দেশে প্রথমবারের মতো ডিজিটাল ইসলামী ওয়ালেট চালু


দেশে প্রথমবারের মতো ‘ডিজিটাল ইসলামী ওয়ালেট’ সেবা চালু করার লক্ষ্যে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক ও আর্থিক প্রযুক্তিগত সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ডিমানি।

ব্যাংকিং সেবার বাইরে রয়েছেন এমন সব মানুষদের জন্য ‘ডিজিটাল ইসলামী ওয়ালেট’ সেবা যুক্ত করে দেশে বিদ্যমান ব্যাংকিং সেবায় সম্প্রসারিত নতুন দিগন্ত তৈরি হলো।

ডিজিটাল ওয়ালেট চালু করার মধ্য দিয়ে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের সেবা সম্প্রসারিত হওয়ার পাশাপাশি আরো বেশি মানুষের কাছে পৌঁছানো সুযোগ হলো। চুক্তি অনুযায়ী, ক্যাশ-ইন, ক্যাশ-আউট, মোবাইল এয়ারটাইম টপ-আপ, বিল পরিশোধ, মার্চেন্ট পেমেন্ট, ইন্সুরেন্স প্রিমিয়াম পেমেন্ট, মোবাইল ওয়ালেট মানি ট্রান্সফার, ব্যাংক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে সংযুক্ততা, তৃতীয়-পক্ষ সফটওয়্যার সংযুক্ততা, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা উত্তোলন, টিউশন ফি পরিশোধ, এনএফসি পেমেন্ট, কিউআর পেমেন্ট, দান ও আন্তর্জাতিক লেনদেনসহ অন্যান্য আরো পেমেন্ট সেবা প্রদান করবে ডিমানি।

এছাড়াও, ব্যাংকিং সেবার বাইরের জনগোষ্ঠীর বেতন ব্যবস্থাপনায় সহায়তা করবে ‘ডিজিটাল ইসলামী ওয়ালেট’। উক্ত ওয়ালেটে ব্যবহারকারীদের জন্য রিওয়ার্ড পয়েন্ট সুবিধাও রাখা হবে।

এ নিয়ে ডিমানি’র চেয়ারম্যান অঞ্জন চৌধুরী বলেন, ‘আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের অংশীদারিত্বে দেশে প্রথমবারের মতো ‘ইসলামী ওয়ালেট’ চালু করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। বাংলাদেশে আমাদের শরীয়াহভিত্তিক প্রচুর গ্রাহক রয়েছেন এবং আমাদের লক্ষ্য এ গ্রাহকদের সেবাদান করা। ডিমানি তিনটি বিষয়ের ওপর জোর দিয়ে কাজ করছে, প্রথমত, অন্তর্ভুক্তি: ব্যাংকিং সুবিধা থেকে বঞ্চিত সবাইকে ব্যাংকিং সেবার আওতায় নিয়ে আসার পাশাপাশি, শরীয়াহভিত্তিক ব্যাংকিং ব্যবস্থা গ্রহণে আগ্রহীদের সেবাদান। দ্বিতীয়ত, সরকার থেকে শুরু করে সাধারণ নাগরিকের ডিজিটালকরণ এবং তৃতীয়ত, শহর থেকে গ্রামাঞ্চলে সবার ক্ষমতায়ন। ডিমানি বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান, আমাদের কার্যকরী সফটওয়্যারও বাংলাদেশে এবং বাংলাদেশিদের দ্বারা বানানো। আমরা শুধুমাত্র দেশের গ্রাহকদের নিয়েই কাজ করবো না পাশাপাশি, বৈশ্বিক গ্রাহকদের নিয়েও কাজ করবো। আমরা অতি শিগগির আন্তর্জাতিক অঙ্গণে আমাদের প্রবেশের সুসংবাদ নিয়ে আসবো। আমাদের লক্ষ্যে আস্থা রাখার জন্য আমি আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও তার টিমকে ধন্যবাদ জানাই। আমি তাদের সাথে দেশজুড়ে ইসলামী ওয়ালেট চালু করার ব্যাপারে অত্যন্ত আশাবাদী।’

