দেশের ২ মিলিয়নেরও বেশি মানুষের কাছে টনিক

গ্রামীণফোন ও টেলিনর হেলথের ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবা টনিক অতি সম্প্রতি দুই মিলিয়ন গ্রাহকের মাইলফলক স্পর্শ করেছে। বাংলাদেশের মানুষের স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপনে সচেতন করে তুলতে এবং সুস্বাস্থ্য বিষয়ক নানা সুবিধা দিতে যাত্রা শুরু করে টনিক। শুরুর মাত্র এক বছরেরও কম সময়ের মধ্যে দুই মিলিয়নের এ মাইলফলক অর্জন করেছে ডিজিটাল স্বাস্থ্য সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানটি।

গত বছরের ডিসেম্বর মাসে সবচেয়ে বেশি প্রবৃদ্ধি ঘটে টনিকের। ৬ লাখ ৩৯ হাজারের বেশি গ্রামীণফোন গ্রাহক টনিক সদস্য হয়। প্রতিদিনের ভালো থাকা নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের সঙ্গে সম্পৃক্ততা বাড়াতে টনিক গত নভেম্বরে ‘লেট’স মুভ বাংলাদেশ’ প্রচারণা চালায়। দুই মিলিয়ন গ্রাহক হবার ক্ষেত্রে এটাও গুরুত্বপুর্ণ ভূমিকা পালন করে। রোগ প্রতিরোধ করে স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপনে সচেতনতা বৃদ্ধিতে এবং এ নিয়ে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণে টনিকের অভিনব ডিজিটাল ও মোবাইল চ্যানেল ব্যবহার করতে উদ্বুদ্ধ করতেই ‘লেট’স মুভ বাংলাদেশ’ প্রচারণা চালানো হয়।

টনিকের প্রবৃদ্ধি ঢাকাসহ দেশের শহরাঞ্চলগুলোতে দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে যাচ্ছে। উদাহরণস্বরূপ, টনিকের ১৯ শতাংশ সদস্য বগুড়া থেকে এবং ১৪ শতাংশ সদস্য রাজশাহীর।

২০১৬ সালে টনিকের চারটি অভিনব ফিচারের – ক্যাশ, ডিসকাউন্ট, জীবন ও ডাক্তার – প্রতিটি মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যসেবাদানে সুযোগ বৃদ্ধিতে উন্নতি ঘটিয়েছে। এছাড়াও, সহযোগী বিমা প্রতিষ্ঠান প্রগতি লাইফের সহযোগিতায় টনিকের আর্থিক বিমার মাধ্যমে গ্রামীণফোন ও টেলিনর হেলথ সাড়ে ৭ লাখ টাকার বেশি হাসপাতাল খরচ পরিশোধ করেছে। এছাড়াও, টনিকের অংশীদার ২শ’র বেশি হাসপাতাল, ডায়াগনোস্টিক সেন্টার এবং ফার্মেসিতে ডিসকাউন্টের মাধ্যমে গ্রামীণফোন গ্রাহকরা স্বাস্থ্য ও ভালো থাকার খরচ কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে ৪০ লাখ টাকা সঞ্চয় করতে পেরেছে।

দেশজুড়ে টনিকের চাহিদা ও সাফল্যে অত্যন্ত আনন্দিত টেলিনর হেলথের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সাজিদ রহমান। তিনি বলেন, ‘নতুন সব ডিজিটাল ও মোবাইল সেবা গ্রহণে বাংলাদেশিরা অত্যন্ত উৎসাহী। এর প্রমাণ তারা দিয়েছে। এ দেশের মানুষ সুস্থ ও ভালো থাকার সেবা গ্রহণের সুযোগ বৃদ্ধির ক্ষেত্রে প্রযুক্তি ব্যবহারে অত্যন্ত উদার। এ নিয়ে আমরা অভিভূত। আমরা আশা করছি, ২০১৭ সাল জুড়েও টনিকের প্রবৃদ্ধি বজায় থাকবে। আমরা ইতিমধ্যেই টনিকের নতুন সব উদ্ভাবনী বৈশিষ্ট্য ও সুবিধা নিয়ে কাজ শুরু করেছি এবং দেশজুড়ে এ সুবিধা পৌঁছে দিতে আমরা সবার কাছে স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট পৌঁছে যাবার সুবিধা গ্রহণ করবো।’

গ্রাহকদের আস্থা ও ধারাবাহিক সহায়তাদানে কৃতজ্ঞতাস্বরূপ গ্রামীণফোন এর গ্রাহকদের জন্য বিনামূল্যে টনিকে সদস্য হওয়ার সুযোগ দিচ্ছে। এ নিয়ে গ্রামীণফোনের সিইও পিটার বি. ফারবার্গ বলেন, ‘আমরা আমাদের গ্রাহকদের প্রতি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ এবং আমরা তাদের সাফল্যে অবদান রাখতে চাই।’ তিনি আরও বলেন, টনিকের মাধ্যমে আমরা স্বাস্থ্যের যত্ন নিতে এবং আমাদের পরিবারের ভালো থাকার জন্য ডিজিটাল ও মোবাইল প্রযুক্তি খাতে আমাদের দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর চেষ্টা করছি।’

মোবাইল প্রযুক্তির মাধ্যমে মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যসেবার সুযোগ বৃদ্ধিতে টেলিনর গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান টেলিনর হেলথ। টেলিনর হেলথ মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যসেবার সুযোগ বৃদ্ধিতে কাজ করছে। প্রতিটি বাংলাদেশির স্বাস্থ্যগত প্রয়োজন চিহ্নিত করার ক্ষেত্রে টনিক, টেলিনর হেলথের প্রথম পদক্ষেপ। স্বাস্থ্যসংক্রান্ত উচ্চ মানসম্পন্ন তথ্য ও পরামর্শ দান এবং স্বাস্থ্যসেবাকে আরও সাশ্রয়ী করে তুলতে কাজ করছে টনিক। টনিককে সহজলভ্য করতে গ্রামীণফোনের সাথে অংশীদারিত্বের মাধ্যমে টেলিনর হেলথ সকল সক্রিয় গ্রামীণফোন গ্রাহককে বিনামূল্যে টনিক সদস্য হবার সুযোগ দিচ্ছে। টনিক অ্যাপের (গুগল প্লে স্টোরে) মাধ্যম অথবা টনিকের ইউএসএসডি কোড *৭৮৯# ডায়াল করে তাৎক্ষণিক টনিকে নিবন্ধন করা যাবে।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক