পরবর্তী প্রজন্মের পছন্দের স্মার্টফোন হবে গ্যালাক্সি ফোল্ড

সম্প্রতি গ্যালাক্সি ফোল্ড ফোনের খবর বাজারে ছেড়ে স্মার্টফোনের জগতে সাড়া ফেলে দিয়েছে স্যামসাং। স্মার্টফোন কিংবা ট্যাবলেট ফোল্ডিং ফোন যে কোন নামেই ডাকা যাবে এটিকে। অর্থাৎ এক ফোনের দুটি পরিচয় যা আগে চোখে পড়েনি।

বাজারে সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাপল’র আগেই স্যামসাং বের করল এই ধরনের ফোন । এই প্রথম অ্যাপলকে ছাড়িয়ে আগেই কোনও বড় প্রোডাক্ট বাজারে আনলো স্যামসাং। সে জন্য অবশ্য তাদের লেগেছে প্রায় গোটা একটি দশক। তবে স্যামসাং পরপরই ফোল্ডেবল ফোন প্রদর্শন করে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। সম্প্রতি বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিত মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস ২০১৯ (এমডিব্লউসি) এ প্রথমবারের মতো ফাইভজি সমর্থিত ভাঁজযোগ্য (ফোল্ডেবল) স্মার্টফোন মেট এক্স স্মার্টফোনটি প্রদর্শন করে।

সাধারণ দৃষ্টিতে গ্যালাক্সি ফোল্ড ফোনে বয়েছে ৪.৬ ইঞ্চি মাপের স্ক্রিন। কিন্তু সেতো ফোনের আধেকটা মাত্র। বইয়ের পাতার মতো উল্টে নিলে পুরো ফোনের স্ক্রিন আপনার সামনে উন্মুক্ত। বর্ডার কাটছাট করলে সে মাপ পুরো ৭.৩ ইঞ্চি। ফোনটির ফুল স্কিন রেজুলেশেন ২১৫২x১৫৩৬ কিন্তু যখন ভাঁজ করা থাকবে তখন রেজুলেশন হবে ১৯৬০x৪৮০ পিক্সেল।

অনেকই হয়তো চিন্তা করবে মাঝখানে দাগ বা লাইন থাকবে কিন্তু মজার কথা হচ্ছে যে স্ক্রিনে থাকবেনা সামান্য কোনও দাগ কিংবা লাইন, থাকবেনা কোনও রিঙ্কলস, চোখে পড়ার মতো কোনও ক্রিঙ্কলস।

পরবর্তী প্রজন্মের  ও প্রযুক্তি বিলাসিদের জন্য এটা পছন্দের ডিভাইস হবে ধারনা করছে স্যামসাং। আর ফোনটার দাম পড়বে মাত্র ২০০০ ডলার।

সিসিএস ইনসাইটের প্রধান গবেষক বেন উড বলছেন এটা গ্যাজেটপ্রেমীদের চুম্বকের মতো আকর্ষণ করবে। তবে যতই আকর্ষণীয় বলা হোক নতুন ফোনের দাম গ্যালাক্সির সবশেষ সংস্করণ গ্যালাক্সি এস১০+ এর চেয়ে দ্বিগুন।

আইডিসি অ্যানালিস্ট এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ফ্রান্সিসকো জেরোনিমো সে কথাটিই বলেছেন। তিনি বলেছেন, এর মধ্য দিয়ে মানুষ ভবিষ্যতের স্মার্টফোনের আকারটি প্রথম দেখতে পেলো।

স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি এস ফোন তৈরি শুরুর ১০ বছর পূর্তি উদযাপনেই বানানো হয়েছে এই গ্যালাক্সি ফোল্ড। গত দশকটি আইফোনের সঙ্গে সমানে সমান লড়ে গেছে এই গ্যালাক্সি এস। নতুন এই প্রোডাক্ট দিয়ে গ্যালাক্সি ব্র্যান্ড আরও নতুন উচ্চতায় যাবে বলেই মনে করছে দক্ষিণ কোরীয় কোম্পানি স্যামসাং।

-সিনিউজভয়েস/জিডিটি/০৪এম/১৯

Please Share This Post.