দেশে প্রথমবারের মতো ফ্রিল্যান্সার কার্ড চালু


ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড, মাস্টারকার্ড ও বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার সার্ভিসসের (বেসিস) সহযোগিতায় দেশে প্রথমবারের মতো ‘স্বাধীন’ নামে একটি ফ্রিল্যান্সার কার্ড চালু করেছে। যাঁরা ফ্রিল্যান্সিং করেন তাঁরা এখন থেকে এই কার্ডের মাধ্যমে সরাসরি বৈধ উপায়ে তাঁদের আন্তর্জাতিক নিয়োগদাতাদের কাছ থেকে আয়ের অর্থ গ্রহণে সক্ষম হবেন। মাস্টারকার্ডের স্থানীয়ভাবে ইস্যু করা এই কার্ডের মাধ্যমে তাঁরা অত্যšত সহজে, নিরাপদে ও নির্বিঘে বৈদেশিক মুদ্রায় তাঁদের কাজের তথা আয়ের অর্থ গ্রহণ করতে পারবেন। এই কার্ডের বৈশিষ্ট্যগুলোর মধ্যে অন্যতম একটি হলো, এর মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সাররা তাঁদের আয়ের একটা বড় অংশ (৭০ শতাংশ পর্যন্ত) মার্কিন ডলারে রাখতে পারবেন, যা পরবর্তীতে অনলাইনে কেনাকাটা/ই-কমার্স সংক্রান্ত লেনদেনের প্রয়োজনে ব্যবহার করা যাবে।

বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় ৬৫০,০০০ ফ্রিল্যান্সার রয়েছেন। এর মধ্যে ৫০০,০০০ জনই কাজ করছেন মাসিক আয়ের ভিত্তিতে। ‘স্বাধীন’ কার্ডটি এই সম্প্রদায়কে নিরাপদ ইকোসিস্টেমের মাধ্যমে আইনসিদ্ধ উপায়ে নিজেদের আয়ের অর্থ গ্রহণে স্বাধীনতা এনে দেবে যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে একটি ডিজিটাল ক্ষমতাসম্পন্ন সম্প্রদায় তৈরী হবে।

‘স্বাধীন’ কার্ডটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস. এম. মনিরুজ্জামান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের চেয়ারম্যান এ রউফ চৌধুরী; প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. আরফান আলী; বেসিসের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির; মাস্টারকার্ড ইন্ডিয়ার কান্ট্রি করপোরেট অফিসার ও সাউথ এশিয়া ডিভিশন প্রেসিডেন্ট পোরুষ সিং; মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস. এম. মনিরুজ্জামান বলেন, ‘এটি মাস্টারকার্ড ও ব্যাংক এশিয়ার একটি চমৎকার উদ্যোগ। আমরা যখন বাংলাদেশকে ডিজিটাল দেশ হিসেবে গড়ে তুলছি তখনই তারা এমন সময়োপযোগী উদ্যোগটি নিল, যা আমাদের আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপটে ভীষণ জরুরি। আমি আশা করি, ‘স্বাধীন’ নামের নতুন এই কার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে দেশের শত-সহস্র ফ্রিল্যান্সার ভীষণ উপকৃত হবেন। কারণ এতদিন তাঁদেরকে বৈধ চ্যানেলের বাইরে গিয়ে নিজেদের কষ্টার্জিত অর্থ আনতে বেগ পেতে হতো। যা-ই হোক, নতুন কার্ডটি চালুর ফলে এখন থেকে ফ্রিল্যান্সারদের অর্থ আনার ক্ষেত্রে বিদ্যমান সকল বাধা দূর হলো।’’

ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের চেয়ারম্যান এ রউফ চৌধুরী বলেন, “সমাজের সব মানুষকে উন্নত মানের সেবা প্রদান এবং জাতীয় অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি ও সম্প্রসারনে ব্যাংক এশিয়া সবসময় নতুন এবং প্রযুক্তি নির্ভর উদ্ভাবনী ব্যাংকিং প্রোডাক্ট প্রদান করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকের এই ফ্রিল্যান্সার কার্ড উন্মোচন।”

ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি)  মো. আরফান আলী বলেন, “ফ্রিল্যান্সারদের অর্জিত অর্থ বৈধ উপায়ে দেশে আনার জন্য ফ্রিল্যান্সার কার্ড ‘স্বাধীন’ উন্মোচন করা হয়েছে। এর সাথে সম্পৃক্ত হতে পেরে ব্যাংক এশিয়া আনন্দিত ও গর্বিত।”

