দেশের সবচেয়ে বড় ইএটিএল অ্যাপস প্রতিযোগিতার ক্যাম্পাস অ্যাক্টিভেশন

শুরু হয়েছে দেশের সবচেয়ে বড় ইএটিএলের অ্যাপস প্রতিযোগিতার ক্যাম্পাস অ্যাক্টিভেশন।
দেশের একমাত্র বৃহত্তম মোবাইল অ্যাপস ডেভেলপমেন্ট প্রতিযোগিতার প্লাটফর্ম এবং প্রতিবছর ইএটিএলের এই অ্যাপস প্রতিযোগিতা বৃহৎ থেকে বৃহত্তর হচ্ছে।

বাংলাদেশের তরুণদের অ্যাপস মাতাবে বিশ্ব এই লক্ষ্য নিয়ে বাংলাদেশের প্রথম অ্যাপস স্টোর হচ্ছে ইএটিএল অ্যাপস স্টোর। প্রতিবছরের মতো এবারও আয়োজিত হচ্ছে, ইএটিএল প্রথম আলো অ্যাপস প্রতিযোগিতা ২০১৬। এথিকস অ্যাডভান্স টেকনোলজিস লিমিটেড (ইএটিএল) ও প্রথম আলোর আয়োজনে গত ২৪ মে চতুর্থবারের মতো শুরু হয় এ প্রতিযোগিতা। আর প্রচারণা পর্ব শুরু হয় চলতি মাসের ১৮ জুলাই। এরই অংশ হিসেবে সারাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে চলছে ক্যাম্পাস অ্যাক্টভেশন এবং সেমিনার অনুষ্ঠিত হচ্ছে প্রচারণা পর্ব।

ইতিমধ্যে, ঢাকার ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়, ভিক্টোরিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, ওয়ার্ল্ড বিশ্ববিদ্যালয়, এশিয়ান বিশ্ববিদ্যালয়, ইস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়, স্টেট বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঢাকার বাইরে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা নর্থ ওয়েস্টার্ন, পটুয়াখালী প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর জেলার হাজী মোহাম্মদ দানেশ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অ্যাক্টিভেশন এবং সেমিনার সম্পন্ন করা হয়েছে। এর মধ্যে শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের মধ্যে লক্ষ করা যাচ্ছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা, উত্তেজনা। তরুণ ছাত্র-ছাত্রীরা ব্যাপক আগ্রহের সঙ্গে, ক্যাম্পাসের বুথে আংশগ্রহণ করছেন, প্রতিযোগিতার তথ্য সংগ্রহ করচ্ছেন।

প্রতিযোগিতার আয়োজক ইএটিএল এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম এ মুবিন খান বলেন, ‘তোমরা নিশ্চয় হোয়াটস অ্যাপের কথা জানো। এ রকম একটি অ্যাপ সমাজকে পরিবর্ত করতে পারে, পারে একটি জাতির পরিবর্তন আনতে এবং বিশ্বকে পরিবর্তন করতে পারে। আমরাও এমন একটি অ্যাপ খুঁজছি যেটিকে দিয়ে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে দেয়া যাবে।তোমাদের কাছে যদি ভালো একটি ধারণা থাকে তাহলে সে ধারণা নিয়ে অংশ নাও এ প্রতিযোগিতায়। আর তৈরি করো অ্যাপ। এর মাধ্যমে নিজেকে চেনাও এবং সমাজকে সহায়তা করো।’

www.eatlapps.com/contest2016 ঠিকানার ওয়েবসাইটে আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দলগতভাবে বিভিন্ন বিভাগে অ্যাপের ধারণা জমা দিতে পারবে। এরপর জমা পড়া ধারণা থেকে থেকে সেরা ৫০০ এর ঘোষণা দেয়া হবে আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর। এরপর স্মার্টফোনের জন্য অ্যান্ডয়েড বা আইওএস কিংবা উইন্ডোজ সংস্করণে বানাতে হবে অ্যাপ। তারপর আরো নানান ধাপ পেরিয়ে চলতি বছরের ২৪ ডিসেম্বর এই প্রতিযোগিতা শেষ হবে। প্রতিযোগিতায় সেরা অ্যাপের জন্য রয়েছে ১০ লাখ টাকা পুরস্কার। সঙ্গে এবার যোগ হচ্ছে ট্রফি। এছাড়া প্রতি বিভাগে প্রথম অ্যাপ পাবে দুই লাখ টাকা। এ প্রতিযোগিতায় বিশ্বব্যাংক ও কানাডা এবারের আয়োজনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক। প্রতিযোগিতা আয়োজনে সহযোগিতা করছে বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি বিভাগ ও চ্যানেল আই।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.