দারাজের তৃতীয় বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে ৭০% পর্যন্ত ছাড়

দেশের বৃহত্তম ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম ফধৎধু.পড়স.নফ তিন বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে ২০ থেকে ২৬ আগস্ট উদযাপন করতে যাচ্ছে একটি বিশাল বর্ষপূর্তি বিক্রয় ক্যাম্পেইন। ফ্রি ডেলিভারিসহ ৭০% পর্যন্ত ডিসকাউন্ট পাওয়া যাবে প্রায় ১ লাখ পণ্যে। এছাড়াও সীমিত স্টকে মাত্র ৩ টাকায় পাওয়া যাবে ইউনিলিভার পিওরইট ফিজেট স্পিনার, ছেলেদের ঘড়ি, ক্যাম্পিং গিয়ার ট্রিমার ইত্যাদি পণ্য।

দারাজ বর্ষপূর্তি বিক্রয় ক্যাম্পেইনের প্রথম তিন দিনের মধ্যে আনলক করা হবে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে মূল্যছাড়। প্রথম দিনে আনলক হবে অ্যাপ্লায়েন্স,টিভি হোম অ্যান্ড লিভিং বেবি-কিডস ও খেলনা ক্যাটাগোরিগুলো। দ্বিতীয় দিনে আনলক হবে ফ্যাশন, স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য বিষয়ক ক্যাটাগোরি এবং তৃতীয় দিনে ফোন ও ট্যাবলেট, কম্পিউটিং ও গেমিং, স্পোর্টস ও ফিটনেস ক্যাটাগোরিগুলো আনলক হবে। এছাড়াও ক্যাম্পেইনকে আরো আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য ৭ দিনের একেক দিন থাকবে একেকটি ফ্ল্যাশসেল দুপুর ৩টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত।

ক্যাম্পেইনে আমাদের ব্যাংকিং ও পেমেন্ট পার্টনার হিসেবে থাকছে- সিটি ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, ইউসিবি ব্যাংক, এনআরবি ব্যাংক, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক ও ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড। উল্লিখিত ব্যাংকিং পার্টনাররা ০% ইএমআই অফার দিচ্ছে, এছাড়াও সিটি ব্যাংক দিচ্ছে ১০% ক্যাশব্যাক, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড দিচ্ছে ৫% ক্যাশব্যাক এবং বিকাশের মাধ্যমে ২০% ক্যাশব্যাকও পাওয়া যাবে।

দারাজ বাংলাদেশ লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সৈয়দ মোস্তাহিদল হক সমগ্র বাংলাদেশের মানুষকে আমন্ত্রণ জানান দারাজের এই মেগা ক্যাম্পেইনে অংশ গ্রহণের জন্য এবং বলেন- “তৃতীয় বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে আমাদের উপর আস্থা রাখার জন্য বাংলাদেশের জনগণকে জানাই ধন্যবাদ। গত তিন বছরে দারাজের অভাবনীয় ব্যপ্তি হয়েছে। দারাজে অর্ডারের সংখ্যা ১৬০ গুণ এবং ওয়েবসাইটে ভিজিট ৮২ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এর সাথে গ্রাহক সংখ্যা বেড়েছে ১০০ গুণ। এই মুহূর্তে দারাজে পণ্যের সংখ্যা ১.৫ লক্ষেরও অধিক এবং ব্র্যান্ড ও বিক্রেতার সংখ্যা হচ্ছে প্রায় ১,৬০০। এ সবই সম্ভব হয়েছে শুধুমাত্র এদেশের মানুষের জন্যই। দারাজের সামনে এখনও অনেক পথ পাড়ি দেওয়া বাকি। আমাদের বিশ্বাস এদেশের মানুষের সহযোগীতায় এই পথ আমরা অনায়াসেই পার করতে পারব”।

বাংলাদেশের বৃহত্তম অনলাইন মার্কেটপ্লেস ফধৎধু.পড়স.নফ, গত তিন বছর ধরে সফলভাবে অনলাইন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। দারাজ শুধু মাত্র একটি অনলাইন শপ হিসেবে কাজ করে না, এর কার্যক্রমের পেছনে রয়েছে একটি সুচিন্তিত বিজনেস মডেল। এটাই হচ্ছে দারাজের সাফল্যের রহস্য। দারাজ হচ্ছে ক্রেত ও বিক্রেতাদের সম্মিলিত করার একটি মাধ্যম। বাংলাদেশে ই-কমার্সের বিপ্লব ঘটিয়েছে ফধৎধু.পড়স.নফ এবং আগামী তিন বছরে এটা আরো উন্নতি সাধন করবে।

-সিনিউজভয়েস

Please Share This Post.