তরুণদের আয়ের বড় সুযোগ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বেশ জনপ্রিয় একটি ধারণা। সম্প্রতি বাংলাদেশি তরুণদের মাঝে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে আগ্রহ চোখে পড়ার মতো। আগ্রহী এসব তরুণদের কথা মাথায় রেখে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের শেষদিনে ছিল বিশেষ আয়োজন।

‘ডিজিটাল মার্কেটিং ফর ফিউচার’ শীর্ষক এ সেমিনারে বক্তব্য রাখেন সফল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটাররা। এখানে সফল হতে আগ্রহী তরুণ-তরুণীদের জন্য বিভিন্ন করনীয় সম্পর্কে তুলে ধরেছেন তারা।

এ সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. রাশেদুল ইসলাম। তিনি বলেন: সরকারের ৫ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয়ের জন‌্য তরুণরাই কাজ করবে। এই লক্ষ‌্যমাত্রা অর্জনের জন‌্য তরুণদের সব ধরনের সহযোগিতা দেবে আইসিটি ডিভিশন।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে কাজ করছে মার্কেটেভার বাংলাদেশ। এর প্রতিষ্ঠাতা আল-আমিন কবির সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

তিনি বলেন: বিশ্বব্যাপী অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ৫ বিলিয়ন ডলারের বড় বাজার। সেখানে আমাদের দেশের তরুণদের অনেক কমপিটিটিভ অ্যাডভান্টেজ রয়েছে। শুধু প্রয়োজন উপযুক্ত প্রশিক্ষণ এবং মূলধন।

তিনি জানান, আমরা এখনই এ বিষয়ক সচেতনতা তৈরি, প্রশিক্ষণ প্রদান এবং মূলধন সরবরাহ নিশ্চিত করতে পারলেই এই ৫ বিলিয়নেরও বড় এই ইন্ডাস্ট্রির উল্লেখযোগ‍্য অর্থ বাংলাদেশে আনা সম্ভব।

আলোচক হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন ডেভসটিমের সহ-প্রতিষ্ঠাতা নাসির উদ্দিন শামীম। তরুণদের উদ্দেশ্যে তিনি জানান, কেউ অ‌্যাফিলিয়েট অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে কাজ করতে চাইলে প্রথমেই পুরো ব্যাপারটি সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা থাকতে হবে। ভালোভাবে কাজ করতে চাইলে এখানে সফল হওয়া সম্ভব। তবে এজন্য লেগে থাকতে হবে।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটার জাহিদ হাসান বলেন: যেকোনো একটি বিষয় নিয়ে সামনে এগোতে হবে। কাজ করার আগে ভালোভাবে তাতে দক্ষতা অর্জন করার উপরও জোর দেন তিনি।

অপর মার্কেটার কে এম রফিকুল ইসলাম এ বছর অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে আয় করেছেন এক মিলিয়ন ডলারের বেশি।তরুণদের উদ্দেশ‌্য তিনি জানান, কম সময়ে ভালো কিছু শেখা যায় না। ভালো কিছু শিখতে হলে সময় দিতে হবে। আমার সফলতার মূল কারণ দীর্ঘ নয় মাস এ বিষয়ে আমি হাতে কলমে শিখেছি।

বক্তারা জানান, অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং বর্তমান সময়ে তরুণদের মাঝে বেশ সাড়া ফেলেছে। অনেকেই আগ্রহী হচ্ছে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিংয়ে। তবে সঠিক গাইডলাইনের অভাবে শুরু করতে পারছে না অনেকেই। এজন‌্য এখাতে কাজ করে সফল হয়েছে তাদের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় পরামর্শ নেয়া যেতে পারে।

সিনিউজভয়েস//ডেস্ক/

Please Share This Post.