নাসায় যাচ্ছে বেসিস স্টুডেন্টস ফোরামের ৮ প্রকল্প

টানা চতুর্থবারের মতো বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস-বেসিস এর উদ্যোগে বেসিস স্টুডেন্টস ফোরামের সহযোগিতায় নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮ জমকালো পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সফলভাবে শেষ হলো নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮। সেরা ৮ বিজয়ী প্রকল্প হলো : ঢাকার-চ্যাম্পিয়ন: টিম গেম চেঞ্জার; রানার্স-আপ: প্ল্যানেট কিট। চট্টগ্রামের-চ্যাম্পিয়ন: টিম কিউ; রানার্স-আপ: টিম মাত্রা। কুমিল্লার-চ্যাম্পিয়ন: টিম ফোটন; রানার্স-আপ: টিম মেটা কোডার্সরংপুর- চ্যাম্পিয়ন: এইচএসটিইউ মেট্রোয়েড। সিলেটের- চ্যাম্পিয়ন: টিম অলিক।

এবার বাংলাদেশের ৯টি শহর থেকে দুই হাজারেরও বেশি প্রকল্প জমা পড়ে প্রতিযোগিতায়। সেখান থেকে শীর্ষ ৪০টি প্রকল্পকে নিয়ে ইন্ডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশে ১৯-২০ অক্টোবর টানা দুইদিনব্যাপী হ্যাকথন অনুষ্ঠিত হয়েছে ।

৩৬ ঘন্টা টানা হ্যাকথন আয়োজনের পর ২০ অক্টোবর (শনিবার) রাত আটটায় জমকালো পুরষ্কার বিতরণি অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মাননীয় ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। আরো উপস্থিত ছিলেন বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর, জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ফারহানা এ রহমান, সহ-সভাপতি (প্রশাসন) শোয়েব আহমেদ মাসুদ, বেসিসের সহ-সভাপতি (অর্থ) মুশফিকুর রহমান, পরিচালক তামজিদ সিদ্দিক স্পন্দন, নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮ এর আহ্বায়ক ও বেসিস পরিচালক দিদারুল আলম এবং নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০১৮ এর যুগ্ম আহ্বায়ক আরিফুল হাসান অপু।

উল্লেখ্য,  যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল অ্যারোনটিক অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্র্রেশন-নাসা আন্তর্জাতিকভাবে বিশ্বের ২৫০টি শহরে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে, যেখানে বেসিস বাংলাদেশের ৯টি শহরে (ঢাকা, চট্রগ্রাম সিলেট, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, রংপুর, ময়মনসিংহ এবং কুমিল্লা) এ আয়োজন করেছে। নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জে এবার ৫০ লাখ শিক্ষার্থীদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যুক্ত করার পাশাপাশি ১ লাখ শিক্ষার্থীদের সরাসরি এ প্রতিযোগিতায় যুক্ত করার পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়।

তবে অনুষ্ঠানের বিজয়ী ৮টি দল কবে নাসায় অংশগ্রহন করবে সে সম্পর্কে তেমন কিছু জানানো হয়নি।

-গোলাম দাস্তগীর তৌহিদ
Please Share This Post.