দেশের বাজারে হুয়াওয়ে পি১০ ও পি১০ প্লাস স্মার্টফোন

রাজধানীর একটি হোটেলে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের বাজারে নতুন ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন পি১০ ও পি১০ প্লাস উন্মোচন করলো হুয়াওয়ে কনজ্যুমার বিজনেস গ্রুপ।

গত বছর ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস পি৯ ও পি৯ প্লাসের ব্যাপক সফলতার ধারাবাহিকতায় এবারও নতুন ফোন দুটিতে ব্যবহার করা হয়েছে জার্মানির লাইকার ডুয়েল লেন্সসমৃদ্ধ ক্যামেরা। এছাড়া প্যানটন কালার ইনস্টটিউটের সঙ্গে অংশীদারীত্বে ফ্যাশনেবল রঙের মিশ্রন ঘটিয়ে, বিশেষ করে হাইপার ডায়মন্ড-কাট পদ্ধতিতে তৈরি করা হয়েছে নতুন ডিভাইস দুটি।

পাশাপাশি কাটিং এজ প্রযুক্তি ও হুয়াওয়ে সুপারচার্জ পি১০ ও পি১০ প্লাসকে নিয়ে গিয়েছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির স্মার্টফোনের কাতারে।

এবারই প্রথম পি১০ ও পি১০ প্লাসে ব্যবহার করা হয়েছে লাইকা ফ্রন্ট ক্যামেরা। অত্যাধুনিক স্টুডিও মানের রি-লাইটিং ও থ্রিডি ফেসিয়াল শণাক্তকরণ প্রযুক্তি ব্যবহৃত হওয়ায় যে কোনো পরিবেশে চমৎকার ছবি তুলতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। বাড়তি আকর্ষণ হিসেবে রয়েছে হাইব্রিড জুম, যা ছবিতে কোনো নির্দিষ্ট বিষয়বস্তুকে ফোকাস করে স্বচ্ছতা বজায় রাখার ক্ষেত্রে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে।

অত্যাধুনিক ডিজাইনসম্বলিত স্মার্টফোনটির উচ্চমাত্রার কার্যকারিতা বজায় রাখতে এতে যুক্ত করা হয়েছে দ্রুততম সময়ে চার্জিং প্রযুক্তি হুয়াওয়ের সুপারচার্জ। এছাড়া ওএস হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যান্ড্রয়েডের সর্বশেষ সংস্করণ নুগাট ৭.১ এবং হুয়াওয়ের নিজস্ব ইন্টারফেস ইএমইউআই ৫.১।

দ্রুত গতিতে কর্ম সম্পাদনের জন্যে হ্যান্ডসেটটিতে ব্যবহার করা হয়েছে হাইসিলিকন কিরিন ৯৬০ চিপসেট, ২.৪ গিগাহার্জ কোর্টেক্স এ৭৩ ও ১.৮ গিগাহার্জ প্রসেসর ও ৪ জিবি র‌্যাম। চোখধাঁধানো গ্রাফিক্স উপভোগ করতে যুক্ত করা হয়েছে মালি- জি৭১ এমপি-৮ জিপিউ। ৬৪ জিবি ইন্টারনাল মেমোরি বা রমের পাশাপাশি মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে ২৫৬ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে হ্যান্ডসেটটির ধারণ ক্ষমতা। আছে ফোরজি প্রযুক্তির ডুয়েল সিম ব্যবহারের সুবিধা।

হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের ডিভাইস সেলস ডিরেক্টর জিয়াউদ্দিন চৌধুরী বলেন, বহু প্রতিক্ষার অবসান ঘটিয়ে আমরা গর্বের সঙ্গে পি১০ ও পি১০ প্লাস বাংলাদেশের বাজারে উন্মোচন করতে যাচ্ছি। সংশ্লিষ্ট খাতের বিশেষজ্ঞদল ও অভিজ্ঞতার সমন্বয়ে আমরা এখন পর্যন্ত সেরা ফোনগুলোর একটি তৈরি করেছি, যা বিশেষ করে ফটোগ্রাফির ক্ষেত্রে যুগান্তকারী ফোন হিসেবে বিবেচিত। বিশ্বের অন্যান্য স্থানের মতো বাংলাদেশের গ্রাহকরাও নতুন ফোনটি পছন্দ করবে বলে আমার বিশ্বাস।

দেশের বাজারে হুয়াওয়ে পি১০, এবং পি১০ প্লাস পাওয়া যাবে সোনালী রঙে। দেশের শীর্ষস্থানীয় মোবাইল অপারেটর রবির সঙ্গে অংশীদারিত্বে গিয়ে পি১০ ও পি১০ প্লাস উন্মোচন করেছে হুয়াওয়ে। রবি গ্রাহকরা পি১০ কিংবা পি১০ প্লাস ক্রয় করলে পাবে ১৫ জিবি ফ্রি ইন্টারনেট ডাটা। এক্ষেত্রে প্রতিমাসে পাঁচ জিবি করে তিনমাসে মোট ১৫ জিবি ফ্রি ইন্টারনেট ডাটা উপভোগ করতে পারবে ক্রেতারা।

রবির ডাটা, ডিভাইস ও ইন্টারন্যাশনাল বিজনেসের ভাইস প্রেসিডেন্ট বিপ্লব মজুমদার বলেন, টেলিকম অপারেটর হিসেবে হুয়াওয়ে পি১০ ও পি১০ প্লাস দেশের বাজারে উন্মোচন করার ব্যাপারে আমরা উচ্ছসিত। এর মাধ্যমে এটিই প্রমাণিত হয় যে, রবি নেটওয়ার্ক তার গ্রাহকদের জন্য সেরা স্মার্টফোন ব্যবহারের অভিজ্ঞতা নেয়ার সুযোগ করে দেয়। মোবাইল ডিভাইস বিজনেসের ক্ষেত্রে এ অংশীদারিত্ব আমাদের জন্য কার্যকরী একটি পদক্ষেপ। ডিজিটাল লাইফস্টাইলের ক্ষেত্রে আমাদের অধিক ইন্টারনেট ডাটা ব্যবহারকারী এবং ডিজিটাল ফটোগ্রাফিপ্রেমীদের জন্য হুয়াওয়ের স্টেট-অব-দ্যা-আর্ট ডিভাইসটি উপযুক্ত একটি স্মার্টফোন।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের ডিভাইস ডিরেক্টর অ্যারন।

হুয়াওয়ে ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস পি১০ ও পি১০ প্লাসের মূল্য যথাক্রমে ৫৬,৯০০ টাকা ও ৬৬,৯০০ টাকা। আগামি ২ মে, ২০১৭ থেকে যমুনা ফিউচার পার্ক ও বসুন্ধরা সিটি শপিং মলে অবস্থিত হুয়াওয়ে এক্সপিরিয়েন্স সেন্টারসহ দেশব্যাপি ৬৪ জেলার হুয়াওয়ে ব্র্যান্ড শপগুলো থেকে নতুন হ্যান্ডসেট দুটি ক্রয় করা যাবে। এছাড়া www.huaweip10.pickaboo.com -এ গিয়ে আজ ২২ এপ্রিল,থেকে অগ্রিম বুকিং দেয়া যাবে। অগ্রিম বুকিং দিলে উপহার হিসেবে পাওয়া যাবে আকর্ষণীয় গিফট বক্স, বিজনেস ব্যাগ ও পাওয়ার ব্যাংক। অগ্রিম বুকিং-এর সময় সর্বোচ্চ ২৪ মাসের ইএমআই বা কিস্তি সুবিধা পাওয়া যাবে।

হুয়াওয়ে পি১০-এর উল্লেখযোগ্য ফিচারসমূহ:

* থ্রিডি ফেসিয়াল ডিকেটশন হচ্ছে একটি ১৯২টি পয়েন্টে ফেস শণাক্তকরণ প্রযুক্তি, যার মাধ্যমে পারফেক্ট সেলফি তোলা সম্ভব।

* লাইকা ডুয়েল ক্যামেরা ২.০, যাতে অত্যাধুনিক ১২ মেগাপিক্সেল (আরজিবি) + ২০ মেগাপিক্সেল (মনোক্রোম) সেন্সর বিদ্যমান, যা বিস্তারিত ফেসিয়াল সুক্ষ্মতা ক্যাপচারে সক্ষম। ২.০ সংস্করণে রয়েছে এফ/১.৮ অ্যাপারচার সমৃদ্ধ সামিলাক্স-এইচ১ লাইকা লেন্স। কম আলোতে দুর্দান্ত ছবি তোলার অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে এই প্রযুক্তির মাধ্যমে।

* হাইব্রিড জুমের মাধ্যমে ব্যবহারকারী নির্দিষ্ট বিষয়বস্তুকে ছবিতে ফোকাস করতে পারবেন স্বচ্ছতা ও উন্নত মান বজায় রেখে।

* এমবেডেড আইএসপি, কিরিন ৯৬০-এর সঙ্গে মিলিয়ে ডিভাইসে যুক্ত করা হয়েছে, যার মাধ্যমে ফেসিয়াল ফিচার ও ডেপথ-ইন-ফিল্ডের রিয়েল টাইম ভিউ অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে।

* স্টুডিো মানের পোর্ট্রেট ছবি তোলার ক্ষেত্রে হ্যান্ডসেটটিতে পাওয়া যাবে চমৎকার সব ক্যামেরা মোড। উক্ত ফিচারের মাধ্যমে ছবি তোলার ক্ষেত্রে যার ছবি তোলা হবে তার মুখের আকার ও ত্বকের রঙকে শণাক্ত করে পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাওয়ানো যাবে অনায়াসে।

* ডাইনামিক ইল্যুমিনেশন হচ্ছে অভিনব একটি ফিচার। এর মাধ্যমে ছবি তোলার সময় আলো নিয়ে খেলা যাবে। এছাড়া এডব্লিউবি, শাটারস্পিডসহ অন্যান্য সেটিং পরিবর্তন করে নজরকাড়া ছবি তোলা যাবে পি১০ ও পি১০ প্লাস দিয়ে।

* ফ্রন্ট ক্যামেরা সেন্সর, পি১০ ও পি১০ প্লাসের একটি গুরুত্বপূর্ণ ফিচার। সেলফি তোলার ক্ষেত্রে উজ্জ্বলতা নিয়ে চিন্তা দূর করা এবং কম আলোতেও দৃষ্টিনন্দন ছবি তোলা হাতের আঙ্গুলের ব্যাপারের মতোই সহজ করে দেবে পি১০ ও পি১০ প্লাস।

 

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.