নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে তথ্যপ্রযুক্তির ইভেন্ট সাইবারনটস

ঢাকার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে ২৮-৩১ অক্টোবর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়ে গেল তথ্যপ্রযুক্তির ইভেন্ট ‘সাইবারনটস’।

অনুষ্ঠানটিতে চারটি অংশ ছিল- লাইন ফলোয়ার রোবটিক্স প্রতিযোগিতা, জাতীয় প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা, ইঞ্জিনিয়ারিং প্রজেক্ট শোকেস এবং সাইবার অ্যাথলেটিকস। ইভেন্টটি স্পন্সর করেছে ইউসিসি।

লাইন ফলোয়ার রোবটিক্স প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়েছে ২৮ অক্টোবর। এ প্রতিযোগিতায় ৯৫টি দল অংশ নেয়, এতে কালো দাগ দেয়া গতিপথ চিনতে পারবে এমন রোবট বানাতে হয়েছে। ব্রিজ ও তীক্ষ্ণ বাঁকযুক্ত একটি গোলকধাঁধা স্বচালিত রোবট যানকে লাইনের বাইরে না গিয়ে অতিক্রম করতে হয়েছে। অধিকাংশ প্রতিযোগী ছিলেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির। বিজয়ী দলকে পঁচিশ হাজার টাকা এবং দ্বিতীয় স্থান অধিকারী দলকে পনের হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে। এই প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয়েছে ‘ডুয়েট রোবো এক্সপ্রেস’।

ইঞ্জিনিয়ারিং প্রজেক্ট শোকেসে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক দল অংশ নেয়। এই প্রতিযোগিতায় তিন সদস্যের ১৬টি দল, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিসহ আরো অনেক নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে। এরপর ২৮ অক্টোবর বেলা তিনটায় বুদ্ধিদীপ্ত অংশগ্রহণকারীরা তাদের উদ্ভাবনী প্রজেক্টগুলো প্রদর্শন করে। প্রধান বিচারক নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়, ইসিই ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যানসহ ছয়জন। বিচারকগণ তাদের উদ্ভাবন, কার্যকারিতা ও বাংলাদেশে উৎপাদন মূল্য বিবেচনা করে হার্ডওয়ার প্রোজেক্টগুলো এবং মূল্য, সহজলভ্যতা, দৈনিক ব্যবহার ও অগ্রগতির ভিত্তিতে সফটওয়ার প্রোজেক্টগুলো মূল্যায়ন করেন। আহসানুল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আসা দল ইনফিনিটি অসাধারণ একটি উদ্ধারকারী ‘বট’ বানিয়ে বিজয়ী হয়। দ্বিতীয় হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ডি ইউ ট্রিকু এট্রা’ এবং তৃতীয় হয় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘টিম স্পার্ক’ দল।

জাতীয় প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় ১১৯টি দলের প্রোগ্রাম ডিবাগিং দক্ষতা পরীক্ষা করা হয়। এতে পাইথন ও অন্যান্য ভাষাও ছিল। প্রতিযোগীদের ৯টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়েছে। সঠিক উত্তর ও সময়ের ভিত্তিতে এসিএমআইপিইসি-র নিয়ম অনুসারে বিচারকগণ নম্বর দিয়েছেন। প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় এনএসইউ, রুয়েট, এমআইএসটি, কুয়েট, বুয়েট, ব্র্যাক এবং এইউএসটি এর শিক্ষার্থীরাও এতে অংশ নেয়। বিজয়ী দল ‘ডি ইউ সেন্সরড’ ত্রিশ হাজার টাকা পুরষ্কার পায়। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারী দল ‘লল’ ও ‘বুয়েট অমিনিট্রিক্স’ যথাক্রমে বিশ হাজার ও দশ হাজার টাকা পুরষ্কার পায়। চতুর্থ থেকে দশম স্থান অধিকারী দলগুলো হলো- ডিইউ_স্লিদারিন, এনএসইউ অ্যারিসটোক্রেটস, আইইউটি_০(১), মিরেজ, ডিইউ_র‍্যান্ডমভ্যারিয়েবলস, বুয়েট রায়ো এবং সাস্ট_রনো এরা প্রত্যেকে ছয় হাজার টাকা করে পুরষ্কার পায়।

সাইবার অ্যাথলেটিকের অন্তর্গত ছিল ৭টি পাইথন ভাষার গেমঃ লিগ অব লেজেন্ডস, ডোটা ২, সিএস গো ২, স্ট্রিট ফাইটার, ফিফা, কল অফ ডিউটি ৪ এবং এনএফএস। এ প্রোগ্রামে ৬৪টি জিটিএক্স ১০৮০ গেমিং পিসি ব্যবহার করা হয়েছে। বিজয়ীদের মাঝে প্রায় দেড় লাখ টাকা প্রাইজমানি এবং এএমডি গ্রাফিক্স কার্ড, কম্পিউটার, মনিটর, হুয়াই ট্যাবলেট, থ্রিজি মডেম রাউটার এবং পাওয়ার ব্যাংক ইত্যাদিসহ সর্বো মোট ৩ লাখ টাকা সমমূল্যের উপহার বিতরণ করা হয়েছে। ২০০টি টিম এবং খেলোয়ার এ প্রতিযোগীতায় রেজিস্ট্রেশন করেছিলেন।

সাইবারটনস ২০১৬ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, চেয়ারম্যান বোর্ড অব ট্রাষ্টিস (এনএসইউ) আজিম উদ্দিন আহমেদ, জাতীয় সংসদের সদস্য নাহিম রাজ্জাক (এমপি), ভিপি এনএসইউ প্রফেসর আতিকুল ইসলাম, ডিরেক্টর অবঃ স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার এম এমদাদুল হক এবং ফ্যাকাল্টি উপদেষ্টা এনএসইউ (ইসিই) শারমিন জামান।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.