দেশে প্রথমবারের মতো কমপ্লায়েন্স উৎসব অনুষ্ঠিত


বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো তৈরী পোশাক শিল্পসহ বিভিন্ন শিল্পখাতের কমপ্লায়েন্স পেশাজীবিদের অংশগ্রহণে ‘ফার্স্ট ন্যাশনাল কমপ্লায়েন্স কার্নিভাল-২০১৮’ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২০ এপ্রিল, ঢাকার আন্তর্জাতিক কনভেনশন সিটি অব বসুন্ধরা’র নবরাত্রি হলরুমে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে ইনস্টিটিউট অব কমপ্লায়েন্স প্রফেশনালস (আইসিপি)। দিনব্যাপী নানা আয়োজনের এই অনুষ্ঠানে বিভিন্ন রপ্তানীমুখী শিল্পখাত থেকে প্রায় ১৩০০ পেশাজীবি অংশগ্রহণ করেন।

আইসিপি’র মুখপাত্র ও উৎসব আয়োজনের আহ্বায়ক শায়লা আশরাফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন জার্মান অ্যাম্বাসির ডেপুটি হেড অব মিশন মাইকেল শুলতেইস, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ড. মো. আনোয়ার উল্লাহ, এক্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এর প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ হাতেম প্রমুখ ও বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘জাতির জনক কন্যা শেখ হাসিনা সরকারের বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশের অগ্রগতি গতি পেয়েছে। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। এই গতির ধারা অব্যাহত রাখতে, জাতীয় অর্থনীতিতে শিল্পখাতের অবদান বাড়াতে ও টেকসই উন্নয়নের ক্ষেত্রে প্রত্যেকেরই স্ব-স্ব অবস্থান থেকে অবদান রাখতে হবে। রানা প্লাজা ট্র্যাজেডির পরবর্তীতে তৈরী পোশাক শিল্পখাতে কমপ্লায়েন্স ইস্যুতে যে চাপ এসেছিল আমরা তাতে ভীত হইনি। কমপ্লায়েন্সকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে আমরা সকল বাঁধাকে অতিক্রম করেছি। এখন বাংলাদেশের পোশাক শিল্প শুধু আমাদের প্রধান আয়ের খাতই নয়, আমাদের গর্বও।’

সারা দিনব্যাপী নানা আয়োজনে ২০২১ এর পোশাক রপ্তানী লক্ষ্যমাত্রা ৫০ বিলিয়ন ডলার অর্জনে কমপ্লায়েন্স পেশাজীবিদের ভুমিকা নির্ধারণ ও নিশ্চিতকরণে করনীয় নির্ধারণ, নারী ক্ষমতায়নসহ সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল (এসডিজি) অর্জনে সচেতনতা বৃদ্ধি, পরিবেশগত কমপ্লায়েন্সের বর্তমান অবস্থা, প্রত্যাশা ও টেকসই পরিবেশ কমপ্লায়েন্স নিশ্চিত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণসহ বিভিন্ন বিষয়ে তিনটি প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

এসব আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মাসকো গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক মাহবুবুল আলম মিল্টন, বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজির প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর ড. আইয়ূব নীব, অতিরিক্ত সচিব তপন কুমার ঘোষ, ব্যাংক এশিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক এরফান আলি, এলিভেট এর কান্ট্রি ম্যানেজার মামুন জামান, জিআইজেড এর উপদেষ্টা মঞ্জুর মোর্শেদ, এসএনবি নেদারল্যান্ডের ওয়ার্কিং উইথ উইম্যান প্রজেক্টের টিম লিডার ফারথিবা রাহাত খান, সাজিদা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক জাহিদা কবির ফিজা, মার্কস অ্যান্ড স্পেন্সার এর বাংলাদেশ ও মিয়ানমার কান্ট্রি হেড স্বপ্না ভৌমিক, কেয়ারফোর এর রিজিওনাল ম্যানেজার থমাস র‌্যাডাল, বিজিএমইএর ডেপুটি সিনিয়র সেক্রেটারি মনোয়ার হোসাইন, পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. নুরুল কাদের, বেজা’র নির্বাহী সদস্য এমদাদুল হক, নর্দান তশরিফা গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মহিম হাসান এবং হোয়েনস্টিন ইনস্টিটিউটের  দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক প্রধান ড. মোহাম্মদ কামরুজ্জামান প্রমুখ।

সারাদিন উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত এই উৎসবে সকলের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের পোস্টগুলো ছিল চোখে পরার মতো। উপস্থিত পেশাজীবীরা আরএমজি টাইমসের প্রতিনিধির সঙ্গে একান্ত আলোচনায় আইসিপি এর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং তারা আশা করেন ভবিষ্যতে এরকম আরো অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে আরএমজি টাইমস এর সম্পাদক ও কার্নিভালের সদস্য সচিব আব্দুল আলিম সকলকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য ধন্যবাদ জানান। সব শেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটির পরিসমাপ্তি ঘটে।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক