তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নগদ প্রণোদনা দেওয়া হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

‘তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য রফতানির জন্য নগদ প্রণোদনা দেওয়া হবে। অন্য রফতানি পণ্যে আমরা যেমনি সহায়তা দিই, তথ্যপ্রযুক্তি পণ্যেও তাই দেব।’ – ২২ ডিসেম্বর, রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের কম্পিউটার সিটি সেন্টার (মাল্টিপ্লান) আয়োজিত ডিজিটাল আইসিটি মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমদ এসব কথা বলেন।

উল্লেখ্য, এর আগে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার এই সহায়তার দাবি পেশ করেন। ডিজিটাল আইসিটি ফেয়ারেও বেসিস সভাপতি বিষয়টির প্রতি বাণিজ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

কম্পিউটার সিটি সেন্টারের সভাপতি তৌফিক এহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, বিসিএস সভাপতি আলী আশফাক, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা মহসিন মন্টু ও এফবিসিসিআই-এর পরিচালক মোতালেব আহমদ বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ আরো বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে সরকার তথ্যপ্রযুক্তি খাতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিচ্ছে। বাংলাদেশ এখন তথ্যপ্রযুক্তি খাতে অনেক দূর এগিয়েছে। বিশ্বের অনেক দেশ এখন বাংলাদেশকে অনুসরণ করে। আগামীতে দেশের গার্মেন্টসের মতোই বড় খাত হবে তথ্যপ্রযুক্তি খাত, তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের উদ্যোক্তাদের এমন লক্ষ্যের সাথে আমরাও একমত। দেশীয় বাজারের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজারেও আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য ও সেবা বড় বাজার তৈরি করতে পারবে সেই প্রত্যাশা করি। ২০২১ সালে বাংলাদেশ এক্ষেত্রে সহযোগিতার জন্য সরকারের পক্ষ থেকে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের রফতানি বৃদ্ধিতে প্রণোদনা দেওয়া হবে।’

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আমি গত ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডে প্রধানমন্ত্রীর কাছে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে নগদ প্রণোদনার বিষয়টি দাবি করি। তিনি ব্যক্তিগতভাবে সেটি সমর্থন করেন। সেখানে উপস্থিত অর্থমন্ত্রীকে প্রধানমন্ত্রী দাবিটি বাস্তবায়নের কথা বলেন। পরবর্তীতে ডিজিটাল ওয়ার্ল্ডের আরেকটি সেমিনারে বাণিজ্যমন্ত্রীকে দাবি জানালে তিনি বলেন, যেহেতু অন্যান্য খাতেও নগদ প্রণোদনা দেওয়া হয়, তথ্যপ্রযুক্তি খাতেও দেওয়া প্রয়োজন। বাণিজ্যমন্ত্রীর আজকের এই ঘোষণার মাধ্যমে দাবিটি পূরণ হওয়ার পথ এগিয়ে গেল।’

বেসিস সভাপতি আরো বলেন, সত্যিকার অর্থে দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের উন্নয়ন করতে হলে আমাদেরকে আরও কিছু পদক্ষেপ নিতে হবে। স্যামসাং, এইচপি, ডেলের মত্যে বিশ্বের স্বনামধন্য হার্ডওয়্যার কোম্পানিগুলো বাংলাদেশে ব্যবসা অব্যাহত রাখতে চাইলে তাদেরকে বাংলাদেশের সেসব পণ্য তৈরি করতে হবে এবং বাংলাদেশ থেকেই বিদেশে রফতানি করতে হবে। একইসঙ্গে সরকারি উদ্যোগে যেসব তথ্যপ্রযুক্তি উদ্যোগ নেওয়া হয় তার কাজ বাংলাদেশি কোম্পানিকে দিয়ে করাতে হবে বলে দাবি জানান বেসিস সভাপতি।

 

– সিনিউজভয়েস ডেস্ক

Please Share This Post.