪ ঘন্টা ৫ পয়সা/ সেকেন্ড কল রেট উপভোগ এবং একটি কিনলে আরেকটি সিম বিনামূল্যে অফার পেয়েছেন গ্রাহকরা। এছাড়া এয়ারটেল ব্র্যান্ডের গ্রাহকদের জন্য এয়ারটেল-ইয়ন্ডার মিউজিক অ্যাপ চালু করেছে রবি।’

স্টেকহোল্ডারদের পরিশোধিত অর্থের বিবরণ

২০১৬ সালের চতুর্থ প্রান্তিকে রবি রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিয়েছে ৮ দশমিক ৫ বিলিয়ন টাকা যা এ প্রান্তিকের মোট রাজস্বের ৫৮ দশমিক ৭ শতাংশ। ১৯৯৭ সালে কার্যক্রম শুরুর পর থেকে রবি এ পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিয়েছে ১৭৮ দশমিক ৮ বিলিয়ন টাকা। অন্যদিকে একই সময়ে শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ হিসেবে প্রদান করেছে ২ দশমিক ৯ বিলিয়ন টাকা।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.