পদত্যাগের লটারিতে নাম উঠল মোস্তাফা জব্বার, রাসেল ও ফারহানার

পদত্যাগের লটারিতে নাম উঠল বেসিস কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট রাসেল টি আহমেদ এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট ফারহানা এ রহমানের।

দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের শীর্ষ বাণিজ্য সংগঠনটির গঠনতন্ত্র অনুয়ায়ী ২০১৭-১৮ মেয়াদের তিনটি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠান প্রক্রিয়া শুরু করতেই পদত্যাগ করবেন এই তিন নেতা।

মঙ্গলবার বিকালে রাজধানীর কারওয়ান বাজারস্থ বিডিবিএল ভবনের পঞ্চম তলায় বেসিস কার্যালয়ে এই লটারি অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচন বোর্ড এবং বেসিস সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র লটারির এই ফলাফল নিশ্চিত করেছে।

পদত্যাগ কারা করবেন সে সিদ্ধান্ত হয়ে যাওয়ায় নির্বাচন বোর্ড এখন নমিনেশন আহবান করে নোটিশ দেবেন ২৫ মে।

সংশোধিত গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কার্যনির্বাহী কমিটির সেশন ৩ বছর। সে হিসেবে চলতি সেশন ২০১৬-১৯ সালের আরও এক টার্ম রয়ে গেলেন, বর্তমান কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট উত্তম কুমার পাল, এম রাশিদুল হাসান ও পরিচালক সৈয়দ আলমাস কবির, মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল, সোনিয়া বশির কবির এবং রিয়াদ এস এ হোসেইন।

অন্যদিকে পদত্যাগ করতে হওয়া তিন সদস্যও চাইলে আবার নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারেন। তিন পদে নতুন করে বেসিসের যেকোনো সদস্য নির্বাচন করতে পারবেন। নির্বাচন তফসিল অনুযায়ী ৮ জুলাই হবে নির্বাচন।

সংগঠনটির গঠনতন্ত্র অনুয়ায়ী ৩ বছরের সেশন সময়ে প্রতি টার্মে(প্রতি বছর) কার্যনির্বাহী কমিটি হতে ৩ জন পদত্যাগ করবেন। পদত্যাগ করে শূন্য হওয়া ৩ পদে হবে নির্বাচন। নতুন নির্বাচিত এবং পুরোনো মিলে ৯ পরিচালক নতুন করে কার্যনির্বাহী কমিটির পদের দায়িত্ব নেওয়ার নির্বাচন করবেন।

এর আগে পদত্যাগ নিয়ে সমঝোতা না হওয়ায় এবার ‘পদে থাকার জ্যেষ্ঠতা’র ভিত্তিতে কমিটির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট রাসেল টি আহমেদ, ভাইস প্রেসিডেন্ট এম রাশিদুল হাসান ও পরিচালক উত্তম কুমার পালকে পদত্যাগ করতে চিঠি দিয়েছিল নির্বাচন বোর্ড।

নির্বাচন বোর্ডের ওই সিদ্ধান্তে ‘আপত্তি’ করে আপিল বোর্ডে পুনর্বিবেচনার আবেদন করেছিলেন তারা।

গত বৃহস্পতিবার নির্বাচন বোর্ড আপিল বোর্ডের সিদ্ধান্ত তুলে ধরে চিঠি দিয়ে জানায়, জ্যেষ্ঠতা নয় পদত্যাগ হবে লটারি করে। ওই দিনই কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যরা এ সিদ্ধান্তের চিঠি পান।

 

– তথ্যসূত্র: টেকশহর

Please Share This Post.