এ চুক্তিস্বাক্ষর নিয়ে আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান আলহাজ আবদুস সামাদ বলেন, ‘আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের সেবার সম্প্রসারণ, নতুন ডিপোজিট সংগ্রহ এবং আধুনিক ব্যাংকিং ব্যবস্থায় সংযুক্ত হওয়ার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে এ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। মোবাইল অ্যাপ, সোশ্যাল নেটওয়ার্ক, ওয়েব পোর্টাল, কার্ড প্রসেসিং, পিওএস, এনএফসি এবং কিউআর পেমেন্টসে ডিমানির দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা আমাদের গ্রাহকদের আগের চেয়েও উন্নত সেবাদানে সহায়তা করবে।’

এ চুক্তি নিয়ে ডিমানি’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও ভাইস চেয়ারম্যান সোনিয়া বশির কবির বলেন, ‘ডিজিটালও শরীয়াহ ভিত্তিক হতে পারে এবং ইসলামী ফাইন্যান্স, ফিনটেক (ফাইন্যান্সিয়াল টেকনোলোজি) এর ক্ষেত্রে অত্যন্ত ফলপ্রসূ। ইসলামী ফাইন্যান্সের অন্যতম সুবিধা হচ্ছে ‘অন্তর্ভুক্তি’ এবং ‘ডিজিটাল স্ট্রাটেজি’ এর সুযোগকে উন্মুক্ত করে। শরীয়াহভিত্তিক গ্রাহকদের চাহিদা ও প্রয়োজন পূরণে ইসলামী ফাইন্যান্সের জন্য ডিজিটাল উদ্ভাবন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আল-আরাফহ ইসলামী ব্যাংকের অংশীদারিত্বে ডিমানি দেশে প্রথমবারের মতো ইসলামী ওয়ালেট নিয়ে এসেছে, এজন্য আমি অত্যন্ত আনন্দিত।’

ডিমানি বাংলাদেশের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরেফ বশির বলেন, ‘আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের সাথে বাংলাদেশে ইসলামী ওয়ালেট মডেলের যাত্রা শুরু করতে পেরে ডিমানি অত্যন্ত আনন্দিত। সদস্য ব্যাংকগুলোকে আমরা আহ্বান জানাই যেনো ডিজিটাল পেমেন্টের ক্ষেত্রে গ্রাহকদের আমরা সম্পূর্ণ নতুন ও স্বাচ্ছন্দ্যপূর্ণ সুবিধা প্রদান করতে পারি।’

আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের ইভিপি ও সিটিও সৈয়দ মাসুদুল বারী বলেন, ‘শরীয়াহ ব্যাংক হিসেবে আমরা ইসলামী ব্যাংকিং- এর সকল নিয়ম অনুসরণ করি। ডিমানি’র সঙ্গে দেশে প্রথমবারের মতো ইসলামী ওয়ালেট নিয়ে আসতে পেরে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। আমরা এ অংশীদারিত্ব নিয়ে রোমাঞ্চিত এবং আমাদের গ্রাহকদের প্রয়োজনে অনুধাবন করে সেবা প্রদানে আমরা অত্যন্ত আশাবাদী।’

এ চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিমানি’র চেয়ারম্যান অঞ্জন চৌধুরী, প্রতিষ্ঠানটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও ভাইস চেয়ারম্যান সোনিয়া বশির কবির, প্রতিষ্ঠানটির সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরেফ বশির, আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের চেয়ারম্যান আলহাজ আবদুস সামাদ, ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. হাবিবুর রহমান এবং ব্যাংকটির ইভিপি ও সিটিও সৈয়দ মাসুদুল বারী।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক