নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনে এটুআই’র সঙ্গে সিটিও ফোরাম

২৯ জানুয়ারি সোমবার, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়স্থএসএসএফ ব্রিফিং রুমে জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ফ্রেমওয়ার্ক ও আর্কিটেকচার তৈরি এবং কার্যকর করার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রামের সঙ্গে সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ- এর একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) এবং এটুআই প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার এবং সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ- এর সভাপতি তপন কান্তি সরকার নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেন।

জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ফ্রেমওয়ার্ক ও আর্কিটেকচার তৈরি এবং কার্যকর করার লক্ষ্যে এটুআই প্রোগ্রাম এবং সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ-এর মধ্যে বিভিন্ন পর্যায়ে সহযোগিতা প্রয়োজন। এ সমঝোতা স্মারকের আওতায়,এটুআই প্রোগ্রাম এবং সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ যৌথভাবে নতুন প্রযুক্তির উদ্ভাবন, এন্টারপ্রাইজ আর্কিটেকচার, ফাইনান্সিয়াল ইনক্লুশন, সাইবার নিরাপত্তা ইত্যাদি বিষয়ে পারস্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে কাজ করবে। এছাড়া পারস্পরিক সহায়তার স্থায়িত্ব বজায় রাখার জন্য গবেষণার মাধ্যমে সমস্যাসমূহ চিহ্নিত করে সমাধান কিভাবে করবে তা নির্ণয়ে সহযোগী ইকো-সিস্টেম তৈরি করে উভয় পক্ষ একসঙ্গে কাজ করবে।

সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ- একটি অলাভজনক, অরাজনৈতিক, পেশাগত প্রতিষ্ঠান যেখানে এই ফোরামের মেধাবী, প্রগতিশীল ও কর্মদক্ষতা সম্পন্ন সদস্যগণ আর্থিক ও প্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন ও সমস্যা সমাধানে কাজ করে। পাশাপাশি উন্নত ও সমসাময়িক প্রযুক্তি, সাইবার নিরাপত্তা, এন্টারপ্রাইজ আর্কিটেকচার ইত্যাদি বিষয়ে গবেষণার মাধ্যমে সমস্যা নিরূপণ করে কিভাবে সমাধান করা যাবে তা উদ্ভাবন করে।

এটুআই প্রোগ্রাম ব্লকচেইন, বায়োমেট্রিক ডাটার মতো উদীয়মান প্রযুক্তির গবেষণা করার পাশাপাশি তা ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে সফল করার জন্য সরকারের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনে সাহায্য করবে। গবেষণা ও উন্নয়নের জন্য আইসিটি ইন্ডাস্ট্রিজ, বিশেষজ্ঞ এবং সরকারি/বেসরকারি এজেন্সিকে যুক্ত করবে। এটুআই প্রোগাম জাতীয় পরিচয়পত্রের মাধ্যমে লেনদেন প্রক্রিয়া উন্নয়নে কাজ করবে। এটুআই প্রোগাম কর্মশালা, সভা, সেমিনার পরিচালনা করবে এবং সমগ্র প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে সহায়তা করবে সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ। আইসিটির উদ্যোগগুলোর সঙ্গে সম্পৃক্ত স্টেকহোল্ডারদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করবে। আর্থিক খাতে ই-সেবার জন্য সাধারণ নীতি উন্নয়ন পদ্ধতি প্রণয়নে সাহায্য করবে। এ সমঝোতা স্মারকের আওতায় সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞ, নীতিনির্ধারক উদ্যোক্তা, ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং কারিগরি সম্প্রদায়ের সঙ্গে জড়িত উদ্যোগের সংরক্ষণ করবে। বাংলাদেশে আর্থিক দিক দিয়ে সম্পৃক্ত ডোমেইনগুলোকে অন্তর্ভুক্তকরণে সচেতনতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে।

রূপকল্প-২০২১ তথা ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্যে বিভিন্ন নাগরিক সেবাসমূহকে ই-সেবায় রুপান্তরের মাধ্যমে জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেয়ার জন্য এটুআই প্রোগাম কাজ করে যাচ্ছে। ই-সেবাসমূহকে আরো যুগোপযোগী, নিরাপদ ও আন্তঃচালিত করার জন্য সেবাসমূহকে এন্টারপ্রাইজ আর্কিটেকচারের আওতায় আনার জন্য জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ফ্রেমওয়ার্ক ও আর্কিটেকচারের যেমন অফিস ইনফরমেশন অ্যান্ড সার্ভিস ফ্রেমওয়ার্ক (ওয়াইএসএফ), ল্যান্ড ইনফরমেশন অ্যান্ড সার্ভিস ফ্রেমওয়ার্ক (এলআইএসএফ), বিজনেস ইনফরমেশন অ্যান্ড সার্ভিস ফ্রেমওয়ার্ক (বিআইএসএফ), বাংলাদেশ সার্ভিস অ্যাপ্লিকেশন প্লাটফর্ম (বিএসএপি), ন্যাশনাল পোর্টাল ফ্রেমওয়ার্ক (এনপিএফ) ইত্যাদি তৈরি করা হচ্ছে। তাছড়া এই প্রোগ্রামের আওতায় ভাতা ব্যবস্থাপনা, জাতীয় পরিচয় পত্র, উত্তম লেনদেন ব্যবস্থার সিস্টেমসহ সংশ্লিষ্ট কাজে তথ্য নিরাপত্তা, প্রযুক্তির আদর্শমান অনুসরণসহ প্রযুক্তি ক্ষেত্রে অধিকতর বিশ্লেষণ করা যাবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই প্রোগ্রামের আইটি ম্যানেজার মো. আরফে এলাহী, এটুআই প্রোগ্রাম ও সিটিও ফোরাম বাংলাদেশ- এর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.