অনুষ্ঠানে বেসিসের সভাপতি  সৈয়দ আলমাস কবির বলেন, ‘‘ই-কমার্সে বাংলাদেশ বর্তমানে উন্নতির দোরগোড়ায় পৌছে গেছে। আমরা বিশ্বাস করি, মাস্টারকার্ডের মতো কোম্পানির সমর্থন ও সহায়তায় বেসিস এ দেশের ই-কমার্স খাতকে অধিকতর সমৃদ্ধি অর্জনের দিকে নিয়ে যেতে গুরূত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।’’

মাস্টারকার্ড ইন্ডিয়ার কান্ট্রি করপোরেট অফিসার ও সাউথ এশিয়া ডিভিশন প্রেসিডেন্ট  পোরুষ সিং বলেন, ‘‘ ব্যাংক এশিয়া লিমিটেডের সাথে আমাদের এই পার্টনারশীপ নগদ অর্থবিহীন বিশ্ব নির্মাণের অঙ্গীকারকে পুনর্ব্যক্ত করছে। ‘স্বাধীন’ নামের এই কার্ডটি ফ্রিল্যান্সিং সম্প্রদায়কে বৈধ উপায়ে অর্থ গ্রহণ এবং ক্ষমতায়নের স্বাধীনতা দিবে। আমরা এই পার্টনারশীপে ভীষণ আনন্দিত এবং বিশ্বাস করি, প্রচুর সুযোগ-সুবিধা সংবলিত এসব কার্ড প্রচলনের ফলে আমরা আমাদের সেবায় বৈচিত্র্য আনতে পারবো যা আমাদের সম্মাণিত গ্রাহকদের চাহিদা পূরণে বিশেষ সহায়ক হবে।’’

একই অনুষ্ঠানে ব্যাংক এশিয়ার সহযোগিতায় মাস্টারকার্ডের আরও নতুন চারটি ডেবিট, ক্রেডিট ও প্রি-পেইড কার্ডের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। গ্রাহকদের সর্বোচ্চ মানের সেবা দিতেই মাস্টারকার্ড ও ব্যাংক এশিয়ার এসব নতুন কার্ড প্রচলনের এই প্রচেষ্টা। অপ্রতিদ্বন্ধী বৈশিষ্ট্যমন্ডিত নতুন এই কার্ডগুলো হচ্ছে মাস্টারকার্ড টাইটানিয়াম ক্রেডিট কার্ড, মাস্টারকার্ড প্লাটিনাম ডেবিট কার্ড, মাস্টারকার্ড গোল্ড ডেবিট কার্ড ও মাস্টারকার্ড প্রি-পেইড কার্ড। এসব কার্ড ব্যবহারে গ্রাহকেরা কেনাকাটাসহ তাঁদের দৈনন্দিন জীবনে দারুণ সব সুযোগ-সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। যেমন নতুন কার্ডগুলো ব্যবহারে দেশের ভেতরে ১,৮০০ আউটলেটে মূল্যছাড়সহ বিভিন্ন সুবিধা পাবেন। সেই সাথে কক্সবাজার ও সিলেটের শীর্ষস্থানীয় হোটেলগুলোতে বোগো (বাই-ওয়ান-গেট-ওয়ান) অর্থাৎ হোটেলে অতিরিক্ত রাত বিনামূল্যে থাকার সুবিধা নিতে পারবেন। এ ছাড়া বিশ্বজুড়ে ৮৫০টিরও বেশি লাউঞ্জের প্রধান অফারগুলোসহ মূলছাড় ও নানাধরনের সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যাবে।

নতুনভাবে চালু করা মাস্টারকার্ডের এসব ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ডে বাড়তি কিছু সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। যেমন ডুয়েল কারেন্সি কার্ড, কার্ড চেক, ডাবল ক্রেডিট শিল্ড প্রিমিয়াম, ট্র্যানজেকশন অ্যালার্ট (লেনদেন করা মাত্রই তা এসএমএসের মাধ্যমে জানানো), ফ্রি এসএমএস সার্ভিস, ইন্টারনেট ব্যাংকিং, ৪৫ দিন পর্যন্ত ইন্টারেস্ট ফ্রি ট্র্যানজেকশন (কেনাকোটা ও চেকের মাধ্যমে অর্থ উত্তোলনে কোনো সুদ দিতে হবে না), ই-স্টেটমেন্ট, অটো ডেবিট ফ্যাসিলিটিজ বা স্বয়ংক্রিয়ভাবে অর্থ জমা দেওয়া, ২৪ ঘণ্টা কল সেন্টার, ফ্রি বিনামূল্যে সাপ্লিমেন্টারি কার্ড প্রাপ্তি, ই-ফান্ড ট্রান্সফার, বিইএফটিএনের মাধ্যমে ক্রেডিট কার্ডে রিপেমেন্ট, জীবন বীমা সুবিধা এবং ই-কমার্স ট্র্যানজেকশনসহ আরো নানা সুযোগ-সুবিধা রয়েছে।

সিনিউজভয়েস//ডেস্ক/


Please Share This Post.