প্রতিবন্ধিরাও আসবে ডিজিটাল প্লাটফর্মে

প্রতিবন্ধিরা আর পরিবার ও সমাজের বুঝা হয়ে থাকবে না, তাদের আনা হবে ডিজিটাল প্লাটফর্মে সোমবার রাজধানীর আগার গাঁওস্থ আইসিটি টাওয়ারে বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিদের মর্যাদাপূর্ণ জীবিকা ও কর্মসংস্থান চাকুরি মেলা ২০১৮ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এই কথা বলেন।

পলক বলেন, ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসেব অনুযায়ী সারাবিশ্বের প্রায় ১৫ শতাংশ মানুষ নানাভাবে প্রতিবন্ধকতার শিকার। সে হিসেবে বাংলাদেশে প্রায় দেড় কোটি মানুষ শারীরিক প্রতিবন্ধকতার শিকার। আমাদের ১৬ কোটি মানুষের মধ্যে যদি এই দেড় কোটি মানুষকে মূল অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের সাথে সম্পৃক্ত করতে না পারি তাহলে আমরা কীভাবে মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হবো, কীভাবে আমরা উন্নত দেশে রূপান্তরিত হবো?’

তিনি বলেন, ‘আর সেজন্যই প্রধানমন্ত্রীর সুযোগ্য কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল আমাদেরকে নির্দেশ দিয়েছিলেন যে, আমাদের প্রত্যেকটা প্রজেক্টে যেমন দেশের ২৮টা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে সাধারণ মানুষের সাথে যেন একজন করে বিশেষভাবে সক্ষম ব্যক্তিদের সমানভাবে সুযোগ থাকে। আর তারা যেন ভালভাবে কাজ করতে পারেন সে অনুসারে প্রত্যেকটা পার্কে প্রয়োজনীয় ডিজাইন করা হয়েছে।’

চতুর্থবারের মতো ‘চাকরি মেলা ২০১৮’ এর আয়োজন করেছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতাধীন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এবং সিএসআইডি।

গতবছরে প্রায় ১১৫ জনেরও বেশি বিশেষভাবে সক্ষম তরুণ-তরুণীকে চাকরির ব্যবস্থা করা হয়েছিল। আয়োজকরা জানিয়েছে, এবার আরও বেশি কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে পারবো।’

দেশে তথ্য-প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠানগুলোই মূলত চাকরির ব্যবস্থা করছে। এর মধ্যে আছে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) সদস্যভুক্ত প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠান, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কল সেন্টার অ্যান্ড আউটসোর্সিং বা বাক্য, অ্যাকসেঞ্চার, মাই আউটসোর্সিং, ডিজকন, সাইবার ক্যাফে অনার্স অ্যাসোসিয়েশনসহ বেশ কিছু সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান। এক্সিম ব্যাংকও চাকরি দিয়েছে কয়েকজনকে।

সিনিউজভয়েস//ডেস্ক/

Please Share This Post.