তথ্য প্রযুক্তিতে নারীদের দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক প্রোগ্রামিং ক্যাম্প অনুষ্ঠিত 

তথ্য প্রযুক্তিভিত্তিক দক্ষতায় দখল ছাড়া কর্মক্ষেত্রে নারীর ক্ষমতায়ন সম্ভব নয়। বর্তমানে কর্মবাজারে নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে চাই তথ্য প্রযুক্তিতে প্রশিক্ষিত নারীকর্মী। শিক্ষাবস্থা থেকে নারীদের এই কর্মবাজারের জন্য প্রস্তত করতে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) উদ্যোগে সিটি ইউনিভার্সিটিতে আয়োজিত হলো প্রোগ্রামিং ক্যাম্প, আসিটি ক্যাম্প এবং ক্যারিয়ার টক। তিনদিনব্যাপী এই আয়োজনগুলোতে অংশ নেন বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রায় ১৩৫ জন শিক্ষার্থী। গত ২৫ জানুয়ারি প্রোগ্রামিং ক্যাম্পের মাধ্যমে শুরু হওয়া এই কর্মসূচীর আজ ছিলো শেষ দিন।

দুইদিনব্যাপী প্রোগ্রামিং ক্যাম্পে অংশ নেন বিশ্ববিদ্যালয়টির কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের ৪০ জন নারী শিক্ষার্থী। কোডিং এর মাধ্যমে বাস্তবিক সমস্যা সমাধানের হাতে কলমে প্রশিক্ষণ নেন তারা। দ্বিতীয় দিন একটি অনলাইন প্রোগ্রামিং কন্টেস্টে অংশ নেন শিক্ষার্থীরা।

আয়োজনের শেষ দিন বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ৯৫ জন শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে আয়োজিত হয় একটি আইসিটি ক্যাম্প। ক্যাম্পটি পরিচালনা করেন দৈনিক প্রথম আলোর ডিজিটাল বিজনেস-এর প্রধান জাবেদ সুলতান পিয়াস। তিনি তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে ডিজিটাল বিজনেসের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে আলোচনা করেন। তিনি বলেন, “যে যত বেশী কার্যকর ভাবে নিজের কাজ শেষ করতে পারবে সেই টিকে থাকবে। আর এই কাজ টা সহজ করে দেয় তথ্য প্রযুক্তি”। শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, প্রথম আলো সব থেকে বড় ওয়েব (প্রায় ৫২% পেজ ভিজিট)। প্রতিদিন প্রায় ১ কোটি ২০ লক্ষ মানুষ ভিজিট করতে আসে। ঠিক সেই পরিমান মানুষ পেজ হ্যাক করতেও আসে। তাই সিকিউরিটি একটা বড় ইস্যু। সেখানেও তথ্য প্রযুক্তি ছাড়া সেই সমস্যার সমাধান সম্ভব নয়। তাই যে কোন কাজেই তথ্য প্রযুক্তির জ্ঞান থাকা জরুরি”।

এরপর একটি ক্যারিয়ার টকের মাধ্যমে শেষ হয় তিন দিনব্যাপী এই আয়োজনের। ভবিষ্যতের কর্মক্ষেত্র কেমন হতে যাচ্ছে এবং সেই দিনের জন্য নারীদের প্রস্তুতি গ্রহণের নির্দেশনা দিতে ক্যারিয়ার টকে উপস্থিত ছিলেন বিডিওএসএন এর সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক প্রথম আলোর যুব কর্মসূচীর প্রধান মুনির হাসান। তিনি বলেন, তথ্য প্রযুক্তির বর্তমান যুগে কর্মক্ষেত্রের প্রচলিত ধারা ভেঙ্গে সৃষ্টি হচ্ছে নিত্য নতুন কাজের সুযোগ। প্রোগ্রামিং, ওয়েব ডিজাইন ছাড়াও এখন অটোমেশন, ডেটা মাইনিং, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স প্রভৃতি কাজের ক্ষেত্র তৈরী হচ্ছে। এসব কাজের মাঝে নিজের জায়গা করে নিতে হলে দরকার তথ্য প্রযুক্তির উপর সম্পূর্ণ দখল। আর তাই নিজেকে তৈরী করতে হবে এখন থেকেই। তিনি প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে নিজের দক্ষতার জায়গা খুঁজে বের করে সেটা নিয়ে এখন থেকেই কাজ করার জন্য অনুপ্রাণিত করেন। তিনি আরো বলেন, “কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল মানেই শুধু প্রোগ্রামার নয়, প্রযুক্তিভিত্তিক দুনিয়ায় কাজের পরিধি বাড়ছে আর সেভাবেই প্রস্তুত হতে হবে”।

বিডিওএসএন এর তিন বছর মেয়াদি চলমান প্রকল্পের আওতায় অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের প্রধান মোহাম্মদ সাফায়েত হোসেন। আয়োজনের শেষে প্রোগ্রামিং কন্টেস্টে বিজয়ীদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেয়া হয়।

 

-সিনিউজভয়েস/জিডিটি/২৮জানু./২০

 

Please Share This Post.